বুধবার, ২১ অক্টোবর ২০২০, ০৭:১৫ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
মান্না -তৈমুর ও পাটকল শ্রমিকদের উপর হামলার নিন্দা………আ স ম রব ৩৮তম বিসিএস নন-ক্যাডারের ফল প্রকাশ শার্শার উলাশী ইউনিয়ন বিএনপি’র সভাপতি মিজানুর রহমান আওয়ামীলীগে যোগ দিলেন কী না ? এই নিয়ে নানান গুঞ্জন বিদেশ যাবে বাংলাদেশি কুমির, আয় হবে ৪০০ কোটি শার্শায় সাবেক মহিলা ইউপি সদস্যের বাড়িতে ডাকাতি সোনার চেইন ও নগদ আড়াই লক্ষ টাকা লুট আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় লোক সমাগম ঠেকাতে  অপতৎপরতা  ! সাঁথিয়ায় আট বছরের শিশুকে যৌন হয়রানির অভিযোগ বিরামপুরে বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণ,থানায় মামলা! সাঁথিয়ায় সরকারি পুকুরে জোরপূর্বক মাছ চাষ করায় হুমকির মুখে বিদ্যালয়ের ভবন আত্রাইয়েবিএনপির বিক্ষোভসমাবেশঅনুষ্ঠিত বাবার অপহরণ মামলার পর মেয়ে জানালেন, ‘স্বেচ্ছায় বাড়ি ছেড়েছি’ ভিয়েতনামে বন্যা ও ভূমিধসে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১০৫ বরিশালে বিএনপির প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তারা প্রজাতন্ত্রের পুলিশ আজ আওয়ামী বাহিনীতে পরিণত হয়েছে উলিপুরে বিএনপি’র মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা ৫ দফা দাবিতে গাইবান্ধায় ফারিয়ার কর্মবিরতি ও মানববন্ধন

অপারেশনে মেয়ের মৃত্যু, ‘স্যরি’ লিখে চিকিৎসক বাবার আত্মহত্যা

অপারেশনে মেয়ের মৃত্যু, ‘স্যরি’ লিখে চিকিৎসক বাবার আত্মহত্যা গত ২৩ সেপ্টেম্বর নিজের ৭ বছর বয়সী কন্যা সন্তানের অস্ত্রোপচার করেন ভারতের কেরালার অর্থোপেডিকসের স্বনামধন্য চিকিৎসক অনুপ কৃষ্ণা। তবে অস্ত্রোপচারে মৃত্যু হয় তার সন্তানের। এই চিকিৎসক বিরুদ্ধে সামাজিক যোগাযোগ অভিযোগ উঠে তিনিই তার সন্তানকে মেরে ফেলেছেন। এ অপমান সইতে না পেরে শেষ পর্যন্ত আত্মহত্যাই করেছেন কেরালার এ চিকিৎসক।

এ ঘটনায় কোল্লাম জেলার কিলিকোল্লুর পুলিশ একটি অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা রুজু করে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। এ চিকিৎসক নিজেই অনুপ অর্থো কেয়াল নামের একটি হাসপাতাল চালাতেন।

বৃহস্পতিবার (১ অক্টোবর) কাদাপ্পাকাড়াতে নিজ বাড়ি থেকে তার মরদেহ উদ্ধার হয়। বাথরুমের দেওয়ালে ‘স্যরি’ লিখে আত্মহত্যা করেন তিনি। এক সপ্তাহ আগেই মেয়ের মৃত্যু হয়েছিল। ঘটনার তদন্তকারী অফিসাররা সেই বিষয়টিকেও মাথায় রেখেছেন। তবে ওই কারণেই তিনি আত্মঘাতী হয়েছেন কি না- তা এখনই নিশ্চিত করতে পারছে না পুলিশ। অনলাইনে বা অফলাইনে তাকে কোনও হুমকি দেয়া হয়েছিল কি না- তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

গত ২৩ সেপ্টেম্বর তার সাত বছরের মেয়ে বাবার হাসপাতালেই ভর্তি হয়েছিল। হাঁটুর অস্ত্রোপচারের সময় কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট অর্থাৎ হৃদরোগে আক্রান্ত হয় সে। বাবা নিজেই মেয়ের অস্ত্রোপচার করছিলেন। আরেকটি হাসপাতালে নিয়ে গেলেও তাকে বাঁচানো যায়নি। মেয়ের মৃত্যুর জন্য পরিবার ও স্থানীয়রা হাসপাতালের বাইরে বিক্ষোভ দেখান।

অনুপের বিরুদ্ধে গাফিলতির অভিযোগ তোলা হয়। কোল্লাম পূর্ব পুলিশ স্টেশনে তার বিরুদ্ধে চিকিৎসায় গাফিলতির অভিযোগ দায়ের করা হয়।

তবে অনুপের পক্ষেও মুখ খুলেছেন কেরালার একাধিক চিকিৎসক। সোশ্যাল মিডিয়ায় তাকে ভয়াবহ হেনস্তা করা হচ্ছিল বলে জানিয়েছেন তারা।

এ বিষয়ে সুলফি নোহু নামের এক চিকিৎসক ফেসবুকে লিখেছেন, ‘একাধিক ডাক্তার এই কোভিড পরিস্থিতিতে মেয়ের হাঁটু অস্ত্রোপচারে রাজি হননি। অনুপ একাই ঝুঁকি নিয়ে রাজি হয়েছিলেন। দুর্ভাগ্যবশত আমরা শিশুটিকে হারিয়ে ফেলেছি। আর তার পরেই শুরু হয়ে গেছে সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রায়াল। ডাক্তারের অপরাধ বলে রায়ও দিয়েছেন অনেকে। এমনকি অনেকেই লিখেছেন বাবা নিজেই মেয়েকে খুন করেছে।’

তারপর থেকেই অবসাদে ছিলেন অনুপ। তবে সে কারণেই আত্মহত্যা করেছেন কি না- তা খতিয়ে দেখছেন তদন্তকারীরা। পরিবার ও স্ত্রীর সঙ্গে কথা বলছেন তারা।

Please Share This Post in Your Social Media

দেশের সংবাদ নিউজ পোটালের সেকেনটের ভিজিটর

37632850
Users Today : 970
Users Yesterday : 5388
Views Today : 3171
Who's Online : 25
© All rights reserved © 2011 deshersangbad.com/
Design & Developed BY Freelancer Zone