মঙ্গলবার, ২৬ জানুয়ারী ২০২১, ১১:০৯ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
নামাজে মোবাইল বেজে উঠলে করণীয় মেসিবিহীন বার্সার জয় আবারও দেশে কমলো করোনায় মৃত্যু অর্থনীতিতে আশাজাগানিয়া ভ্যাকসিন বিএনপির এমপি বানানোর আশ্বাস দিয়ে পপিকে বিয়ের প্রস্তাব বিয়ের পিঁড়িতে বসলেন বরুণ-নাতাশা চট্টগ্রামের প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে তামিমের মাইলফলক টাইগারদের বোলিং তোপে ধুকছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সাইফউদ্দিন-মিরাজের জোড়া আঘাতে বিপর্যস্ত উইন্ডিজ ১১ বছর পর ওয়েস্ট ইন্ডিজকে বাংলাওয়াশ বাংলাওয়াশের দিনে টাইগারভক্তদের জন্য বড় দুঃসংবাদ ভ্যাকসিন পরীক্ষা শেষে পৌঁছানো হবে জেলাগুলোয় ১৮ মার্চ থেকে বইমেলা প্রশাসনের সহায়তায় অবৈধ পুকুর খনন ! নলছিটির রানাপাশা ইউপি চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী আবু সুফিয়ান হাওলাদার  মাদার তেরেসা গোল্ডেন এ্যওয়াডে পুরস্কারে ভূষিত! 

চীন সীমান্তে আগ্নেয়াস্ত্র ব্যবহারের ‘স্বাধীনতা’ ভারতীয় বাহিনীর

১৯৯৬ ও ২০০৫ সালের দ্বিপাক্ষিক চুক্তি অনুযায়ী প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখার ২ কিলোমিটারের ভেতরে ভারত ও চীনে আগ্নেয়াস্ত্র ব্যবহারের সুযোগ ছিল না। কিন্তু গত ১৫ জুন লাদাখের সীমান্তে গালওয়ান উপত্যকায় দুই দেশের সেনাবাহিনীর সংঘাতে ২০ ভারতীয় নিহতের পর রণনীতিতে বদল এনেছে ভারত। ‘রুল অব এনগেজমেন্ট’ বদলে ফেলেছে তারা। সামরিক বাহিনীর দুই ঊর্ধতন কর্মকর্তার বরাত দিয়ে রোববার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে হিন্দুস্তান টাইমস।

প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখায় মোতায়েন থাকা কমান্ডারদের পরিস্থিতি বিবেচনায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার পূর্ণ স্বাধীনতা দেওয়া হয়েছে। অর্থাৎ নতুন নিয়মে চূড়ান্ত পরিস্থিতিতে আগ্নেয়াস্ত্র ব্যবহার করার ক্ষেত্রে কোনও বাধানিষেধ থাকছে না সামরিক বাহিনীর ওপর। রণনীতি বদলে সায় দিয়েছে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়। শুক্রবার সর্বদলীয় বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিও বলেছিলেন, সীমান্তে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার পূর্ণ স্বাধীনতা দেওয়া হয়েছে সেনাবাহিনীকে।

সামরিক বাহিনীর এক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা হিন্দুস্তান টাইমসকে বলেছে, ‘রুল অব এনগেজমেন্টে সংশোধন আনায় নিয়ন্ত্রণরেখায় আর ভারতীয় কমান্ডারদের হাতবাঁধা থাকবে না। প্রয়োজন অনুযায়ী যে কোনও ব্যবস্থা তারা নিতে পারবেন।’

এদিকে গালওয়ানে সংঘাতের পর এক সপ্তাহ না যেতেই সীমান্তে অস্থিরতা বেড়ে গেছে। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, এখনও গালওয়ানে ভারতীয় ভূখণ্ডের একাংশ দখল করে আছে চীনা সেনারা। এই পরিস্থিতিতে সেখানে নজরদারি বাড়াচ্ছে ভারত। একই সঙ্গে লাদাখ অঞ্চলে বিমানবাহিনীও নজরদারি করছে।

শনিবার বিমান বাহিনীর প্রধান এয়ার চিফ মার্শাল আরকেএস ভাদৌরিয়া বলেছেন, ‘উপযুক্ত জবাব দেওয়ার জন্য আমরা প্রস্তুত। যে কোনও পরিস্থিতির মুখোমুখি হতে তৈরি আমাদের বাহিনী। নিহত সেনাদের আত্মত্যাগ বৃথা যেতে দেবো না।’

Please Share This Post in Your Social Media

দেশের সংবাদ নিউজ পোটালের সেকেনটের ভিজিটর

38194978
Users Today : 1645
Users Yesterday : 7164
Views Today : 6791
Who's Online : 46
© All rights reserved © 2011 deshersangbad.com/
Design & Developed BY Freelancer Zone