মঙ্গলবার, ০২ মার্চ ২০২১, ০৭:৩০ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
তানোরে কেমিস্ট কোম্পানীর মাঠ দিবস পটুয়াখালীতে জেলা পুলিশ সুপার (পিপিএম) এর বিদায় উপলক্ষে  জেলা প্রশাসনের আয়োজনে বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত।  মার্চ ফর ডেমোক্রেসির ৭৫তম দিনে ৬০ তম জেলা লালমনিরহাটে হানিফ বাংলাদেশী আগামীকাল যাবেন নীলফামারী বরিশাল পুলিশ লাইন্সএ নিহত পুলিশ সদস্যদের স্মৃতিম্ভতে পুস্পার্ঘ্য অর্পন শেখ হাসিনার সুযোগ্য নেতৃত্ব বাংলাদেশকে উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত করেছে: মিজানুর রহমান মিজু রাণীশংকৈলে জাতীয় বীমা দিবসে র‍্যালি ও অলোচনা  গণতন্ত্রের আসল অর্জনই হলো বিরোধিতা করার অধিকার – সুমন  জাতীয় প্রেস ক্লাবে মোমিন মেহেদীকে লাঞ্ছিতর ঘটনায় উদ্বেগ বেরোবি ভিসিকে নিয়ে মন্তব্য করায় শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ পটুয়াখালী এই প্রথম জোড়া লাগানোর শিশুর জন্ম! তানোরে ইউনিয়ন পরিষদের ভবন উদ্বোধন ফেসবুক ইউটিউব টুইটারকে যেসব শর্ত মানতে হবে ভারতে ২০৩০ সালের মধ্যে ঢাকার যানজট মুক্তির স্বপ্নপূরণে যত উদ্যোগ আজ অগ্নিঝরা মার্চের প্রথম দিন রাশিয়া প্রথম হয়েছিল বাংলাদেশের দুই টাকার নোট।

কীর্তনখোলায় মুখোমুখি সংঘর্ষে কার্গোডুবি উদ্ধার হচ্ছেনা কীর্তনখোলায় নিমজ্জিত কার্গো

 

মনির হোসেন. বরিশাল \ কীর্তনখোলা নদীতে একটি যাত্রীবাহী লঞ্চ ও সিমেন্ট তৈরির উপাদানবাহী (ক্লিংকর) কার্গোর মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়েছে। এতে চট্টগ্রাম থেকে এ্যাংকর সিমেন্টের ১২’শ মেট্টিক টন ক্লিংকর বহন করা এমভি হাজী মোঃ দুদু মিয়া নামের কার্গোটি নদীতে নিমজ্জিত হয়ে যায়। এছাড়া এমভি শাহরুখ-২ নামের লঞ্চটির সামনের তলা ফেঁটে গেছে। শনিবার দিবাগত রাত সাড়ে দশটার দিকে বরিশাল নদীবন্দর সংলগ্ন কীর্তনখোলায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।
জানা গেছে, শনিবার রাতে শাহরুখ-২ নামের লঞ্চটি যাত্রী নিয়ে বরগুনা থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে যাচ্ছিল। এসময় নদীবন্দর এলাকায় বিপরীত দিক থেকে আসা এমভি হাজী মোঃ দুদু মিয়া নামের কার্গোটির সাথে লঞ্চটির মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। ঘটনার পরপরই কার্গোটি নদীতে ডুবে যায়। অন্যদিকে লঞ্চটির সামনের দিকের তলা ফেঁটে যাওয়ার পর চরকাউয়া খেয়াঘাট সংলগ্ন এলাকায় নোঙর করে নিরাপত্তার স্বার্থে যাত্রীদের নামিয়ে দেয়া হয়। ঘটনার পরপরই নৌ-পুলিশ, বিআইডব্লিউটিএ, কোস্টগার্ডের সদস্য ও সিটি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ ঘটনাস্থলে পৌঁছে লঞ্চের যাত্রীদের নিরাপদে নামিয়ে আনেন।
শাহারুখ খান লঞ্চের সুপারভাইজর সেলিম হোসেন মারুফ বলেন, তারা টার্নিং করার সময় কার্গোটির চালক ঘুরিয়ে দেয়ায় দুর্ঘটনা ঘটেছে। তবে লঞ্চের ভুলের কারণেই এ দুর্ঘটনা ঘটেছে বলে দাবি করেন, এ্যাংকর সিমেন্টের জিএম আনসার আলী হাওলাদার।
বরিশাল নদী বন্দরের কর্মকর্তা আজমল হুদা মিঠু সরকার জানান, লঞ্চের যাত্রীদের নিরাপদে উদ্ধার করা হয়েছে। তবে এখন পর্যন্ত নদীতে পরে নিখোঁজ বা হতাহতের কোনো খবর পাওয়া যায়নি। তিনি আরও জানান, শনিবার দিবাগত রাত সোয়া ১২ টার দিকে দুর্ঘটনায় কবলিত ঢাকাগামী যাত্রীবাহি এমভি শাহরুখ-২ লঞ্চের যাত্রীদের এমভি পূবালী-১ নামের অপর একটি লঞ্চে তুলে দেয়া হয়েছে।
বরিশাল সদর নৌ থানার এসআই রেজাউল ইসলাম জানান, নিমজ্জিত কার্গোর ১১ জন আরোহীর কেউ নিঁখোজ হওয়ার খবর পাওয়া যায়নি। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, দুর্ঘটনার সময় কার্গোটি নিয়ম না মেনে নদীর বাম দিক দিয়ে চেঁপে আসছিলো। অপরদিকে নদীতে বাক থাকা শর্তেও লঞ্চটি বেপরোয়া গতিতে যাচ্ছিলো।
খবর পেয়ে তাৎক্ষনিক ঘটনাস্থলে ছুঁটে আসা বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ দুর্ঘটনা কবলিত লঞ্চের যাত্রীদের সাথে কথা বলেন। এসময় তিনি দুর্ঘটনাকবলিত লঞ্চের যাত্রীদের নিরাপত্তাসহ সার্বিক সহায়তা করার জন্য সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেন। মেয়র বলেন, রাতের বেলা যাত্রীবাহি নৌ-রুটে বাল্কহেড কার্গো চলাচলের নিয়ম নেই। তারপরেও কিভাবে তারা চলছে বিষয়টি খতিয়ে দেখার পাশাপাশি দোষীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার জন্য সুপারিশ করা হবে।
উদ্ধার হচ্ছেনা কীর্তনখোলায় নিমজ্জিত কার্গো:
কীর্তনখোলা নদীতে নৌ-দুর্ঘটনায় ডুবে যাওয়া এমভি মোঃ দুদু মিয়া-১ নামের সিমেন্ট তৈরির উপাদান (ক্লিংকর) বোঝাই কার্গোটিকে উদ্ধার করতে এক মাসের বেশি সময় লাগবে। তবে দুর্ঘটনাস্থল নৌ-পথের মূল চ্যানেলে হওয়ায় আপাতত নিমজ্জিত কার্গোটি সরিয়ে তীর্রবতী নিরাপদস্থানে সরিয়ে নেয়ার কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে। এর মধ্যদিয়ে চ্যানেলটি নৌ-চলাচলের জন্য সচল ও নিরাপদ থাকবে।
রবিবার দুপুরে কীর্তনখোলা নদীতে দুর্ঘটনা কবলিত নৌ-যান দুইটি পরিদর্শন শেষে এ কথা বলেছেন-বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান কমডোর মোহাম্মদ মাহাবুব-উল ইসলাম। তিনি আরও জানান, নৌ-দুর্ঘটনার পরপরই লঞ্চের যাত্রী ও কার্গোর ক্রুদের নিরাপদে উদ্ধার করা হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত লঞ্চটিকে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেয়া হয়েছে। ডুবে যাওয়া কার্গোটি উদ্ধারের জন্য বিআইডব্লিউটিএ’র উদ্ধারকারী জাহাজ নির্ভীককে ঘটনাস্থলে আনা হয়েছে এবং কার্গোটিকে শনাক্ত করে নিশান ও লাইট বসানো হয়েছে। যাতে অন্য কোনো নৌ-যান নতুন করে দুর্ঘটনায় না পরে। তিনি জানান, ডুবে যাওয়া কার্গোটিতে সিমেন্ট তৈরির ১২০০ মেট্রিক টন ক্লিংকর রয়েছে এবং কার্গোটির ওজন ৬০০ মেট্রিক টন। পানিতে নিমজ্জিত হওয়ার পর এর ওজন আরও বৃদ্ধি পেয়েছে। কিন্তু উদ্ধারকারী জাহাজ নির্ভীকের উত্তোলন ক্ষমতা ২৫০ মেট্রিক টন। এরকম দুইটি জাহাজ বিআইডব্লিউটিএ’র থাকলেও তা দিয়ে কার্গোটি উদ্ধার করা সম্ভব নয়। তাই বিকল্প ব্যবস্থায় কর্গোটি উদ্ধার করতে হবে। এছাড়া কার্গোর মালিক পক্ষের সাথে কথা বলে কার্গোর ভিতরে থাকা ক্লিংকরগুলো বিকল্প ব্যবস্থায় অপসারণ করা হবে।
এর আগে কীর্তনখোলা নদীতে যাত্রীবাহী লঞ্চ ও মালবাহী কার্গোর মুখোমুখি সংঘর্ষের ঘটনায় বিআইডব্লিউটিএ’র নৌ-নিরাপত্তা ও ট্রাফিক ব্যবস্থা বিভাগের যুগ্ম পরিচালক মোঃ সাইফুল ইসলামকে প্রধান করে পাঁচ সদস্যর তদন্ত কমিটি গঠণ করা হয়েছে। কমিটিকে আগামী সাত কর্মদিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে। কমিটি তদন্তের মাধ্যমে দুর্ঘটনার কারণ খতিয়ে দেখবে।
উল্লেখ্য, শনিবার দিবাগত রাত সাড়ে দশটার দিকে কীর্তনখোলা নদীতে বরগুনা থেকে ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে আসা যাত্রিবাহী লঞ্চ এমভি শাহরুখ-২ এর সাথে চট্টগ্রাম থেকে আসা এ্যাংকর সিমেন্টের ১২০০ মেট্রিক টন ক্লিংকরবাহী এমভি মোঃ দুদু মিয়া-১ নামের একটি কার্গোর মুখোমুখী সংঘর্ষ হয়। এতে লঞ্চের সামনের অংশের তলা ফেটে ক্ষতিগ্রস্ত হয় এবং সিমেন্ট তৈরির ১২০০ মেট্রিক টন উপাদানসহ (ক্লিংকর) কার্গোটি নদীতে ডুবে যায়।

Please Share This Post in Your Social Media

দেশের সংবাদ নিউজ পোটালের সেকেনটের ভিজিটর

38344019
Users Today : 2296
Users Yesterday : 5054
Views Today : 9800
Who's Online : 27
© All rights reserved © 2011 deshersangbad.com/