বুধবার, ১২ অগাস্ট ২০২০, ০৮:১৮ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
ফেনী প্রেসক্লাবের সভাপতি জসীম মাহমুদ দৈনিক স্টার লাইন’র সহযোগী সম্পাদক করোনার মধ্যেই এক মাসে ১০৭ ধর্ষণ দেশে বাড়ছে ডিভোর্সের সংখ্যা, এগিয়ে নারীরা থানায় নিয়ে যুবলীগ নেতাকে মারধর, হাসপাতালে ভর্তি, ওসি প্রত্যাহার ঘুরে ফিরে ইয়াবা কারবারে সেই বদির নাম রুমিন ফারহানা করোনায় আক্রান্ত শিক্ষা দিবস উপলক্ষে ইবি ছাত্র মৈত্রীর বই পাঠ ও সেরা লেখকপ্রতিযোগিতা এ যেন ‘আয়নাবাজি’, কুমিল্লায় টাকার বিনিময়ে কারাগারে ‘নকল আসামি’ কুমিল্লায় একসাথে ৫ সন্তানের জন্ম দিলেন মা আমি সৎ, দক্ষ ও সজ্জন: স্বাস্থ্যের সাবেক ডিজি তিন সাক্ষী ও চার সহযোগীসহ প্রদীপ ৭ দিনের রিমান্ডে প্রশ্নবিদ্ধ করোনা বুলেটিন বন্ধ : সরকারের তামাশা থেকে জনগণ মুক্তি পেয়েছে ……..আ স ম রব কুষ্টিয়ায় র‌্যাবের অভিযানে গাঁজা সহ দুইজন গ্রেফতার!! গাইবান্ধায় ১১ টি ইউনিটের কমিটির অনুমোদন করলো ছাত্রদল ইসলামপুরে বন্যায় আমন বীজতলা সংকটে হতাশায় কৃষকরা
019825
Users Today : 895
Users Yesterday : 961
Views Today : 1515
Who's Online : 86

কোরবানির জরুরি মাসআলা, যা না জানলেই নয় (পর্ব-১)

কোরবানি একটি গুরুত্বপূর্ণ ইবাদত। এটি আদায় করা ওয়াজিব। সামর্থ্য থাকা সত্তেও যে ব্যক্তি এই ইবাদত পালন করে না তার ব্যাপারে হাদিস শরিফে এসেছে, ‘যার কোরবানির সামর্থ্য রয়েছে কিন্তু কোরবানি করে না সে যেন আমাদের ঈদগাহে না আসে।’ (মুস্তাদরাকে হাকেম, হাদিস : ৩৫১৯; আত্তারগীব ওয়াত্তারহীব ২/১৫৫)।

ইবাদতের মূলকথা হলো আল্লাহ তায়ালার আনুগত্য এবং তাঁর সন্তুষ্টি অর্জন। তাই যেকোনো ইবাদতের পূর্ণতার জন্য দুটি বিষয় জরুরি। ইখলাস তথা একমাত্র আল্লাহর সন্তুষ্টির উদ্দেশ্যে পালন করা এবং শরীয়তের নির্দেশনা মোতাবেক মাসায়েল অনুযায়ী সম্পাদন করা। এ উদ্দেশ্যে এখানে ধারাবাহিকভাবে কোরবানির কিছু জরুরি মাসায়েল উল্লেখ করা হলো। আজ থাকছে প্রথম পর্ব।

মাসআলা-১

কার ওপর কোরবানি ওয়াজিব?

প্রাপ্তবয়স্ক, সুস্থমস্তিষ্ক সম্পন্ন প্রত্যেক মুসলিম নর-নারী, যে ১০ জিলহজ ফজর থেকে ১২ জিলহজ সূর্যাস্ত পর্যন্ত সময়ের মধ্যে প্রয়োজনের অতিরিক্ত নেসাব পরিমাণ সম্পদের মালিক হবে তার ওপর কোরবানি করা ওয়াজিব। টাকা-পয়সা, সোনা-রূপা, অলঙ্কার, বসবাস ও খোরাকির প্রয়োজন আসে না এমন জমি, প্রয়োজন অতিরিক্ত বাড়ি, ব্যবসায়িক পণ্য ও অপ্রয়োজনীয় সব আসবাবপত্র কোরবানির নেসাবের ক্ষেত্রে হিসাবযোগ্য।

আর নিসাব হলো স্বর্ণের ক্ষেত্রে সাড়ে সাত (৭.৫) ভরি, রূপার ক্ষেত্রে সাড়ে বায়ান্ন (৫২.৫) ভরি, টাকা-পয়সা ও অন্যান্য বস্তুর ক্ষেত্রে নিসাব হলো এর মূল্য সাড়ে বায়ান্ন তোলা রূপার মূল্যের সমপরিমাণ হওয়া। আর সোনা বা রূপা কিংবা টাকা-পয়সা এগুলোর কোনো একটি যদি পৃথকভাবে নেসাব পরিমাণ না থাকে, কিন্তু প্রয়োজন অতিরিক্ত একাধিক বস্তু মিলে সাড়ে বায়ান্ন তোলা রূপার মূল্যের সমপরিমাণ হয়ে যায় তাহলেও তার ওপর কোরবানি করা ওয়াজিব। (আলমুহীতুল বুরহানী ৮/৪৫৫; ফাতাওয়া তাতারখানিয়া ১৭/৪০৫)।

মাসআলা-২

নেসাবের মেয়াদ:

কোরবানির নেসাব পুরো বছর থাকা জরুরি নয়; বরং তিন দিনের মধ্যে যেকোনো দিন থাকলেই কোরবানি ওয়াজিব হবে। (বাদায়েউস সানায়ে ৪/১৯৬, রদ্দুল মুহতার ৬/৩১২)।

মাসআলা-৩

কোরবানির সময়:

মোট তিনদিন কোরবানি করা যায়। জিহজের ১০, ১১ ও ১২ তারিখ সূর্যাস্ত পর্যন্ত। তবে সম্ভব হলে জিলহজের ১০ তারিখেই কোরবানি করা উত্তম। (মুয়াত্তা মালেক ১৮৮, বাদায়েউস সানায়ে ৪/১৯৮, ২৩, ফাতাওয়া হিন্দিয়া ৫/২৯৫)।

মাসআলা-৪

নাবালেগের কোরবানি:

নাবালেগ শিশু-কিশোর তদ্রূপ যে সুস্থমস্তিষ্কসম্পন্ন নয়, নেসাবের মালিক হলেও তাদের ওপর কোরবানি ওয়াজিব নয়। অবশ্য তার অভিভাবক নিজ সম্পদ দ্বারা তাদের পক্ষে কোরবানি করলে তা সহিহ হবে। (বাদায়েউস সানায়ে ৪/১৯৬, রদ্দুল মুহতার ৬/৩১৬)।

মাসআলা-৫

মুসাফিরের জন্য কোরবানি:

যে ব্যক্তি কোরবানির দিনগুলোতে মুসাফির থাকবে (অর্থাৎ ৪৮ মাইল বা প্রায় ৭৮ কিলোমিটার দূরে যাওয়ার নিয়তে নিজ এলাকা ত্যাগ করেছে) তার ওপর কোরবানি ওয়াজিব নয়। (ফাতাওয়া কাযীখান ৩/৩৪৪, বাদায়েউস সানায়ে ৪/১৯৫, আদ্দুররুল মুখতার ৬/৩১৫)।

চলবে…

ডেইলি বাংলাদেশ

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2011 deshersangbad.com/
Design & Developed BY Freelancer Zone