সোমবার, ০১ মার্চ ২০২১, ০১:০৭ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
তিন পার্বত্য জেলায় শান্তি আনতে পুলিশ মোতায়েন: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সিক্রেট রেসিপি এমটিবি লাউঞ্জে বিশেষ কর্নার চালু করলো শান্তি-সম্প্রীতি প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে খানসামায় রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের আচরণবিধি স্বাক্ষর লেখক মুশতাক আহমেদের রাষ্ট্রীয় হত্যাকান্ড, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিল দাবিতে সমাবেশ ও বিক্ষোভ শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ স্বল্পোন্নত দেশ থেকে মধ্যম আয়ের দেশে রুপান্তরিত হয়েছে ….নওগাঁয় তথ্যমন্ত্রী আনন্দহীন জন্ম উৎসব কান্না ছাড়া আর কিছু নেই : মোঃ মঞ্জুর হোসেন ঈসা সাপাহারে সূর্যমূখী কিন্ডার গার্টেন স্কুলের শুভ উদ্বোধন আগামীকাল জাতীয় মানবাধিকার সমিতির ২১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী সফল করার আহ্বান আসন্ন বইমেলায় আসছে জাবি শিক্ষার্থীর কবিতার বই যোজনগন্ধা মার্চ ফর ডেমোক্রেসির ৭৪তম দিনে কুড়িগ্রামে হানিফ বাংলাদেশী পত্নীতলায় খিরসীন ইয়াং স্টার’স মিনি ক্রিকেট টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত তানোরে অবৈধ সেচ বাণিজ্যে দিশেহারা কৃষক রৌমারীতে সৌরচালিত  সেঁচ পাম্প স্থাপন বেনাপোলে ভারতীয় গাঁজা সহ যুবক আটক ইবিতে ‘বঙ্গবন্ধু, মুক্তিযুদ্ধ ও বাংলাদেশকে জানো’ শীর্ষক প্রতিযোগিতা

আদালতের বাথরুমে নারীর সঙ্গে আপত্তিকর অবস্থায় পুলিশ কর্মকর্তা

চাঁদপুর জেলা জজ আদালতে কর্মরত পুলিশের সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) আরিফ হোসেনকে এক নারীসহ আটক করা হয়েছে।

আদালতের বাথরুমের ভেতরে অনৈতিক কাজে জড়িত থাকায় আরিফকে হাতেনাতে ধরা হয়। পরে তাকে গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) হাতে তুলে দেয়া হয়েছে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, বুধবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে আরিফ হোসেনকে আপত্তিকর অবস্থায় আটক করেন আদালত ভবনে উপস্থিত লোকজন। বিচারপ্রার্থী এক নারীর সঙ্গে তাকে পাওয়া যায় জেলা জজ আদালতের দোতলার বাথরুমে। চাঁদপুরের হাইমচর উপজেলার মহজমপুর গ্রাম থেকে আগত বিচারপ্রার্থী নারী স্বামীর দায়ের করা দুটি মামলার আসামি। তিনিও একটি মামলা করেছেন স্বামীর বিরুদ্ধে। এসব মামলার কাজে ওই নারী বুধবার আদালতে আসেন। পরে তাকে বাথরুমে পাওয়া যায় পুলিশের সঙ্গে। এরপর তাদের দুজনকে গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) কাছে হস্তান্তর করা হয়।

জানা যায়, পুলিশের এএসআই আরিফ হোসেন জেলা জজ আদালতে কর্মরত। জেলখানা থেকে প্রতিদিন আসামিদের আনা-নেয়ার কাজ তদারকি করেন তিনি। বুধবার নারীসহ এএসআই আরিফকে আটকের ঘটনা জানতে পেরে ডিবির ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নূর হোসেন মামুনের নেতৃত্বে একদল পুলিশ সেখানে উপস্থিত হয়। তারা জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের সহায়তা নিয়ে আটক পুলিশ ও নারীকে নিজেদের হেফাজতে নেন।

এরপর নারীসহ পুলিশকে এসপি কার্যালয়ে নেয়া হয়। আইনি পদক্ষেপের পর নারীকে হস্তান্তর করা হয়েছে পরিবারের কাছে। বিকেলে অভিযুক্ত এএসআই আরিফ হোসেনকে দায়িত্ব থেকে প্রত্যাহার করে পুলিশ লাইনে সংযুক্ত করা হয়েছে।

চাঁদপুরের পুলিশ সুপার মো. মাহবুবুর রহমান বলেন, কারো ব্যক্তিগত অপরাধের দায় পুলিশ বাহিনী নিতে পারে না। তদন্তে পুলিশ সদস্য আরিফ হোসেন দোষী প্রমাণিত হলে তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

অপ্রীতিকর এ ঘটনায় এসপি কার্যালয়ে কর্মরত পরিদর্শক (অপরাধ) নাজমুল হককে প্রধান করে এক সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটিকে সাত কর্মদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে নির্দেশ দিয়েছেন এসপি।

Please Share This Post in Your Social Media

দেশের সংবাদ নিউজ পোটালের সেকেনটের ভিজিটর

38336922
Users Today : 253
Users Yesterday : 0
Views Today : 554
Who's Online : 28
© All rights reserved © 2011 deshersangbad.com/