মঙ্গলবার, ১১ অগাস্ট ২০২০, ১০:১০ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
প্রথম আলো পত্রিকায় প্রকাশিত “আবুল বারকাতের প্রতিবাদ ও প্রতিবেদকের বক্তব্য” সস্পর্কে আমার বক্তব্য প্রকাশ প্রসঙ্গে পতœীতলায় শ্রীকৃষ্ণের জন্মাষ্টমী উৎসব পালিত বকশীগঞ্জে কিন্ডার গার্টেন শিক্ষকদের মানবেতর জীবনযাপন চাই রাজনৈতিক দুর্বৃত্তায়ন ও দুর্নীতি নির্মূল: টিআইবির আহŸান কুষ্টিয়াতে শিশু শিক্ষার্থীদের জন্য ঘুম কেন জরুরি  ৪৫ তম জাতীয় শোক দিবস পালন উপলক্ষে দুমকিতে  প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত।  বদলগাছী থানার মেধাবী-চৌকস পুলিশ অফিসার এস আই গৌরাঙ্গ মোহন রায় বদলগাছীতে দৃষ্টি প্রতিবন্ধী ছাইদকে ব্যবসায় প্রতিষ্ঠিত করে দিলেন উপজেলা প্রশাসন দিনাজপুরের বিরামপুরে কলেজ ছাত্রী  ধর্ষণে স্বীকার দুঃসাহসী ক্ষুদিরামের বলিদান যুব সম্প্রদায়ের কাছে চিরঅমর হয়ে আছে – মোঃআজিজুল হুদা চৌধুরী সুমন  আওয়ামী লীগে কোন্দল নাই আছে নেতৃত্বের প্রতিযোগীতা হঠাৎ স্বর্ণ-রুপার দাম কমতে শুরু করেছে অবৈধ স্থাপনা ২৪ ঘণ্টার মধ্যে দখলমুক্ত করার নির্দেশ সিনহা হত্যাকাণ্ডের পর ‘ডাকাত’ বলে প্রচার করেছিল এরা এএসআইকে চড় মারার ঘটনায় সেই ওসি প্রত্যাহার

জীবন যুদ্ধে হার মানেননি কচুয়ার যুবক মাজহারুল ইসলাম

নিজস্ব প্রতিবেদক, কচুয়া:
প্রতিদিন এভাবেই হেটে নিজের ছোট্ট দোকানটিতে যান চাঁদপুরের কচুয়া উপজেলার অভয়পাড়া গ্রামের যুবক মাজহারুল ইসলাম। অস্বাভাবিক হলেও এটাই যেন তার প্রতিনিয়ত স্বাভাবিক জীবন। হাত পায়ের স্বাভাবিকতা হারিয়েছেন জন্ম থেকেই। তবুও দমে যাননি। নিজ এলাকায় অভয়পাড়া মোড়ে রাস্তার পাশেই ছোট্ট একটি দোকান দিয়ে করছেন হাতের সুকৌশলে মোবাইল সার্ভিসিং, মোবাইল রিচার্জ ও ইলেক্ট্রনিক্সের যাবতীয় খুঁটিনাটি কাজ।
এই অস্বাভাবিক হাত পা গুলোকে মানিয়ে নিয়েছেন স্বাভাবিক যন্ত্রগুলোর সাথে। শুধু তাই নয়, শারীরিক প্রতিবন্ধী হয়েও কারো কাছে হাত না পেতে তার অদৌম্য ইচ্ছা শক্তিকে কাজে লাগিয়ে সে ইলেক্ট্রনিকস কাজের পাশাপাশি নিখুঁতভাবে করছেন ফটোশপের কাজও। তার এই আঁকাবাঁকা হাতগুলোই এখন পরিবারের একমাত্র চালিকা শক্তি।
তার বাবা দীর্ঘদিন অসুস্থ থাকার পর গত ৮ মে মারা যান। অসচ্ছল সংসারে তিনি এই ছোট্ট দোকানটির উপার্জিত অর্থদিয়ে চালিয়ে নিচ্ছেন কোনরকম। প্রতিবন্ধী হয়েও এখনো মেলেনি কোন প্রতিবন্ধী ভাতা কিংবা অন্যকোন কোন সহায়তা। নিজের কাজ করার ইচ্ছা শক্তি থাকা সত্বেও পর্যাপ্ত যন্ত্রাংশ ও অর্থাভাবে পড়ছেন পিছিয়ে। তাই সরকারি বেসরকারি একটু সহায়তা পেলে তিনি দোকানটির কর্মপ্রক্রিয়া বৃদ্ধির পাশাপাশি মা-বোনকে নিয়ে একটু ভালোভাবে চলতে পারতেন। মাজহারুল ইসলাম মনে করেন, প্রতিবন্ধী হলে কেউ যেনো কারো কাছে হাত না পেতে ভিক্ষাবৃত্তি না করে নিজের ইচ্ছাশক্তিকে কাজে লাগিয়ে কাজ করেন। তাকে কেউ কোন মানবিক সহযোগিতা করতে চাইলে ০১৮৫৯-৪৩১৬৪২ নাম্বারে যোগাযোগ করতে অনুরোধ করেছেন।

মো: মাসুদ রানা

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2017 deshersangbad.com/
Design & Developed BY Freelancer Zone