মঙ্গলবার, ১১ অগাস্ট ২০২০, ০৯:১৫ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
দুঃসাহসী ক্ষুদিরামের বলিদান যুব সম্প্রদায়ের কাছে চিরঅমর হয়ে আছে – মোঃআজিজুল হুদা চৌধুরী সুমন  আওয়ামী লীগে কোন্দল নাই আছে নেতৃত্বের প্রতিযোগীতা হঠাৎ স্বর্ণ-রুপার দাম কমতে শুরু করেছে অবৈধ স্থাপনা ২৪ ঘণ্টার মধ্যে দখলমুক্ত করার নির্দেশ সিনহা হত্যাকাণ্ডের পর ‘ডাকাত’ বলে প্রচার করেছিল এরা এএসআইকে চড় মারার ঘটনায় সেই ওসি প্রত্যাহার আগস্টেই ২ আসনের নির্বাচন তফসিল ঘোষণা পাঠাওয়ের ফাহিমের খুনি হাসপিলের সঙ্গে ‘রহস্যময়’ তরুণী (ভিডিও) মেজর সিনহা হত্যায় আরও ৩ জন গ্রেফতার টানা ৭ ঘণ্টা বৃষ্টিতে ভিজে মানুষের জীবন বাঁচালেন এক নারী লেবানন সরকারের পদত্যাগ পত্র গ্রহন করেছেন প্রেসিডেন্ট আউন পুলিশের চাকরি ছিল ওসি প্রদীপের কাছে ‘আলাদিনের চেরাগ’ বেকিং নিউজ…পরিচয় মিলেছে প্রদীপের সেই আইনি পরামর্শদাতার ভারতে একদিনে আক্রান্ত ৫৩ হাজারের বেশি করোনাভাইরাস দেশে একদিনে ৩৩ মৃত্যু, আক্রান্ত ২৯৯৬

করোনায় আক্রান্ত নারী চিকিৎসকের আক্ষেপ

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের সেবা দিতে গিয়ে নিজেই করোনায় আক্রান্ত হয়ে বাড়িতে চিকিৎসাধীন আছেন নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার রামপুর ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রের নারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার কাউছার জাহান মনি। করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর তার বাড়িতে খাবার পানি সংগ্রহে নিয়োজিত গৃহপরিচারিকা এখন আর তার ঘরে (ডা. মনি) পানি দিতে আসে না। কারণ করোনা সংক্রমণের আশঙ্কায় প্রতিবেশিরা তাদের বাড়িতে খাবার পানি সরবরাহ করতে নিষেধ করেছেন। এতে পানির সংকটে পড়ে তার পরিবার।

তাই কিংকর্তব্যবিমুঢ় হয়ে ও আক্ষেপ প্রকাশ করে গত ৩ জুলাই নিজ ফেসবুক আইডিতে এক স্ট্যাটাস দিয়েছেন ড. মনি। এতে প্রশাসনসহ সচেতন মহলে টনক নড়েছে। পূর্বপশ্চিমের পাঠকদের জন্য তার স্ট্যাটাসটি তুলে ধরা হলো-

‘এক কলসি পানির দাম কত…..!!!

এই মুহুর্তে মেলা দামি জিনিস এই এক কলসি বিশুদ্ধ খাবার পানি। পানি শেষ হতে লাগলে টেনশানে মাথা খারাপ হয়ে যায়, পানি এনে দেবে কে??? আমার কাজের সাহায্যকারিনী প্রতিদিন পাশের বাড়ি থেকে পানি এনে দিত, এখন তাকে ফোন দিলেও ধরেনা। বহুবার ফোন দেওয়ার পর সে ফোন ধরে কাঁদো কাঁদো হয়ে বলে, আপা সন্ধ্যায় লুকায়া পানি এনে বাসার নিচে রেখে যাব। আমাদের পানি এনে দেয় বলে তাকে নাকি বাড়ির লোক আর পাড়াপ্রতিবেশী হেনস্তা করছে আর মারধরের হুমকিধামকি দিচ্ছে…. ওফ… কি ভয়ানক অবস্থা। প্রিয় ভাই বোন, পাড়াপ্রতিবেশী আমি কভিড-১৯ কে ভালোবেসে নিমন্ত্রণ জানিয়ে শরীরে নিয়ে আসিনি, আপনাদেরই কেউ অসুস্থ অবস্থায় সেবা নিতে এসে আমাকে দিয়ে গেছেন। অফিস টাইম শেষ হওয়ার পরও, পিপিই খুলে ফেলার পরও আবদার করে আপনারা পাড়া-প্রতিবেশীরাই আসেন সেবা নিতে। হাজারবার বলার পরও মাস্ক না পরে কোন স্বাস্থ্যবিধি না মেনে দাঁত কেলাতে কেলাতে আল্লাহর দোহায় দিয়ে আপনারাই রোগে-শোকে আসেন। কেউ বলতে পারবেন কোনদিন কাউকে ফিরিয়ে দিয়েছি????? শোনেন এই দুনিয়ায় সবকিছু ফেরত আসে। আল্লাহর দয়ায় যদি সুস্থ হয়ে আবার ফিরে আসি আমি কিন্তু আবারও আপনাদের সেবা দেব। সেটা সময়ে অসময়ে যখনই হোক না কেন। পরিশেষে এভাবে বলার জন্য কেউ যদি কষ্ট পান মাফ করে দিয়েন। কোনও অভিযোগও নেই শুধু এইটুকু বলি কষ্ট পেয়েছি ভীষণ।’

এদিকে স্ট্যাটাসটি নজরে পড়ে সাবেক ছাত্রলীগ নেতা নুরুল করিম জুয়েলের। তিনি আমেরিকায় অবস্থান করলেও তার ছোট ভাইকে দিয়ে ড. মনির বাড়িতে বিভিন্ন ধরনের পানীয় ও ফলমূল পাঠিয়েছেন। একই সময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফয়সাল আহমেদ, সহকারী কমিশনার (ভূমি) সুপ্রভাত চাকমা, উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা মোহাম্মদ সেলিম, কোম্পানীগঞ্জ থানার ওসি আরিফুর রহমান, ওসি (তদন্ত) রবিউল হক ড. মনির বাড়িতে ছুটে যান। তারাও বিভিন্ন ধরনের পানীয়, ফলমূল তার হাতে তুলে দেন। এসময় তার স্বাস্থ্যসহ সার্বিক বিষয়ে খোঁজ-খবর নিয়েছেন তারা।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2017 deshersangbad.com/
Design & Developed BY Freelancer Zone