মঙ্গলবার, ০২ মার্চ ২০২১, ১১:৩০ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
বরিশাল পুলিশ লাইন্সএ নিহত পুলিশ সদস্যদের স্মৃতিম্ভতে পুস্পার্ঘ্য অর্পন শেখ হাসিনার সুযোগ্য নেতৃত্ব বাংলাদেশকে উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত করেছে: মিজানুর রহমান মিজু রাণীশংকৈলে জাতীয় বীমা দিবসে র‍্যালি ও অলোচনা  গণতন্ত্রের আসল অর্জনই হলো বিরোধিতা করার অধিকার – সুমন  জাতীয় প্রেস ক্লাবে মোমিন মেহেদীকে লাঞ্ছিতর ঘটনায় উদ্বেগ বেরোবি ভিসিকে নিয়ে মন্তব্য করায় শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ পটুয়াখালী এই প্রথম জোড়া লাগানোর শিশুর জন্ম! তানোরে ইউনিয়ন পরিষদের ভবন উদ্বোধন ফেসবুক ইউটিউব টুইটারকে যেসব শর্ত মানতে হবে ভারতে ২০৩০ সালের মধ্যে ঢাকার যানজট মুক্তির স্বপ্নপূরণে যত উদ্যোগ আজ অগ্নিঝরা মার্চের প্রথম দিন রাশিয়া প্রথম হয়েছিল বাংলাদেশের দুই টাকার নোট। অজুহাত দেখিয়ে মে’য়েরা বিয়ের প্রস্তাবে ল’জ্জায় গো’পনে ১০টি কাজ করে তামিমা স’ম্পর্কে এবার চা’ঞ্চল্যকর ত’থ্য দিল তার মেয়ে তুবা নিজেই ছে’লে: “বাবা তুমি তো বলেছিলে পিতৃ ঋণ কোনদিন শোধ হয় না

অসুস্থ খোকাকে নিয়ে মির্জা আব্বাসের আবেগঘন স্ট্যাটাস,নেট দুনিয়ায় ভাইরাল

ক্যান্সারের চিকিৎসার জন্য ২০১৪ সালের ১৪ মে সপরিবারে নিউইয়র্ক চলে যান অবিভক্ত ঢাকা সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র ও বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সাদেক হোসেন খোকা ।

তারপর থেকে চিকিৎসকের পরাম’র্শ অনুযায়ী নিউইয়র্ক সিটির কুইন্সে একটি বাসায় দীর্ঘদিন ধরে থাকছেন বিএনপির এই মুক্তিযোদ্ধা নেতা। গুরুতর অ’সুস্থ। গত সোমবার কিডনি ক্যান্সারে আক্রান্ত খোকার শারীরিক অবস্থার চরম অবনতি ঘটে। তাকে নিউইয়র্কের স্লোয়ান ক্যাটারিং ক্যান্সার সেন্টারে ভর্তি করা হয়।

এরপর স্বাস্থ্যের আরও অবনতি ঘটলে তাকে আইসিইউতে নেয়া হয়। খোকার ছেলে বিএনপির বৈদেশিক বিষয়ক কমিটির সদস্য ইঞ্জিনিয়ার ইশরাক হোসেন বাবার জন্য দোয়া কামনা করে বলেছেন, বাবার শারীরিক অবস্থা ভালো নয়। আপনারা সবাই দোয়া করবেন।

এদিকে, বিএনপির রাজনীতিতে চরম প্রতিদ্বন্দ্বি হিসেবে পরিচিত দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস খোকাকে নিয়ে মঙ্গলবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে এক আবেগীয় পোস্ট দিয়েছেন। বিষয়টি নিয়ে বিএনপির নেতাকর্মীরা ব্যাপক আলোচনা করছেন।

বিএনপি সূত্রে জানা যায়, লাগাতার ওষুধ সেবনের ফলে খোকার মুখে ঘা হয়ে গেছে। তিনি খাবার খেতে পারছিলেন না বিধায় ওই হাসপাতালে ভর্তির পর গত ২৭ অক্টোবর তার ফুসফুসে একটি ছোট অ’স্ত্রোপচার করা হয়। এরপর তাকে চিকিৎসকের পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে হাসপাতালেই। গুরুতর অ’সুস্থ খোকা দেশে ফিরতে চান। বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকুর সঙ্গে টেলিফোন আলাপে দেশে ফেরার আকুতির কথা জানিয়েছেন এই বীর মুক্তিযোদ্ধা।

বিষয়টি নিশ্চিত করে বিএনপি চেয়ারপাসনের মিডিয়া উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খান বলেন, কিডনি ক্যান্সারে আক্রান্ত সাদেক হোসেন খোকার স্বাস্থ্যের অবস্থা মঙ্গলবার থেকে অনেকটাই অবনতি হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসরত বিএনপির এ নেতা ম্যানহাটনে স্লোয়ান ক্যাটারিং ক্যান্সার সেন্টারে অনেক দিন ধরে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

শায়রুল কবির আরো বলেন, হাসপাতালে যাওয়ার আগে খোকা বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকুকে আক্ষেপ করে বলেছেন, জীবনবাজি রেখে মুক্তিযু’দ্ধ করে দেশ স্বাধীন করেছি। দেশের মাটি থেকে বিদায় নিতে পারবো কিনা আল্লাহ জানেন। আমা’র জন্য দোয়া করো।

শায়রুল বলেন, সাদেক হোসেন খোকার সুস্থতা কামনা করে বিএনপির নানা স্তরে দোয়ার আয়োজন করা হচ্ছে। তার পরিবার দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন।

এদিকে, খোকার ছেলে প্রকৌশলী ইশরাক হোসেন জানান, মঙ্গলবার থেকে তার বাবার শারীরিক অবস্থার অনেক অবনতি হয়েছে। তিনি মঙ্গলবার রাতেই বাবাকে দেখতে যুক্তরাষ্ট্রের উদ্দেশে রওনা হয়েছেন।

এক সময়কার বাম ঘরানার রাজনীতিবিদ হলেও বিএনপি প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের বাংলাদেশি জাতীয়তাবাদের আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে বিএনপিতে যোগ দেন খোকা। বিএনপির বর্তমান কমিটির ভাইস চেয়ারম্যানও তিনি। মুক্তিযু’দ্ধের অন্যতম এই সংগঠক ঢাকা সিটি করপোরেশনের মেয়র ছিলেন। ঢাকার মেয়র হয়ে তিনি রাজধানীর বিভিন্ন সড়ক মুক্তিযোদ্ধাদের নামে নামকরণ করেন। বিএনপি ক্ষমতায় থাকাকালে তিনি একাধিকবার মন্ত্রিসভারও সদস্য ছিলেন। ২০১৪ সালের ১৪ মে চিকিৎসার জন্য যুক্তরাষ্ট্রে যান খোকা।

এরপর একাধিক মা’মলায় তার সাজা হওয়ায় পর থেকে তিনি যুক্তরাষ্ট্রেই আছেন। তার বি’রুদ্ধে গ্রে’ফতারি পরোয়ানাও জারি করা আছে। রাজধানীর বনানী সুপার মা’র্কে’টের কার পার্কিংয়ের ইজারা দু’র্নীতির মা’মলায় সাদেক হোসেন খোকাসহ ৪ জনের ১০ বছর বিনাশ্রম কারাদ’ণ্ড হয়। গত বছরের ২৮ নভেম্বর ঢাকা বিভাগীয় স্পেশাল জজ মিজানুর রহমান খান এ রায় ঘোষণা করেন। রায় ঘোষণার সময় খোকাসহ আ’সামিরা আ’দালতে অনুপস্থিত ছিলেন। রায় ঘোষণার পর আ’সামিদের বি’রুদ্ধে গ্রে’ফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়।

এদিকে, খোকাকে নিয়ে মির্জা আব্বাসের আবেগীয় ফেসবুক পোস্ট করেছেন।

মির্জা আব্বাস বলেন, বিএনপির রাজনীতিতে প্রচলিত চোখে চরম প্রতিদ্বন্দ্বি হিসেবে দেখা হয় দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস ও ভাইস চেয়ারম্যান সাদেক হোসেন খোকাকে। দু’জনই বিএনপির পক্ষ থেকে অবিভক্ত ঢাকার মেয়রও ছিলেন।

মির্জা আব্বাস গত মঙ্গলবার ফেসবুকে প্রিয় খোকা সম্বোধন করে লিখেছেন, ‘প্রিয় খোকা এই মাত্র আমি জানতে পারলাম যে তোমা’র শরীর খুব খা’রাপ তুমি হাসপাতালে শয্যাশায়ী। জানার পর থেকে আমা’র মানসিক অবস্থা যে কতটা খা’রাপ এই কথাটুকু কারো সঙ্গে শেয়ার করবো সেই মানুষটা পর্যন্ত আমা’র নেই। তুমি আমি একসঙ্গে রাজনীতি করেছি অনেক স্মৃ’তি আমা’র চোখের সামনে এই মুহুর্তে ভাসছে। তোমা’র আর আমা’র দীর্ঘ এই পথচলায় কেউ কেউ তাদের ব্যক্তি স্বার্থে তোমা’র আর আমা’র মাঝে একটা দুরত্ব তৈরি করে রেখেছিল, তবে তুমি আর আমি কেউই সেই দুরত্ব রয়েছে বলে কখনোই মনে করিনি।

আমি জানিনা, তোমা’র সাথে আমা’র আর দেখা হবে কিনা। আমা’র এই লিখাটি তোমা’র চোখে পরবে কিনা বা তুমি দেখবে কিনা তাও আমি জানিনা, তবে বিশ্বা’স করো তোমা’র শারীরিক অ’সুস্থতার কথা জানার পর থেকেই বুকটা যেনো ভেঙ্গে আসছে। আমি বার বার অশ্রুসিক্ত হচ্ছি। মহান আল্লাহ্ তায়ালার কাছে দুহাত তুলে তোমা’র জন্য এই বিশ্বা’স নিয়ে দোয়া করছি, তিনি অবশ্যই তোমাকে সুস্থ করে আমাদের মাঝে ফিরিয়ে আনবেন।

তুমি আর আমি কাধে কাধ মিলিয়ে, বুকে বুক মিলিয়ে রাজনীতির মাঠে কাজ করবো। নাহয় সেই আগের মতোই স্বার্থপর কোনো মানুষদের জন্য আব্বাস আর খোকা বাইরে বাইরে দুরত্বের সেই অ’ভিনয়টা করে যাবে, আর ভেতরে থাকবে দুজনের প্রতি দুজনের অন্তর নিংরানো ভালবাসা।

আল্লাহ্ তোমা’র সুস্থতা দান করুক।তুমি ফিরে এসো খোকা, তুমি ফিরে এসো।

Please Share This Post in Your Social Media

দেশের সংবাদ নিউজ পোটালের সেকেনটের ভিজিটর

38343333
Users Today : 1610
Users Yesterday : 5054
Views Today : 6157
Who's Online : 30
© All rights reserved © 2011 deshersangbad.com/