সোমবার, ০১ মার্চ ২০২১, ১০:০২ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
সুইস ব্যাংকে কার কত টাকা, তালিকা চেয়েছেন হাইকোর্ট প্রাক প্রাথমিক ছাড়া সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ৩০ মার্চ খোলা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুললে কোন শ্রেণির কতদিন ক্লাস? তারেক রহমানের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা কুড়িগ্রামে বর্ণিল কর্মসূচির মধ্য দিয়ে এসএসসি ব্যাচ ‘৮৬র সম্মেলন সমাপ্ত সুন্দরবন ম্যানগ্রোভ  পক্ষ থেকে ৫ গুনি ব্যক্তিকে স্বঃস্বঃ কর্মক্ষেত্রে বিশেষ অবদানের জন্য সম্মাননা প্রদান পাবনায় ডিসিআই-আরএসসি ও ফারাজ হোসেন ফাউন্ডেশন’র যৌথ উদ্যোগে ‘বিনামূল্যে চক্ষু শিবির’ অনুষ্ঠিত গাইবান্ধায় শহরে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান পৌরসভা নির্বাচন; মহেশপুর বিজিবি কর্মকর্তার অসৌজন্যমুলক আচরণে ঝিনাইদহের হেবিওয়েট সাংবাদিকদের চরম ক্ষোভ, নিন্দা ও প্রতিবাদ জ্ঞাপন ১৮ মাসের কাজ শেষে ৫ বছরেও হস্তান্তর হয়নি ঝিনাইদহ আড়াই’শ বেড হাসপাতাল ভবন! ঝিনাইদহ মাগুরা সড়কে মটরসাইকেলের ধাক্কায় রেস্টুরেন্ট ব্যাবসায়ী নিহত তিন পার্বত্য জেলায় শান্তি আনতে পুলিশ মোতায়েন: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সিক্রেট রেসিপি এমটিবি লাউঞ্জে বিশেষ কর্নার চালু করলো শান্তি-সম্প্রীতি প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে খানসামায় রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের আচরণবিধি স্বাক্ষর লেখক মুশতাক আহমেদের রাষ্ট্রীয় হত্যাকান্ড, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিল দাবিতে সমাবেশ ও বিক্ষোভ

চিরিরবন্দরে ২৮৯ গরিব পরিবার পেল নতুন বাড়ি

মোহাম্মাদ মানিক হোসেন চিরিরবন্দর(দিনাজপুর) প্রতিনিধি:
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আশ্রয়ণ প্রকল্প-২ এর অধীনে ‘জমি আছে ঘর নেই’ এমন ২ শত ৮৯ পরিবারের মাথা গোঁজার ঠাঁই হল দিনাজপুরের চিরিরবন্দরে।
এসব পরিবার কয়েকমাস আগেই জরাজীর্ণ ও ঝপড়ি ঘরে বসবাস করেছিল। স্বামী পরিত্যক্তা, প্রতিবন্ধী, অসহায় ও হতদরিদ্র, বয়োবৃদ্ধসহ দারিদ্র্যসীমার নিচে বাস করা এসব পরিবার প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া নতুন ঘরে পেয়ে এখন মহাখুশি।
এজন্য এসব পরিবারের সদস্যরা দুই হাত তুলে প্রধানমন্ত্রীর জন্য নামাজ পড়েও দোয়া করছেন। পরিবারগুলোর সদস্যরা বলছেন, দেশ পরিচালনার ভার শেখ হাসিনার হাতে রয়েছে বলেই আজ তারা বাড়ি পেয়েছেন।
চিরিরবন্দর উপজেলা প্রশাসন সূত্র জানায়, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আশ্রয়ণ প্রকল্প-২ এর অধীনে সারাদেশে ‘যাদের জমি আছে ঘর নেই’ এমন পরিবারগুলোকে টিনশেড ঘর তৈরি করে দিচ্ছেন। এরই অংশ হিসেবে দুটি ধাপে দিনাজপুরের চিরিরবন্দরে উপজেলায় ২৮৯ পরিবার পেয়েছে নতুন ঘর। আর এই দুটি ধাপে ২৮৯ ঘরের নির্মান কাজের সবকিছু সম্পূন্ন করেছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মো: গোলাম রব্বানী।
সরেজমিন গত কয়েকদিন ধরে উপকারভোগী পরিবারগুলোর সদস্যের সঙ্গে কথা হয় এই প্রতিবেদকের। এ সময় তারা সরকারের নেওয়া এই যুগান্তকারী পদক্ষেপকে সাধুবাদ জানিয়েছেন। তাঁরা বলেছেন, আগেকার সরকারগুলো গরিব-দুঃখী ও মেহনতী মানুষের কোনো চিন্তাই করেননি। সেখানে বর্তমান সরকার যে দারিদ্র্যসীমার নিচে বাস করা পরিবারগুলোর দুঃখমোচন এবং মাথা গোঁজার ঠাই করে দিয়েছেন সেজন্য তারা শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞ।
তাদের কাছে ঘরের ব্যাপারে জানতে চাইলে উপকারভোগী পরিবারগুলোর জানান, এই ঘর পাওয়ার পেছনে জনপ্রতিনিধি বা সরকারি কোনো কর্মকর্তাকে এক টাকাও উৎকোচ দিতে হয়নি।
উপজেলার নশরতপুর ইউনিয়নের বয়োবৃদ্ধ রমজান আলী বলেন, ‘পৈতৃক ভিটে-বাড়ির সিংহভাগই চলে গেছে ছেলেদের দখলে। বাকি তিন কড়া (এক শতাংশ) যে জায়গাটুকুন অবশিষ্ট ছিল সেখানে ঝাপড়ি ঘর বেঁধে স্ত্রী আলেয়াকে নিয়ে থাকতেন কষ্টেসৃষ্টে। এই অবস্থায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেওয়া টিনশেডের একটি ঘরই যেন আমাদের দিলো নতুন জীবন। বর্তমানে এই ঘরে সুখেই দিন কাটাচ্ছি আমরা।’ জীবনের শেষসময়ে এসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছ থেকে নতুন ঘর পেয়ে আমরা মহাখুশি। এজন্য শেখ হাসিনার কাছে আমরা কৃতজ্ঞ।
চিরিরবন্দর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মো: গোলাম রব্বানী বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আশ্রয়ণ প্রকল্প-২ এর অধীনে প্রথম ও দিত্বীয় ধাপে চিরিরবন্দর উপজেলায় ১২টি ইউনিয়নে ২৮৯ পরিবার পেয়েছে টিনশেডের বাড়ি। ‘যাদের জমি আছে ঘর নেই, এমন পরিবারগুলোকে যাচাই-বাছাই করে তালিকাভুক্ত করা হয়। এরপর তৈরি করে দেওয়া হয় বাড়িগুলো।’
চিরিরবন্দর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক অধ্যক্ষ আহসানুল হক মুকুল বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ রাষ্ট্র পরিচালনা করছেন বলেই উন্নয়নের মহীসোপানে বাংলাদেশ। তিনি না হলে দারিদ্র্যসীমার নিচে বাস করা চিরিরবন্দরে ২৮৯ শতাধিক পরিবার এই বাড়ি পেতেন না।’

Please Share This Post in Your Social Media

দেশের সংবাদ নিউজ পোটালের সেকেনটের ভিজিটর

38337573
Users Today : 904
Users Yesterday : 0
Views Today : 4518
Who's Online : 37
© All rights reserved © 2011 deshersangbad.com/