শনিবার, ১৫ মে ২০২১, ০৫:৩০ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
উগ্র মৌলবাদীচক্রের বিভিন্ন মিডিয়ায় উষ্কানীমূলক, মানহানিকর ও ধর্মীয় বিদ্বেষমুলক বক্তব্য জাতীয় হিন্দু মহিলা মহাজোটের অবস্থান ধর্মঘট মিতু হত্যা: আসামিদের পালানো ঠেকাতে জারি হচ্ছে সতর্কতা বরিশালে বিএনপির পক্ষ থেকে ঈদ সামগ্রী বিতরণ তানোর উপজেলা চেয়ারম্যানের ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় বাংলাদেশ হিন্দু পরিষদের শ্যামনগর উপজেলা শাখার কমিটি গঠন  বঙ্গবন্ধুর পূর্ব বংশধর আল্লাহর  ওলি ছিলেন- ধর্ম প্রতিমন্ত্রী ফরিদুল হক খান দুলাল এমপি প্রেসবিজ্ঞপ্তি -ফিলিস্তিনের হত্যাকান্ডের জন্য জংগী সন্ত্রাসী গোষ্ঠী  হামাস দায়ী- অবিলম্বে ইজরাইল”কে স্বীকৃতি দিন —কমরেড সামাদ  ফিলিস্তিনে ইসরায়েলের হামলার প্রতিবাদে বায়তুল মোকাররমে বিক্ষোভ পিতা-মাতার ভরণ-পোষণ আইন ২০১৩ ও শাস্তি? ১২ বছর ভোগদখলে প্রতিকার না চাইলে তামাদি আইনে জমির মালিক তানোরে শিব নদী পাড়ে বিনোদন প্রেমীদের ভিড় ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন চেয়ারম্যান ইয়াকুব আলী কুড়িগ্রামে ঐক্য যুব ফোরাম ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের উদ্যোগে খাদ্য সামগ্রী ও ঈদের পোষাক বিতরণ বিশ্ব ঐতিহ্য ষাটগম্বুজ মসজিদে ঈদের নামাজ অনুষ্ঠিত ঈদের দিনেও ইসরাইলি বর্বরতা থেকে রেহাই পায়নি ফিলিস্তিনিরা

গাইবান্ধায় একসঙ্গে তিন সন্তানের জন্ম

গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি: গাইবান্ধায় একসঙ্গে তিন সন্তানের মা হয়ে চরম বেকায়দায় পড়েছে শাহিদা বেগম নামে এক দরিদ্র গৃহবধূ। জানা যায়, পলাশবাড়ী উপজেলার মনোহরপুর ইউনিয়নের তালুকঘোড়াবান্ধা গ্রামের কানিপাড়ার নুরুল ইসলামের পুত্র একলাছ মিয়া প্রায় ১২ বছর আগে একই উপজেলার পবনাপুর ইউনিয়নের বরকাতপুর গ্রামের মধ্যপাড়ার আজহার আলীর মেয়ে শাহিদা বেগমকে বিয়ে করেন। একলাছ বলেন গত ১৬ অক্টোবর তার স্ত্রী শাহিদা বেগমের প্রসবব্যথা শুরু হলে বাড়িতেই এক ছেলে সন্তানের জন্ম হয়। এ সময় শাহিদা অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে গাইবান্ধা ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়। পরীক্ষা-নিরীক্ষা ও আলট্রাসনো করার পর চিকিৎসক তার গর্ভে আরো দুই সন্তানের অস্থিত্ব খুঁজে পান। পরে ওই রাতেই সিজারিয়ান অপারেশনের মাধ্যমে শাহিদার দুই কন্যা সন্তানের জন্ম হয়। গত ২৪ অক্টোবর বৃহ¯পতিবার তিন সন্তানকে নিয়ে ক্লিনিক থেকে বাড়ি ফেরেন শাহিদা বেগম। মা ও সন্তানেরা বর্তমানে সুস্থ আছে। এখলাছ মিয়া দিনমজুরের পাশাপাশি মাঝে মধ্যে ভাড়ায় রিক্সা চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করেন। অভাব-অনটনের সংসারে ৩ সন্তান জন্মগ্রহণ করায় বিপাকে পড়েছে দিনমজুর বাবা একলাছ। অর্থাভাবে তাদের সঠিক ভরণপোষণ করতে পারছে না হতদরিদ্র পরিবারটি। তাছাড়াও প্রতিদিন বাচ্চাদের দুধের পেছনে ৬৫০ টাকা খরচ হচ্ছে, যা জোগান দেয়া বাবার পক্ষে সম্ভব হচ্ছে না। দরিদ্র পরিবারটি নবজাতকদের বাঁচিয়ে রাখতে সরকারি-বেসরকারি সংস্থা, ও হৃদয়বান মানুষের সাহায্য কামনা করেছে।

Please Share This Post in Your Social Media


বঙ্গবন্ধু কাতরকণ্ঠে বলেন, মারাত্মক বিপর্যয়

বঙ্গবন্ধু কাতরকণ্ঠে বলেন, মারাত্মক বিপর্যয়

https://twitter.com/WDeshersangbad

© All rights reserved © 2011 deshersangbad.com/
Design And Developed By Freelancer Zone