শুক্রবার, ০৫ মার্চ ২০২১, ০৪:৪৬ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
আত্রাইয়ে ইরি-বোরো ধান পরিচর্যায় ব্যস্ত কৃষক দেখুন এই ৫ রাশির মেয়েরাই স্ত্রী হিসাবে সবচেয়ে সেরা, বিস্তারিত যে কারণে নিকটাত্মীয় ভাই-বোনদের বিয়ে ঠিক নয়, জেনে রাখা দরকার সুন্দরগঞ্জে জনবল সংকটে স্বাস্থ্য সেবা বিঘিœত ভারতে মিয়ানমারের ১৯ পুলিশের আশ্রয় প্রার্থনা মিয়ানমারের ওপর বাণিজ্যিক নিষেধাজ্ঞা যুক্তরাষ্ট্রের ৬৬০ থানায় একযোগে ৭ মার্চ উদযাপন করবে পুলিশ জাপান থেকে দেশের পথে মেট্রোরেল জেলখানায় ‘প্ল্যান’, প্রিজন ভ্যান থেকে পালালেন আসামি! শুক্রবার ঢাকার যেসব মার্কেট বন্ধ থাকবে ‘দেশেই তৈরি হবে বিলাসবহুল বাস-ট্রাক’ ডিস লাইনের তার নিয়ে শিশু ছাত্রকে পেটালেন মাদ্রাসা শিক্ষক লক্ষ্মীপুরে সড়ক খোঁড়াখুঁড়িতে গ্যাস ও বিটিসিএল লাইন বিচ্ছিন্ন যৌন হয়রানির দায়ে ডিসি অফিস সহকারীর কারাদণ্ড প্রতিবেশী দেশগুলোর সমস্যা আলোচনার মাধ্যমে সমাধান করা উচিত: প্রধানমন্ত্রী

আওয়ামী লীগ নেতার পুকুরে সরকারী ল্যাম্পপোস্ট !

তানোর (রাজশাহী) প্রতিনিধি
রাজশাহী মোহনপুর উপজেলার কেশরহাট পৌরসভার ৮ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর, প্যানেল মেয়র ও মোহনপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি রুস্তম আলীর বিরুদ্ধে ব্যক্তিগত পুকুরে সরকারী ল্যাম্পপোস্ট স্থাপনের অভিযোগ উঠেছে। স্থানীয়রা জানান, আওয়ামী লীগের এই নেতা ক্ষমতার অপব্যবহার করে পৌর এলাকার মরগা বিলের বিভিন্ন পুকুরে (ব্যাক্তিগত মৎস্য খামার) সরকারি বরাদ্দকৃত এসব সোলার প্যানেল ল্যাম্পপোস্ট জ্বালিয়ে মাছ চাষ করছেন।
জানা গেছে, বিগত ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরে টেস্ট রিলিফ (টিআর) কর্মসূচির (২য়পর্যায়) মোহপুর উপজেলার কেশরহাট পৌরসভায় মোট ২৭টি সোলার প্যানেল ল্যাম্পপোস্ট বরাদ্দ করা হয়েছে যার মধ্যে একটি পৌরসভা কার্যালয়ে এবং বাঁকি ২৬টি পৌরসভার বিভিন্ন এলাকার জনবহুল মোড়ে মোড়ে জনসাধারণের চলাচলের সুবিধার জন্য সড়ক আলোকরণে স্থাপন করার কথা বলা হয়েছে তবে এক্ষেত্রে সেটা করা হয়নি। স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের অভিযোগ, আওয়ামী লীগে অনুপ্রবেশকারী এই নেতা ক্ষমতার দাপট ও প্রভাব বিস্তারের মাধ্যমে পৌর নাগরিকগণের অধিকার বঞ্চিত করে ভুয়া নাম ব্যবহার করে সরকারি বরাদ্ধকৃত ৪টি ল্যাম্পপোস্ট মরগা বিলে খননকৃত তার ব্যক্তিগত পুকুরের পাড়ে স্থাপন করেছেন। তারা বলেন, এতে কাউন্সিলর ব্যক্তিগতভাবে লাভবান হলেও এসব কারণে সাধারণ মানুষের মধ্যে আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে নেতিবাচক মনোভাব ফুটে উঠছে এর দায় নিবে কে ?
পৌরবাসীর সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, এসব ল্যাম্পপোস্ট স্থাপন করা হয়েছে আওয়ামী লীগ নেতা রুস্তম আলীর ্যাক্তিসার্থে রাতে পুকুরে মাছ দেখাশোনার কাজে। যা একটি গুরুত্বর অনিয়মের বাস্তব চিত্র। এতে কয়েকটি পৌরসভার কয়েকটি ওয়ার্ডের হাজারো নাগরিক সড়ক আলোকরণ সুবিধা থেকে বঞ্চিত হয়েছে। এদিকে এই অনিয়মের খবর ছড়িয়ে পড়লে এলাকায় ব্যাপক তোলপাড় সৃষ্টি হচ্ছে, উঠেছে সমালোচনার ঝড়, বইছে মূখরুচোক নানা গুঞ্জন। নাম প্রকাশ না করার শর্তে এলাকার অনেকেই ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, যেহেতু এটা জনগণের সম্পদ সেহেতু এটা পুন:প্রতিস্থাপন করে জনগণকে ফিরিয়ে দিতে হবে আমরা এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।
এদিকে সরকারি বরাদ্দে প্রভাব বিস্তার করে কাউন্সিলরের পুকুরে ল্যাম্পপোস্ট স্থাপন করার বিষয় পর্যবেক্ষণ করে পুন:পতিস্থাপন ও কঠোর ব্যাবস্থা গ্রহনে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের নির্দেশ দিয়েছেন স্থানীয় সাংসদ আয়েন উদ্দিন। কিšত্ত দীর্ঘদিন অতিবাহিত হলেও সাংসদের নির্দেশনা কার্যকর করা হয়নি।
এবিষয়ে জানতে চাইলে কেশরহাট পৌর মেয়র শহিদুজ্জামান শহিদ বলেন, বিষয়টি আমি লোকমুখে শুনেছি, একজন কাউন্সিলরের এই ধরনের কাজ করাটা খুবই দু:খজনক। এর সুফোল ভোগ করবে সাধারণ জনগন। আমি ব্যাক্তিগত ভাবে এই ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি। এবিষয়ে মোহনপুর উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা বিপুল কুমার মালাকর বলেন, বরাদ্দ অনুমোদন তালিকা অনুযায়ী বাস্তবায়নের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। তিনি বলেন, কাউন্সিলর রুস্তম আলী যেভাবে বরাদ্দ নিয়েছেন আমরা সে ভাবেই বাস্তবায়ন করেছি এখানে কোন অনিয়ম হয়নি বলে তিনি জানান। এবিষয়ে প্রকল্প বাস্তবায়নকারী প্রতিষ্ঠান আভা ডেভেলপমেন্ট সোসাইটি কো-অর্ডিনেটর মোবারক হোসেন বলেন, তার প্রতিষ্ঠান ১৯টি উপজেলায় প্রকল্প বাস্তবায়নের কাজ করছে। তবে এমন অনিয়মের অভিযোগ অবশ্যই খতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এবিষয়ে আভা ডেভেলপমেন্ট সোসাইটির মোহনপুর উপজেলা ম্যানেজার আব্দুর রহিম অনিয়মের বিষয়টি শিকার করে বলেন প্রভাব খাটিয়ে ৮ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর নিজের পুকুরে সরকারী ল্যাম্পপোস্ট স্থাপন করেছেন, সেক্ষেত্রে তার কিছুই করার ছিলো না। তবে এতে জনগনের কোন লাভ নেই। যা লাভ সব পুকুর মালিকের। আমরা অর্ডার অনুযায়ী বাস্তবায়ন করেছি মাত্র এতে তাদের কোন দোষ নেই। সরকারী ল্যাম্পপোস্ট ব্যক্তিগত পুকুরে স্থাপনের বিষয়ে আওয়ামী লীগ নেতা ও পৌর কাউন্সিলর রুস্তম আলী বলেন, ইতিপূর্বে তার পুকুরে মাছ চুরির ঘটনা ঘটায় মোহনপুর থানার সাবেক অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মাসুদ পারভেজকে বলে তিনি পুকুরে ল্যাম্পপোস্ট স্থাপন করেছেন। তার মতে পুকুরের মাছ চুরি রোধে তিনি সরকারি ল্যাম্পপোস্ট ব্যাবহার বৈধ করে নিয়েছেন। #

Please Share This Post in Your Social Media

দেশের সংবাদ নিউজ পোটালের সেকেনটের ভিজিটর

38355669
Users Today : 2312
Users Yesterday : 6146
Views Today : 8910
Who's Online : 28
© All rights reserved © 2011 deshersangbad.com/