বুধবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ১১:৩৫ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
মেয়েটা কী সত্যি খারাপ?আমার চোখ দুটো আমি সরাতে পারছিলাম না অপরাধী ভাব যেনো, এক খুনের মামলার আসামী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত সাত কলেজের পরীক্ষা ১৭ মে পর্যন্ত স্থগিত খ্যাতিমান ব্যাংকার খোন্দকার ইব্রাহিম খালেদ আর নেই প্রতি কিলোমিটারে বাস ভাড়া হবে ২ টাকা ২০ পয়সা নির্ধারণ গেইল-রশিদ খানরা ফিরে গেলেন, অর্থের লোভে সেরা অলরাউন্ডার সাকিব এবার প্রযোজকের বাড়িতে দেখা গেলো বুবলিকে, কারণটা কি মাসুদ রানা সিনেমার নায়িকা কে এই সুন্দরী? জামালপুরে চাঁদাবাজির মামলায় কলেজ অধ্যক্ষ জেল হাজতে আমার বউয়ের দিকে আঙুল তুললে মেনে নেবো না: নাসির মুজিববর্ষে বৃক্ষরোপণের কথা বলে ‘বনবন্ধু’ ইকবালের কোটি টাকার প্রতারণা পটুয়াখালীতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ডিজিটাল ম্যারাথন’ অনুষ্ঠিত।  দেশ বরেণ্য অর্থনীতিবিদ খোন্দকার ইব্রাহিম খালেদের মৃত্যুতে কমিউনিস্ট পার্টি (মার্কসবাদী)’র শোক ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২১ স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উপলক্ষে সংবাদ সম্মেলন: ৫টি লক্ষ্য ঘোষণা স্বাধীনতার ঘোষণাপত্র রাষ্ট্রবিনির্মাণের স্মারক: ১০ এপ্রিলকে ‘প্রজাতন্ত্র দিবস’ ঘোষণা করতে হবে সবুজ আন্দোলন উপদেষ্টা পরিষদে যুক্ত হলেন ৪ বিশিষ্ট নাগরিক

কুবিতে দ্রুতগতির ইন্টারনেট চালুতে পরীক্ষা মূলকেই একাধিক সমস্যা; অসন্তুষ্ট শিক্ষার্থীরা

মাহমুদুল হাসান, কুবি প্রতিনিধি:

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় (কুবি) ক্যাম্পাসে স্থাপন করা দ্রুতগতির ইন্টারনেট (ওয়াই ফাই) এর পরীক্ষা মূলকেই নানান সমস্যা দেখা দিয়েছে এবং এর মান নিয়ে অসন্তোষ বিরাজ করছে শিক্ষার্থীদের মাঝে।

বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন (ইউজিসি) এর প্রজেক্টের অর্থায়নে বাংলাদেশ রিসার্চ এন্ড এডুকেশন নেটওয়ার্ক (বিডিরেন) কুবি ক্যাম্পাসকে ওয়াইফাই এর আওতায় আনার কাজ ‘কাগজে-কলমে’ শেষ করলেও সেই নেটওয়ার্কের স্পিড এবং মান নিয়ে সন্তুষ্ট নয় শিক্ষার্থীদের অনেকেই।

প্রকল্পের আওতায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবন, একাডেমিক ভবনসমূহ, শিক্ষকদের দুইটি ডরমেটরি, হলসমূহ এবং ক্যাফেটেরিয়াকে ওয়াইফাই নেটওয়ার্কের আওতায় আনা হয়। কিন্তু এই ওয়াইফাই এর মান নিয়ে শিক্ষার্থীদের রয়েছে নানা অভিযোগ।

ওয়াইফাই এর স্পিড প্রসঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয়টির শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত হলের আবাসিক শিক্ষার্থী সাইদুল হক বলেন- ” এই ওয়াই ফাই ব্যবস্থা নিয়ে আমি খুবই বিরক্ত। রুমের ভিতরে গেলেই কানেকশান বন্ধ হয়ে যাচ্ছে বার বার। ওয়াই ফাই এর স্পিডও আমরা তেমন পাচ্ছি না। গত দুই দিন ধরে কোন কানেকশনই পাচ্ছিনা। যদিও মাঝে মাঝে কানেকশান পাই নেটে ঢুকার পরেই আবার কানেকশান চলে যাচ্ছে। এতে আমারা যেমন এর সঠিক সুফল পাচ্ছি না বরং আমাদের আরো সময়ের অপচয় হচ্ছে।”

শুধুমাত্র শিক্ষার্থীরাই নয় শিক্ষকদের মাঝেও রয়েছে ওয়াই ফাই নিয়ে অভিযোগ। নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক শিক্ষক বলেন, শিক্ষকদের আবাসিক ডরমেটরিতে ইন্টারনেট সংযোগ খুবই দুর্বল। স্পিড না থাকার পাশাপশি প্রায়শ নেটওয়ার্ক যাওয়া আসার মাঝে থাকে।

ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থী নাঈম আহমেদও প্রায়  একই কথা বলেন- “যেহেতু আমাদের পড়াশোনার জন্য এই ওয়াই ফাই দেয়া তবে আমরা কেন এর সঠিক সুবিধা থেকে বঞ্চিত হচ্ছি বার বার। এই ওয়াই ফাই দেয়ার চেয়ে না দেয়াই দেখছি ভালো ছিলো। আশা করছি ওয়াই ফাই এর বিদ্যমান সমস্যা গুলো কাটিয়ে অচিরেই আমরা ভালো মানের একটা সেবা পাব।”

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইসিটি সেল সূত্রে জানা যায়, ২০১৫ সালে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়সহ মোট ১৯ টি বিশ্ববিদ্যালয়ে ইউজিসির এই প্রকল্প পাস হয়৷ কিন্তু, নানা প্রতিবন্ধকতায় কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রকল্পের কাজ শুরু হয় ২০১৮ সালে। ‘কাগজে-কলমে’ কাজ শেষ হলেও এখনো পর্যন্ত ওয়াইফাই চালু হয়নি পুরোপুরি, চলছে পরীক্ষামূলকভাবে।
এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে এই প্রজেক্টের দায়িত্বে থাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইটি উপদেষ্টা ও কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল (সিএসই) বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মাহমুদুল হাছান বলেন, “দাপ্তরিকভাবে ২০১৮ সালের ৩১ ডিসেম্বর এই প্রকল্পের নেটওয়ার্ক বসানোর কাজ শেষ৷ তবে এখনো কিছু জায়গায় উন্নয়ন বাকি। নেটওয়ার্ক শুধু বসালেই চলে না এর সক্ষমতা পর্যবেক্ষণ করে বিতরণ করতে হয়। তাই প্রকল্পটি এখনো পুরোপুরি চালু করিনি। পরীক্ষামূলকভাবে চালিয়ে যে যে জায়গায় উন্নয়ন প্রয়োজন সেগুলো ঠিক করা হচ্ছে।”
ওয়াই ফাই এর স্পিড নিয়ে শিক্ষার্থীদের অভিযোগের ব্যাপারে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের আইসিটি সেলের কর্মকর্তা সাইদুর রশীদ সাদী বলেন, “এই প্রকল্পে পুরো ক্যাম্পাসে ৪০০ এমবিপিএস ব্যান্ডউইথ সরবরাহ করা হচ্ছে। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয়ের শুধু হলগুলোতেই প্রায় হাজারের উপর শিক্ষার্থীরা থাকেন, ক্যাম্পাসে মোট শিক্ষার্থী প্রায় ছয় হাজার, তারপর শিক্ষক কর্মকর্তা-কর্মচারীরা আছেন সবার মাঝে যখন এই ব্যান্ডউইথ ভাগ হয় তখন স্বাভাবিকভাবেই স্পীড কমে আসে। এক রাউটারে যুক্ত হয়ে কেউ যখন ডাউনলোড করে দেখা যায় তখন তার ডিভাইস একাই অনেক ব্যান্ডউইথ টেনে নেয় ফলে ঐ রাউটারে যুক্ত অন্যরা স্পীড পাননা।”
পাশাপাশি এই কর্মকর্তা পরামর্শ দিয়ে বলেন, সবাইকে একটু মানসিকভাবে সচেতন হতে হবে। কেউ যদি ইউটিউব থেকে বা অন্য ভিডিও ডাউনলোড সাইট থেকে ডাউনলোডে বেশি ব্যান্ডউইথ ব্যবহার না করে বরং ওয়াইফাইটাকে পড়াশোনার কাজে ব্যবহার করে তবে ঐ রাউটারে যুক্ত অন্য সবাই আরেকটু ভাল স্পীড পাবে।
তবে ২০১৫ সালে হাতে নেয়া প্রজেক্ট কেন ২০১৮ তে শুরু হলো এবং এখনো পর্যন্ত পুরোপুরি চালু করা যায়নি এমন প্রশ্নের জবাবে আইটি উপদেষ্টা মাহমুদুল হাছান বলেন, “দেরির জন্য শুধু বিশ্ববিদ্যালয় একা দায়ী নয়। দেরীটা সংশ্লিষ্ট সব পর্যায় থেকেই হয়েছে। ইউজিসি থেকে শুরু করে দাপ্তরিক সকল জায়গাতেই দেরী হয়েছে।”
তিনি আরো বলেন, “প্রকল্পটির সব ডিজাইন ২০১৫ সালে করা কিন্তু ২০১৮ সালে এসে বিশ্ববিদ্যালয়ের অনেক ভবনেই পরিবর্তন এসেছে। আয়তন বেড়েছে। কিন্তু ইউজিসির অনুমোদন একই রয়ে গেছে। ফলে চাইলেও বেশি রাউটার বা অন্যান্য সামগ্রী দেয়া যাচ্ছেনা। তবে আমরা উপাচার্য স্যারের কাছে বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব অর্থায়নে এই খাতে আরো কিছু উন্নায়ন করার প্রস্তাব দেয়ার ব্যাপারে ভাবছি।”
কবে নাগাদ ওয়াইফাই পুরোপুরিভাবে চালু হবে জানতে চাইলে তিনি বলেন, “এটি এখনি বলা যাচ্ছেনা। আমরা এখনো পর্যবেক্ষণ করছি। ইন্টারনেটটি সব জায়গায় একইভাবে স্থিতিশীল হলে পুরোপুরি চালু করা যাবে।”

Please Share This Post in Your Social Media

দেশের সংবাদ নিউজ পোটালের সেকেনটের ভিজিটর

38319382
Users Today : 3411
Users Yesterday : 8043
Views Today : 9290
Who's Online : 30
© All rights reserved © 2011 deshersangbad.com/