সোমবার, ১৭ মে ২০২১, ০৭:৫৯ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস আজ ১৬ কোটি ৩৭ লাখেরও বেশি মানুষের দেহে করোনা শনাক্ত গাজায় একদিনেই ৪২ জন নিহত রাজারহাটে ইউপি চেয়ারম্যান রবীনন্দ্রনাথ কর্মকারের বিরুদ্ধ প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহারের টাকা মারিং কাটিং করে খাওয়ার অভিযোগ। মাগুরায় অসাধু মাংস ব্যবসায়ীদের সিন্ডিকেটে অতিষ্ঠ সাধারণ ক্রেতা যেসব এলাকায় গ্যাস থাকবে না সোমবার পুরো পরিবার শেষ, বাঁচল শুধু পাঁচ মাসের শিশুটি ২৯ মে পর্যন্ত বাড়লো প্রাথমিকের ছুটি নাড়ির টানে ঘরে ফেরা, পদ্মায় ঝরলো ৩১ প্রাণ ইসরাইলি ববর্তার বিরুদ্ধে উত্তাল বিশ্ব বেড়েছে লকডাউন, বন্ধই থাকছে লঞ্চ-ট্রেন-দূরপাল্লার বাস যুক্তরাষ্ট্র সফরে গেলেন বিমান বাহিনীর প্রধান ওআইসি’র বৈঠক জরুরি ভিত্তিতে ফিলিস্তিন ইস্যুর সমাধান চায় বাংলাদেশ ৪ দেশে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ফ্লাইট বাতিল শিগগিরই দেশে আসছে শক্তিশালী ব্যাটারি ও আল্ট্রা স্লিম ডিজাইনের অপো এফ১৯

আজ মেয়র আনিসুল হকের দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকী

নিউজ ডেস্ক : ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) প্রয়াত মেয়র আনিসুল হকের দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকী আজ ৩০ নভেম্বর (শনিবার)। ২০১৭ সালের এই দিনে লন্ডনের ওয়েলিংটন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান আনিসুল হক। ডিএনসিসির মেয়র হিসেবে মাত্র দুই বছর দুই মাস ২৪ দিন দায়িত্ব পালন করেন তিনি।

মানুষের জন্যে কাজ করতে  ইচ্ছাটাই যে সবচেয়ে দরকারি তা প্রমাণ করেছিলেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র আনিসুল হক। সুন্দর করে কথা বলা এই মানুষটি কাজ দিয়েও জয় করেছিলেন ঢাকাবাসীর মন।

প্রবল বাধার মুখেও অটল থেকে তেজগাঁওয়ের সাতরাস্তা সড়কটি অবৈধ দখলমুক্ত করতে পেরেছিলেন আনিসুল হক। প্রশস্ত মনোরম এই সড়কটি বলে দেয় কতটা দৃঢ়চেতা মানুষ ছিলেন তিনি। তবে তিনি প্রয়াত হওয়ার পর মাঝে মাঝেই সড়কটি চলে যায় আগের অবস্থায়।

আনিসুল হকের পরিকল্পনায় করা এই ইউটার্নগুলো যে কতটা কাজের তার প্রমাণ পাচ্ছেন এই সড়ক দিয়ে চলাচলকারী সাধারণ মানুষ। সাতরাস্তা থেকে আব্দুল্লাপুর পর্যন্ত এমন ১২ টি ইউটার্ন করার কথা ছিল। আক্ষেপের বিষয় তার মৃত্যুর পর এখন পর্যন্ত মাত্র তিনটির কাজ শেষ করা সম্ভব হয়েছে।

আনিসুল হক ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র হিসেবে শপথ নিয়েছিলেন ২০১৫ সালের ৬ মে। ২০১৭ সালের আগষ্টে গুরুতর অসুস্থ হয়ে লন্ডনের হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার সাড়ে তিন মাসের মাথায় মারা যান। সব মিলিয়ে মেয়র হিসেবে কাজ করার সুযোগ পেয়েছিলেন মাত্র দুই বছর। এ সময়েই নগরবাসীর মধ্যে বসবাসের প্রায় অযোগ্য হয়ে পড়া রাজধানী নিয়ে বিরাট আশার সঞ্চার করেছিলেন।

যারা তার সঙ্গে কাজ করার সুযোগ পেয়েছিলেন তারা জানেন জনগণের কাজে কতটা আন্তরিক ছিলেন আনিসুল হক। উত্তর সিটির ১১ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর দেওয়ান আব্দুল মান্নান বলেন, আমরা তার সাথে কাজ করে অনেক আনন্দ পেয়েছি। তিনি টিমওয়ার্ক করতেন। কাজকে ভালোবাসতেন।

শুধু কি নগরীর মেয়র হিসেবে। আনিসুল হক যেখানে যে দায়িত্বই পেয়েছেন সেখানেই দেখিয়েছেন তার ক্যারিশমা। নগর পরিকল্পনাবিদ অধ্যাপক নজরুল ইসলাম বলেন, যে ক্ষেত্রেই তিনি তার ভূমিকা রাখার সুযোগ পেয়েছেন সেখানেই তার অসাধারণ নেতুত্বের স্বাক্ষর পেয়েছি। আমরা তার কাছে কৃতজ্ঞ, তিনি যে দৃষ্টান্তগুলো রেখে গেছেন, বর্তমান মেয়ররা আদর্শ পেয়ে গেছেন। তারা এ দৃষ্টান্ত অনুসরণ করবেন, আরও এগিয়ে যাবেন।

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনে আনিসুল হকের উত্তরসূরি বর্তমান মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেন, জনকল্যাণে তিনি যতগুলো প্রজেক্ট নিয়েছেন প্রত্যেকটিকে আমি গুরুত্ব দিয়েছি। আমি মনে করি আমাদের একজন সহকর্মী হিসেবে তিনি যে জনহিতকর কাজগুলো করে গেছেন সেটিকে আমরা মূল্যায়ন করে সেগুলোকে আমরা চালিয়ে যাব।

১৯৫২ সালে নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে জন্ম নেন আনিসুল হক। ২০১৭ সালের ৩০ নভেম্বর ৬৫ বছর বয়সে না ফেরার দেশে চলে যান। অল্প সময়ের কাজেই ঢাকাবাসী একজন ব্যতিক্রমী মেয়র হিসেবে আনিসুল হককে মনে রাখবে বহুদিন।

Please Share This Post in Your Social Media

https://twitter.com/WDeshersangbad


বঙ্গবন্ধু কাতরকণ্ঠে বলেন, মারাত্মক বিপর্যয়

বঙ্গবন্ধু কাতরকণ্ঠে বলেন, মারাত্মক বিপর্যয়

© All rights reserved © 2011 deshersangbad.com/
Design And Developed By Freelancer Zone