শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১০:১৫ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
শারীরিক মিলন নিয়ে ১৫টা অজানা সত্যি তথ্য জেনে নিন নারীকে কাম উত্তেজিত ও দীর্ঘ সময় মিলনের সহজ উপায় দুই বিশ্ববিদ্যালয়ে ভিসির দায়িত্বে রেজিস্ট্রার, ক্ষোভ-বিক্ষোভ অসন্তোষ শেখ ফজলুল হক মনি: যুব রাজনীতির স্থপতি এএসপিআই প্রতিবেদন মুসলিম নিধনে বেপরোয়া চীন বিতর্কিত কৃষি বিলের প্রতিবাদ ভারতজুড়ে কৃষকদের বিক্ষোভ ফের উত্তপ্ত মালয়েশিয়া, সরকার পরিবর্তনের ইঙ্গিত ট্রাম্পের বিরুদ্ধে ভাতিজির প্রতারণা মামলা সাত দেশে বাংলাদেশি কর্মীদের চাহিদা বেশি দুমকিতে পল্লীবিদ্যু গ্রাহক হয়রানীর প্রতিবাদে মানববন্ধন বুড়িগোয়লিনি ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষ থেকে এ্যাড জহুরুল হায়দারকে ফুলেল শুভেচ্ছা বিসিকের প্রাচীর নির্মানেও নিম্নমানের ইট-বালি তানোরে খাদ্য কর্মকর্তার বিরুদ্ধে দুদুকের মামলা আখতারুজ্জামান চৌধুরী বাবু যুব পরিষদ চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলার ২১ সদস্য কমিটি অনুমোদন শারদীয় দূর্গা পূজা উপলক্ষে তিনদিনের ছুটি সহ সংখ্যালঘু সুরক্ষা আইন বাস্তবায়নের দাবীতে পতœীতলায় মানববন্ধন

অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা হত্যাকাণ্ড: পুলিশের বলিরপাঠা সিফাত!

‘সাহেদুল ইসলাম সিফাতের ছোটবেলা থেকে শখ ছিলো ফটোগ্রাফি ও অভিনয় করা। সে কারণে আমরা তাকে স্ট্যামফোর্ড ইউনিভার্সিটিতে ফ্লিম ও মিডিয়া বিভাগে ভর্তি করি। নিহত অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা রাশেদ খান তাঁর ইউটিউব চ্যানেলে ভিডিও ধারণ করার জন্য সিফাতকে নিয়ে যান টেকনাফে। সেখানে একটি রিসোর্টে অবস্থান করে একমাস ধরে ডকুমেন্টরি ভিডিও তৈরি করছিলেন তারা। তবে ফেরার পথে গত ৩১ জুলাই রাত ৯টায় টেকনাফের বাহারছড়া ইউনিয়নের শামলাপুর পুলিশ চেকপোস্টে এক পুলিশ কর্মকর্তার গুলিতে নিহত হয় অবসরপ্রাপ্ত সেনাবাহিনীর মেজর সিনহা মো. রাশেদ খান। সাবেক ওই সেনা কর্মকর্তার সাথে একই গাড়িতে ফিরছিলো আমার নাতি সিফাত। পুলিশ তাদের দোষ ধামাচাপা দিতে আমার নাতিকে মিথ্যা অভিযোগে গ্রেপ্তার করে। আমিসহ দেশবাসী বিশ্বাস করে পুলিশের নাটকের বলিরপাঠা হলো আমার নাতি সিফাত।’

পুলিশের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ করেন গ্রেপ্তার হওয়া নিহত সাবেক মেজর সিনহার সাথে থাকা সাহেদুল ইসলাম সিফাতের নানা এনায়েত কবির হাওলাদার। তিনি বরগুনা জেলার বামনা সদর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান। বুধবার (৫ আগস্ট) রাতে তার বাসবভনে এ প্রতিবেদকের কাছে এসব কথা বলেন তিনি।

এসময় তিনি আরো বলেন, টেকনাফ থানা পুলিশ নিজেরা বাঁচতে তাঁর নাতিসহ আরো দুজন সহপাঠীকে এই ঘটনার বলিরপাঠা বানানো হচ্ছে। সিফাতের স্বপ্ন পুলিশের সাজানো নাটকে আজ ধংস হতে চলেছে। সিফাত জীবনে একটি সিগারেটও খায়নি অথচ তাকে মাদক দিয়ে ফাঁসানো হয়েছে। মেজর সিনহা ওকে খুব ভালোবসত। ওর মাধ্যমে সিনহা তাঁর ইউটিউব চ্যানেলটি তৈরির কাজ শুরু করে।

নিহত সাবেক মেজর সিনহা রাশেদ খানের সাথে একই গাড়িতে থাকা সাহেদুল ইসলাম সিফাতের বাড়ি বরগুনার বামনা উপজেলার কলাগাছিয়া গ্রামে। তার বাবার নাম নুর মোস্তফা মা লন্ডন প্রবাসী মোসা. শিলা খান। সিফাত এ বছর স্ট্যামফোর্ড ইউনিভার্সিটির ফ্লিম ও মিডিয়া বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী। এর আগে তিনি বামনা সরকারি সারওয়ারজান পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি ও বামনা কলেজ থেকে এইচ এস সি পাশ করেন।

সিফাতের নানা বলেন, সিফাত টেকনাফে যাওয়ার সময় সিনহার তথ্য চিত্রের বিভিন্ন দিক নিয়ে আমার সাথে কথা বলেছে। ও আমায় বলে নানু আমি ফটোগ্রাফি নিয়ে কাজ পড়াশুনা করে একদিন নাম করা ফটোগ্রাফার হবো। তোমরা দোয়া করো আমি সিনহা স্যারের সাথে টেকনাফে শুটিং করতে যাচ্ছি। ওখানে একমাস থাকবো। তোমার নাতিকে একদিন দেশ চিনবে।

তিনি কষ্টের স্বরে বলেন, আজ আমার নাতিকে সত্যি দেশ চিনলো তবে পুলিশের সাজানো নাটকের আসামি হিসাবে। আমি আমার নাতির মুক্তি চাই। আপনারা আমার নাতিকে এনে দিন। সরকার আমার নাতিকে পুলিশের হাত থেকে ফিরিয়ে দিন।

এদিকে বুধবার বামনা সরকারি সারওয়ারজান পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের সিফাতের সহপাঠীরা সিফাতের মুক্তির দাবীতে বামনা প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন করতে চাইলে পুলিশের টহলে ওই মানবন্ধন করতে সফল হয়নি তারা। বামনা থানা পুলিশ দুজন সহপাঠীকে মানববন্ধন না করার জন্য হুমকিও প্রদান করে বলে জানায় ওই সহপাঠীরা।

বামনা থানার ওসি ইলিয়াস আলী তালুকদারের কাছে এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, সাবেক মেজর সিনহা টেকনাফে নিহতে হয়েছেন। সেখানেই মামলা হয়েছে যার তদন্ত চলমান। এর চেয়ে বেশিকিছু আমার জানা নেই।

Please Share This Post in Your Social Media

দেশের সংবাদ নিউজ পোটালের সেকেনটের ভিজিটর

37491632
Users Today : 5661
Users Yesterday : 6154
Views Today : 15642
Who's Online : 32
© All rights reserved © 2011 deshersangbad.com/
Design & Developed BY Freelancer Zone