শুক্রবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ০৫:১৬ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
পলাশবাড়ী পৌর নর্বিাচনে রর্কেড সংখ্যক ভোটাররে উপস্থতিি হবে ভোট কন্দ্রে গুলোতে এমনটাই দাবী নর্বিাচন বশ্লিষেকদরে পতœীতলায় যুব মহিলালীগের মানববন্ধন অনুষ্ঠিত রাজশাহীর তানোরে আওয়ামী লীগের ১০ জনের প্রার্থী ঘোষণা আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেতে ফরম জমা দিলেন ইসলামপুরের ১১প্রার্থী ধর্ম প্রতিমন্ত্রী ফরিদুল হক খানের আগমন উপলক্ষে ইসলামপুরে সাজ সাজরব জামালপুর ৪ ডিসেম্বর থেকে শত্রæমুক্ত জামালপুরে ভ্যান চালক শিশু সম্পার পরিবার ও তার বাবার চিকিৎসার দায়িত্ব নিলেন প্রধানমন্ত্রী পলাশবাড়ি উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক বিপ্লবকে সাময়িক বহিষ্কার জননেত্রী শেখ হাসিনার সঠিক নেতৃত্বে দেশ আজ মর্যাদাপ‚র্ণ অবস্থানে…..মজনু নলছিটিতে গাড়ি চালককে হত্যার বিচারের দাবিতে মানবন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ তানোর পৌর আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভা ঢাকায় নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনারের বেনাপোল বন্দর পরিদর্শন বিরামপুরে ২১লক্ষ ৪০ হাজার টাকার চেক পেলেন প্রতিবন্ধীরা আসন্ন পৌরসভা নির্বাচনে জনপ্রিয়তার শীর্ষে লিয়াকত আলী সরকার টুটুল রাজশাহীর তানোরে পতিত জমিতে সবজি চাষ

অ্যাটর্নি জেনারেল হয়েও বেতন নিতেন না রফিক-উল হক

প্রখ্যাত আইনজীবী ব্যারিস্টার রফিক-উল হক ছিলেন একজন ব্যতিক্রমী অ্যাটর্নি জেনারেল। তিনি অ্যাটর্নি জেনারেল হিসেবে যে সম্মানী পেতেন তার পুরোটাই রাষ্ট্রীয় কোষাগারে জমা দিতেন। তবে অ্যাটর্নি জেনারেল হিসেবে নিয়োগের প্রথম মাসে তিনি তার সম্মানী থেকে ১ টাকা গ্রহণ করেছিলেন।

এ বিষয়ে শনিবার (২৪ অক্টোবর) দুপুরে ব্যারিস্টার রফিক-উল হকের জুনিয়র ব্যারিস্টার অনিক আর হক ও আইনজীবী শাহ মঞ্জুরুল হক বলেন, ১৯৯০ সালের ৭ এপ্রিল থেকে ১৭ ডিসেম্বর পর্যন্ত রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ আইন কর্মকর্তা অ্যাটর্নি জেনারেল হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন ব্যারিস্টার রফিক-উল হক স্যার। তিনি অ্যাটর্নি জেনারেল হিসেবে নিয়োগ পাওয়ার প্রথম মাসে শুধু তার সম্মানী থেকে ১ টাকা নিয়েছিলেন। এছাড়া অ্যাটর্নি জেনারেল হিসেবে তার বেতনের পুরো টাকাই রাষ্ট্রীয় কোষাগারে দিয়ে দিতেন।

ব্যারিস্টার রফিক-উল হক তার বর্ণাঢ্য জীবনে আইন পেশায় প্রায় ৬০ বছর পার করেছেন। পেশাগত জীবনে তিনি কখনও কোনও রাজনৈতিক দল করেননি। তবে নানা সময়ে রাজনীতিবিদরা তাকে পাশে পেয়েছেন।

বার কাউন্সিলের ভাইস চেয়ারম্যান ও সুপ্রিম কোর্টের জ্যেষ্ঠ আইনজীবী ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন বলেন, ‘তিনি একাধারে নির্লোভ, নীতিবান ও সৎ মানুষ ছিলেন। তিনি অ্যাটর্নি জেনারেল থাকাকালে কোনও বেতন নেননি। অ্যাটর্নি জেনারেল থাকাকালে তিনি নিজেকে সরকার নয়, জনগণের সেবক মনে করতেন। তার মৃত্যুতে আইন অঙ্গনের ইতিহাসে গুরুত্বপূর্ণ এক অধ্যায়ের অবসান ঘটলো।

প্রসঙ্গত, ঢাকার আদ-দ্বীন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার সকালে ‍ব্যারিস্টার রফিক-উল হকের মৃত্যু হয়। তার বয়স হয়েছিল ৮৫ বছর। ফুসফুসে সংক্রমণসহ নানা জটিলতা নিয়ে গত ১৫ অক্টোবর ঢাকার আদ-দ্বীন হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন ব্যারিস্টার রফিক। এর মধ্যে তার স্ট্রোকও হয়েছিল। গত মঙ্গলবার থেকে লাইফ সাপোর্টে ছিলেন তিনি।

রফিক-উল হকের জন্ম ১৯৩৫ সালে কলকাতার সুবর্ণপুর গ্রামে। বাবা মুমিন-উল হক পেশায় ছিলেন চিকিৎসক। মা নূরজাহান বেগম। তার বাল্যকাল কেটেছে কলকাতায়। পড়াশোনা করেছেন চেতলা স্কুলে।

রফিক-উল হক ম্যাট্রিকুলেশন পাস করেন ১৯৫১ সালে। ১৯৫৫ সালে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক এবং ১৯৫৭ সালে দর্শন বিষয়ে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি নেওয়ার পর ১৯৫৮ সালে এলএলবি করেন। এরপর কলকাতা হাই কোর্টে আইন পেশা শুরু করেন রফিকুল হক। ১৯৬২ সালে যুক্তরাজ্য থেকে ব্যারিস্টারি পাস করে তৎকালীন পাকিস্তানের নাগরিক হয়ে চলে আসেন ঢাকায়। ১৯৬৫ সালে হাই কোর্টের আইনজীবী তালিকাভুক্ত হওয়ার পর ১৯৭৩ সালে আপিল বিভাগে জ্যেষ্ঠ আইনজীবী হিসেবে তালিকাভুক্ত হন রফিক-উল হক। ১৯৯০ সালে বাংলাদেশের অ্যাটর্নি জেনারেল করা হয়েছিল তাকে।

সেনা নিয়ন্ত্রিত তত্ত্বাবধায়ক সরকার আমলে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা এবং বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াসহ অনেক রাজনীতিবিদের পক্ষে সুপ্রিম কোর্টে আইনি লড়াই করে আলোচনায় ছিলেন ব্যারিস্টার রফিক।

ব্যারিস্টার রফিক বিভিন্ন সময় ঢাকা, রাজশাহী, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে পরীক্ষকের দায়িত্ব পালন করেছেন। সমাজ ও মানবতার সেবায় তার হাত ছিল সবসময়ই উদারহস্ত। যেখানেই সুযোগ পেয়েছেন হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন সমাজ-মানবতার সেবায়।

১৯৯৫ সালে রফিক-উল হক প্রতিষ্ঠা করেছিলেন সুবর্ণ ক্লিনিক; ঢাকা শিশু হাসপাতাল প্রতিষ্ঠায়ও ভূমিকা ছিল তার। আদ-দ্বীন মেডিকেল কলেজ হাসপাতালসহ ২৫টিরও বেশি সেবামূলক প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে তিনি সরাসরি জড়িত ছিলেন।

Please Share This Post in Your Social Media

দেশের সংবাদ নিউজ পোটালের সেকেনটের ভিজিটর

37915720
Users Today : 5239
Users Yesterday : 12829
Views Today : 18680
Who's Online : 41
© All rights reserved © 2011 deshersangbad.com/
Design & Developed BY Freelancer Zone