Home / Uncategorized / আম নিয়ে ছুটল ‘ম্যাংগো স্পেশাল ট্রেন’

আম নিয়ে ছুটল ‘ম্যাংগো স্পেশাল ট্রেন’

রাজশাহী ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে আম নিয়ে ঢাকার দিকে যাত্রা শুরু করেছে ম্যাংগো স্পেশাল ট্রেন।

শুক্রবার বিকেল ৫টায় রাজশাহী রেল স্টেশনে ট্রেনটির উদ্বোধন করেন সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন।

এর আগে বিকেল চারটায় চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে ট্রেনটি রাজশাহীর উদ্দেশে ছেড়ে আসে।

ট্রেনটির উদ্বোধনের সময় পশ্চিম রেলের মহাব্যবস্থাপক (জিএম) মিহির কান্তি গুহ, জেলা প্রশাসক হামিদুল হক, রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার, মহানগর যুবলীগের সভাপতি রমজান আলী, রাজশাহী রেল স্টেশনের ব্যবস্থাপক আব্দুল করিম, রেল শ্রমিক লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

প্রথম দিন চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে ১ হাজার কেজি, রাজশাহীর কাঁকনহাট থেকে ৪০০ কেজি, রাজশাহী রেল স্টেশন থেকে ২ হাজার ৬৯৫ কেজি এবং চারঘাটের সরদহ স্টেশন থেকে ৫০০ কেজি আম উঠেছে ট্রেনে। এছাড়া উদ্বোধনী দিনে রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজনের কাছে উপহার হিসেবে রাজশাহীর কিছু আম পাঠিয়েছেন ।

প্রসঙ্গত, আম সংগ্রহ, পরিবহন ও বাজারজাতকরণ নিয়ে গত ২০ মে রাজশাহী জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে একটি সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সিদ্ধান্ত হয়, আম পরিবহনে চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে ট্রেন চলবে। এর আগে করোনাভাইরাসের উদ্ভূত পরিস্থিতিতে আম, লিচু ও অন্যান্য মৌসুমী ফল বিপণন এবং কৃষিপণ্য বাজারজাতকরণ বিষয়ে গত ১৬ মে ভিডিও কনফারেন্সে চাষি ও ব্যবসায়ীদের সঙ্গে কথা বলেন কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক। সেদিনই ট্রেনে আম পরিবহনের কথা ওঠে। এরপর রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম এ বিষয়ে পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য পশ্চিম রেল কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেন। সে অনুযায়ী ট্রেনে আম পরিবহনের বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে যখন ঢাকা যাবে তখন ট্রেনটির নাম হবে ‘ম্যাংগো স্পেশাল ট্রেন-২’। আর ঢাকা থেকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ ফেরার পথে নাম হবে ‘ম্যাংগো স্পেশাল ট্রেন-১’। ট্রেনটি সপ্তাহে প্রতিদিন চলাচল করবে। প্রতিদিন চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে বিকেল ৪টায় ছেড়ে আসবে। রাজশাহী পৌঁছাবে ৫টা ২০ মিনিটে। এখানে ৩০ মিনিট থেমে ৫টা ৫০ মিনিট মিনিটে ট্রেনটি যাত্রা শুরু করবে। তবে উদ্বোধনী দিনে ট্রেনটি ৫০মিনিট আগেই রাজশাহী থেকে ছেড়ে যায়।

এরপর ট্রেনটি ঢাকায় পৌঁছাবে রাত ১টায়। ঢাকা থেকে ট্রেনটি রাত ২টা ১৫ মিনিটে ছেড়ে আসবে। রাজশাহী পৌঁছাবে সকাল ৮টা ৩৫ মিনিটে। এখানে ২০ মিনিট থেমে ট্রেনটি চাঁপাইনবাবগঞ্জের উদ্দেশে ছেড়ে যাবে। পৌঁছাবে সকাল ১০টা ১৫ মিনিটে। ট্রেনটিতে মোট ছয়টি ওয়াগন থাকবে। প্রতিটি ওয়াগনে ৪৫ হাজার কেজি আম নেয়া যাবে।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে ছেড়ে এসে ট্রেনটি আমনূরা বাইপাস, কাঁকনহাট, রাজশাহী, সরদহ, আড়ানি ও আব্দুলপুর বাইপাস স্টেশনে থামবে। এসব স্থানে আমসহ পার্সেল পণ্য ট্রেনে তোলা হবে। টাঙ্গাইল, মির্জাপুর, কালিয়াকৈর, জয়দেবপুর, টঙ্গি, বিমানবন্দর, ক্যান্টনমেন্ট, তেজগাঁও এবং কমলাপুর স্টেশনে ট্রেনটি থামবে। ফেরার পথে ট্রেনটি তেজগাঁও, টঙ্গি, টাঙ্গাইল, সিরাজগঞ্জ, চাটমোহর এবং রাজশাহী স্টেশনে থামবে।

তবে যাত্রাপথে কোথাও সাধারণ যাত্রী এ ট্রেনে তোলা হবে না। ট্রেনটিতে রাজশাহী স্টেশন থেকে এক কেজি আম ঢাকার বিমানবন্দর, তেজগাঁও বা কমলাপুরে নিতে খরচ পড়বে ১ টাকা ১৮ পয়সা। আর চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে এক কেজি আমের ভাড়া লাগবে ১ টাকা ৩০ পয়সা। নিয়ম অনুযায়ী ট্রেন ছাড়ার আগে যে কেউ তাদের আম এবং মালামাল বুকিং দিতে পারবেন।

নিউজটি লাইক দিন ও আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

About jahir

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

সাহারা খাতুনের মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শোক

স্টাফ রিপোর্টার :: আওয়ামী লীগ সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য, সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুনের ...