বুধবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২১, ০৭:০৩ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
যেকোনো সময় এইচএসসি-সমমান পরীক্ষার ফল প্রকাশ করোনায় আক্রান্ত ১০ কোটি ছাড়াল, সুস্থ্য ৭ কোটি অকালে চলে গেলেন এএসপি তন্বী বাংলাদেশের প্রথম নৌবাহিনীর প্রধান আর নেই নামাজে মোবাইল বেজে উঠলে করণীয় মেসিবিহীন বার্সার জয় আবারও দেশে কমলো করোনায় মৃত্যু অর্থনীতিতে আশাজাগানিয়া ভ্যাকসিন বিএনপির এমপি বানানোর আশ্বাস দিয়ে পপিকে বিয়ের প্রস্তাব বিয়ের পিঁড়িতে বসলেন বরুণ-নাতাশা চট্টগ্রামের প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে তামিমের মাইলফলক টাইগারদের বোলিং তোপে ধুকছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সাইফউদ্দিন-মিরাজের জোড়া আঘাতে বিপর্যস্ত উইন্ডিজ ১১ বছর পর ওয়েস্ট ইন্ডিজকে বাংলাওয়াশ বাংলাওয়াশের দিনে টাইগারভক্তদের জন্য বড় দুঃসংবাদ

এটা আমার গল্প একটু কষ্ট হলেও হাতে 2 মিনিট সময় নিয়ে পড়ুন, দেখুন ভালো লাগবে***

সুন্দরবনের পাশেই একটি গ্রামের এক পরিবারে ৪ জন
লোক ছিল। সেই সময় পরিবারেরই একজন কোথা
থেকে যেন ছোট্ট একটা কচ্ছপ দিয়ে আসে।
ছোট থেকেই কচ্ছপটা সেই পরিবারের সাথে থাকতে
শুরু করে। ছোট থেকেই কচ্ছপটা ঘরেই চলাফেরা
করতো, খাবার খেতো কিন্তু কাউকে কখনই
কামড় বা কস্ট দিত না।
হঠাৎ একদিন কিভাবে যেন কচ্ছপটার কথা চিড়িয়াখানার লোকেরা জানতে পারে।
তারা সিদ্ধান্ত নেয় কচ্ছপটাকে যে কোন মূল্যে চিড়িয়াখানায় আনতে হবে।
চিড়িয়াখানার লোকেরা এসে দেখলো কচ্ছপটার
ওজন ১৬ কেজি ও বয়স ১১ বছর হয়েছে।
চিড়িয়াখানার লোকের কচ্ছপটাকে নিতে চাইলো কিন্তু পরিবারের কেউ কচ্ছপটাকে দিতে রাজি নয়;
তারপরও পরিবারের লোকেরা বেশি জোরও করতে পারলো না; কারণ কচ্ছপটা বন্য প্রাণী; আর বাংলাদেশের বন্যপ্রাণী আইনে কোন
বন্যপ্রাণী বাড়িতে লালন-পালন
করা যায় না।
কচ্ছপটাকে সব থেকে বেশি ভালোবাসতো সেই পরিবারের মা। আর কচ্ছপটাও মায়ের
মতোই তাকে ভালোবাসতো।
যখন কচ্ছপটাকে নিয়ে যাওয়া হয় তখন কচ্ছপটির চোখ দিয়ে অনবরত অশ্রু ঝরছিলো। আর মা বার
বার তার আঁচলে চোখ মুছছিলেন।

Please Share This Post in Your Social Media

দেশের সংবাদ নিউজ পোটালের সেকেনটের ভিজিটর

38197784
Users Today : 704
Users Yesterday : 3747
Views Today : 2539
Who's Online : 26
© All rights reserved © 2011 deshersangbad.com/
Design & Developed BY Freelancer Zone