রবিবার, ১৬ মে ২০২১, ১২:১৪ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
তথাকথিত ধর্ম ও সমাজতান্ত্রিকরা রাষ্ট্রের জন্য ক্ষতিকর : মোমিন মেহেদী নওগাঁর মহাদেবপুরে এমপির সাথে নবগঠিত ডিজিটাল প্রেসক্লাবের সদস্যদের ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় ও কমিটি হস্তান্তর পল্লবীতে পুলিশ কর্তৃক সাংবাদিক ও মানবাধিকার কর্মীকে হয়রানী। লকডাউন অমান্য করে কুয়াকাটায় পর্যটকের ভীড় বিশ্বে প্রাকৃতিক দুর্যোগ প্রকৃতির বিচিত্র কখনো কখনো মানুষের উপর ভয়াবহ দুর্যোগ নেমে আসে। কোম্পানীগঞ্জে আবারো পাল্টাপাল্টি কর্মসূচি ঘোষণা ইসরায়েলকে ঠেকাতে এগিয়ে যাচ্ছে আশপাশের দেশের মানুষ! দাতভাঙা জবাব দিচ্ছে হামাস, সত্য গোপনের চেষ্টায় ইসরায়েল! এবার পশ্চিম তীরে রণক্ষেত্র! ৪০ মিনিটে ১৩ ফিলিস্তিনিকে হ’ত্যা করল ইসরাইলি যু’দ্ধবিমান ! ঈদ উদযাপন শেষ, বাড়ছে ঢাকামুখী মানুষের চাপ ! মুসলিম দেশকে এক করার ঘোষণা ইমরান খানের ! ইসরাইলের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে শত শত বিক্ষোভকারীরা! (ভিডিও) ঈদের ছুটি শেষ, কাল খুলছে অফিস-আদালত ! লকডাউন আরও বাড়ছে, কাল প্রজ্ঞাপন জারি !

অভিভাবকহীন শৈলকুপা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সের এ্যাম্বুলেন্স

স্টাফ রিপোর্টার, ঝিনাইদহঃ
ঝিনাইদহের শৈলকুপা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সের এ্যাম্বুলেন্স টি কি অভিভাবকহীন ? নিয়োগ প্রাপ্ত চালক নাই ? যে ইচ্ছে সেই গাড়িটিতে রোগী নিয়ে ছুটছে ঢাকা সহ দেশের বিভিন্ন প্রান্তে! অনেকের ব্যক্তিগত আয়ের উৎস হয়ে দাঁড়িয়েছে সরকারী এই এ্যাম্বুলেন্সটি। অন্যদিকে হাসপাতালের বেড দেখা গেছে এ্যাম্বুলেন্সের চালকের বাড়িতে! অনুসন্ধ্যানে জানা গেছে, সর্বশেষ গত শুক্রবারও শৈলকুপা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সটির এ্যাম্বুলেন্স ঢাকা মেডিকেলের উদ্দ্যেশ্যে বের হয় সুমীর সাহা নামের এক রোগী নিয়ে। মিল্টন ও স্বপন নামের দুই যুবক এ্যাম্বুলেন্স চালিয়ে ঢাকা যায়। কিডনি জোটিলতায় ভোগা নগরপাড়ার এই রোগী কে শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে শৈলকুপা থেকে নেয়া হয়। এদিকে হাসপাতালের জরুরী বিভাগে তখন খোঁজ নিলে বলা হয় সরকারী এ্যাম্বুলেন্সটির নিয়োগপ্রাপ্ত ড্রাইভার বকুল মিয়া গাড়িটি নিয়ে হাসপাতাল থেকে বের হয়েছিল। এদিকে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছে, হাসপাতালের গেট পার হওয়ার সাথে সাথেই নিয়োগপ্রাপ্ত ড্রাইভার বকুল মিয়া এ্যাম্বুলেন্সটি ছেড়ে দেয় অন্যান্যের হাতে ! গত শুক্রবারও একই ঘটনা ঘটিয়েছে এই ড্রাইভার। অভিযোগ উঠেছে হাসপাতালের অসাধু কিছু ডাক্তার-কর্মকর্তাদের সাথে যোগসাজস রয়েছে এই ড্রাইভারের। তাদের মাধ্যমেই হাসপাতালের জরুরী সেবায় নিয়োজিত এ্যাম্বুলেন্সটি লাইসেন্স বিহীন চালকদের হাতে ছেড়ে দেয়া হয় দিনের পর দিন। রোগীর স্বজন সহ বিভিন্ন মহলে প্রশ্ন উঠেছে লাইসেন্স বিহীন চালক বা বহিরাগতরা যখন হাসপাতালের রেফার রোগী নিয়ে দেশের বিভিন্ন জায়গা যায় পথিমধ্যে দুর্ঘটনা ঘটলে তার দায় নেবে কে ? এ্যাম্বুলেন্স নিয়ে অনুসন্ধানে বেরিয়ে এসেছে অনিয়মের ভয়াবহ চিত্র। জানা গেছে বকুল মিয়া শৈলকুপা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী কাজে নিয়োজিত এ্যাম্বুলেন্সটির নিয়োগপ্রাপ্ত চালক/ড্রাইভার। তার বাড়ি শৈলকুপার বাজারপাড়া এবং দীর্ঘ বছর ধরে তিনি শৈলকুপাতেই কর্মরত রয়েছে। এই সুযোগ নিয়ে ড্রাইভার বকুল মিয়া এলাকার প্রভাবশালীদের নিয়ে সিন্ডিকেট গড়ে তুলেছে। হাসপাতালের অসাধু কিছু কর্মকর্তাদের সাথেও গড়ে তুলেছে সখ্যতা। তাদের কারণেই নানা তদবিরে বারবার অনিয়ম করেও পার পেয়ে যাচ্ছে বকুল মিয়া। সে নিজে এ্যাম্বুলেন্স না চালিয়ে তার পুত্র মিল্টন,লিটন,মিলন ও ভাগ্নে স্বপন হররোজ এ্যাম্বুলেন্সটি চালিয়ে আসছে রোগী নিয়ে। হাসপাতালের ছাড়পত্র ছাড়া বহিরাগত রোগী নিয়েও ঢাকা সহ বিভিন্ন হাসপাতালে আনা নেয়া করা হচ্ছে। এ্যাম্বুলেন্সটির তেল ব্যবহার নিয়েও রয়েছে নানা কারসাজি। ড্রাইভার বকুল সরকারী চাকুরীবিধি লঙ্ঘন করে বাড়ি বসে বিলাসী জীবন-যাপন করে আসছে। এমনকি হাসপাতালের বেডও দেখা গেছে তার বাড়িতে! ফোম সহ হাসপাতালের বেড তার নিজ বাড়িতে ব্যবহার হচ্ছে। হাসপাতালের সুত্রগুলো বলছে এর আগে একাধিকবার শতর্ক করা হয়েছে, শোকজ করা হয়েছে এ্যাম্বুলেন্সটির চালক বকুল মিয়া কে। কিন্তু তিনি এসব বিষয়ে পাত্তা দেন না। তবে এসব ব্যাপারে শৈলকুপা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের এ্যাম্বুলেন্স চালক বকুল মিয়া জানান, এখন থেকে তিনিই গাড়ি চালাচ্ছেন, অন্যরা গাড়ি চালাচ্ছেন না। এসব ব্যাপারে প্রশ্ন করা হলে শৈলকুপা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা রাশেদ আল মামুন জানান, বিষয়টি স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বরাবর লিখিত ভাবে জানানো হয়েছে। এ ছাড়া তাকে শোকজ করা হয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media


বঙ্গবন্ধু কাতরকণ্ঠে বলেন, মারাত্মক বিপর্যয়

বঙ্গবন্ধু কাতরকণ্ঠে বলেন, মারাত্মক বিপর্যয়

https://twitter.com/WDeshersangbad

© All rights reserved © 2011 deshersangbad.com/
Design And Developed By Freelancer Zone