বুধবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০২:২২ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
নতুন খবর পর্ন দেখলে সব সময়ই আসক্তি তৈরি হবে…ফক্স নিউজ মাসিক হবার কত দিন আগে বা পড়ে কনডম ছাড়া সেক্স করা নিরাপদ ঠিক কোন সময় সেক্স করা উচিত নয়, আসুন জেনে নিই মিন্নিসহ সব আসামির দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চান রিফাতের বোন গির্জায় আটকে ৩ দিন ধরে কিশোরীকে ধর্ষণ করে ফাদার সুপার ওভারে মুম্বাইকে হারাল বেঙ্গালুরু লঙ্কা সফর স্থগিত, সুখবর পেলো বাংলাদেশ ২৯ ছক্কায় ৪৪৯ রান, ভাঙলো যেসব রেকর্ড কুয়েতের আমির শেখ সাবাহ মারা গেছেন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা ও এইচএসসি পরীক্ষার বিষয়ে কিছুই বলেননি শিক্ষামন্ত্রী হাসু আপাকে জড়িয়ে ধরে শুধু কাঁদতাম সিলেটের ধর্ষকদের ফাঁসি চাই, বাবলাদের রাজনীতি চাই জাতীয় পরিচয়পত্রের যাবতীয় কাজ এখন অনলাইনে প্রভার আরেক ভিডিও, নেট দুনিয়া তোলপাড় এমসি কলেজে ধর্ষণে জড়িতদের সরাসরি ক্রসফায়ারে দিতে বললেন হানিফ

ছাতকে তিন সন্তানের জননীসহ প্রেমিক আটক অতঃপর গভীর রাতে পুলিশ ফাঁড়ি থেকে মুক্ত !!

সেলিম মাহবুব, ছতক(সুনামগঞ্জ)
ছাতকে পর পুরুষের হাত ধরে পালিয়ে যাওয়ার সময় তিন সন্তানের জননী এক গৃহবধূসহ তার লম্পট প্রেমিককে আটক করে জনতা স্থানীয় ইউপি সদস্যের মাধ্যমে পুলিশে সোপর্দ করে। বিষয়টি নিয়ে স্থানীয়দের মাঝে বেশ চাঞ্চল্যেকর সৃষ্টি হয়ে। পরে কোন আইনী ব্যবস্থা না নিয়েই পুলিশ ফাঁড়ি থেকে তাদের ছেড়ে দেয়া হয়। এ নিয়ে সাধারন মানুষের মধ্যে চরম অসন্তোষ বিরাজ করছে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার দোলারবাজার ইউনিয়নের বারোগোপী  গ্রামে। স্থানীয় লোকজন জানান, জগন্নাথপুর উপজেলার বালিকান্দি গ্রামের বকুল মিয়ার স্ত্রী, তিন সন্তানের জননী এ গৃহবধূ গত কয়েকদিন আগে বেড়ানোর জন্য বারোগোপী গ্রামের পিত্রালয়ে আসে বেড়ানোর এক পাকে। বৃহস্পতিবার বিকেলে বালিকান্দি গ্রামের তৈমুছ আলীর পুত্র সাইদুল ইসলামের হাত ধরে একটি সিএনজি যোগে পিত্রালয় ত্যাগ করে এ গৃহবধূ। এ সময় স্থানীয় লোকজনের সন্দেহ হলে ধাওয়া করে জটি গ্রাম এলাকা থেকে তাদের আটক করে স্থানীয় ইউপি সদস্য জমির উদ্দিনের কাছে নিয়ে আসে। এখানে ইউপি সদস্য স্থানীয় লোকজনদের নিয়ে তাদের অনেক বোঝানোর চেষ্টা করেন। কিন্তু অনেক চেষ্টা করেও বিষয়টি সমাধান দিতে না পেরে আইনী ব্যবস্থা নেয়ার জন্য তাদের জাহিদপুর পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে হস্তান্তর করেন ইউপি সদস্য জমির উদ্দিন। ফাঁড়িতে গভীর রাত পযর্ন্ত তাদের আটকে রেখে জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ।  পরে আটককৃতদের বিরুদ্ধে কোন আইনী ব্যবস্থা গ্রহন না করেই গভীর রাতে তাদের ছেড়ে দেয়া হলে হতভম্ব হয়ে পড়েন স্থানীয় লোকজন। ছেড়ে দেয়ার বিষয়টি তারা বাঁকা চোখে দেখছেন। স্থানীয়দের অভিযোগ আর্থিক লেনদেনের মাধ্যমেই গৃহবধূসহ লম্পটকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। ইউপি সদস্য জমির উদ্দিন এ ব্যাপারে জানান, পালানোর সময় স্থানীয় লোকজন তাদের আটক করে তার কাছে নিয়ে আসে। সাইদুল ও গৃহবধূর সাথে আলাপচারিতায় বোঝা গেছে তারা অবৈধ সম্পর্কে আসক্ত। তারা একজন আরেকজনের জন্য দেওয়ানা। যা একটি সামাজিক অপরাধ বলে তিনি মনে করেন। বিষয়টি জটিল ও অপরাধমুলক হওয়ায় আইনী ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য তিনি তাদের পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেছেন। তিনি জানান, গভীর রাতে গয়াছ মিয়া নামের এক জনৈক প্রভাবশালী ব্যক্তি তদন্ত কেন্দ্র থেকে অপরাধিদের ছাড়িয়ে নিয়ে যায়। এখানে প্রভাব ও আর্থিক লেনদেন কাজ করেছে বলে জমির উদ্দিন মেম্বার মনে করেন। ইউপি চেয়ারম্যান সায়েস্থা মিয়া জানান, তিনি শুক্রবারে বিকেলে বিষয়টি জেনেছেন। এর বেশী কিছু তিনি জানেনা। এ ব্যাপারে জাহিদপুর পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ এসআই দিদার জানান, বিষয়টি ছিল পারিবারিক কলহজনিত ঘটনা। গৃহবধূর পারিবারিকভাবেই পরিচিত ছিল সাইদুল। ভুল বোঝাবুঝির কারনে এ ঘটনা ঘটেছে। রাতেই স্বামীর কাছে গৃহবধূকে তুলে দেয়া হয়েছে।##

Please Share This Post in Your Social Media

দেশের সংবাদ নিউজ পোটালের সেকেনটের ভিজিটর

37524567
Users Today : 2978
Users Yesterday : 6367
Views Today : 7954
Who's Online : 42
© All rights reserved © 2011 deshersangbad.com/
Design & Developed BY Freelancer Zone