বৃহস্পতিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২০, ১১:০৮ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
ভ্রমণ বিলাসী মন, বাইকে চড়ে রাজশাহী থেকে টাঙ্গাইল  বহুতলা ভবন থেকে পড়ে সাভারে নির্মাণ শ্রমিকের মৃত‍্যু বাংলাদেশে পরিবেশ সংক্রান্ত বিচার: সৈয়দা রিজওয়ানা হাসান, বেলা ঈদে মিলাদুন্নবী এক অবিস্মরণীয় দিন!! আন্তর্জাতিকভাবে বয়কটের মাধ্যমে ফ্রান্সের ঔদ্ধত্যের সমুচিত জবাব দেয়া হবে -শায়েখে চরমোনাই সেই স্বামী সৌভাগ্যবান যে স্ত্রীর মাঝে এই ৪টি গুণ আছে যে খাবারটি যৌ’ব’ন ধরে রাখে ও নতুন চুল গজায়, দেখে নিন কিভাবে খাবেন স্ত্রী যদি পরকিয়া করে তাহলে হাতেনাতে ধরবেন কিভাবে ! বৌ’দি’দে’র প্রতি যে কারনে ছেলেরা আকর্ষিত হয় জেনে নিন! সাঁথিয়া উপজেলা যুবলীগের সভাপতি টুটুলকে দলীয় পদ থেকে অব্যহতি প্রদান সুস্থ থাকার ১০ সূত্রঃ কনডম ব্যবহারের আগে যে ৫টি বিষয় মাথায় রাখবেন সব দলের ১২ ম্যাচ শেষে পয়েন্ট টেবিল ২০২০ সালে ব্রাজিলের ম্যাচের সময়সূচী, কখন, কোথায় মুক্তিযোদ্ধাদের নামের আগে ‘বীর’ লিখতে হবে, আদেশ জারি

ছাড়পত্র পাওয়ার আগেই রোগীকে ধর্ষণ, সাক্ষী সিসিটিভি

মানিকগঞ্জের সাটুরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নিতে এসে ধর্ষণের শিকার হয়েছেন এক তরুণী। এ ঘটনার কোনো প্রত্যক্ষদর্শী না থাকলেও হাসপাতালের সিসিটিভির ফুটেজই একমাত্র সাক্ষী হতে পারে বলে জানিয়েছেন ভুক্তভোগীর বাবা।

১১ সেপ্টেম্বর রাতে ঘটনাটি ঘটলেও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বিষয়টি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করেছিল। অবশেষে ঘটনাটি জানাজানি হওয়ায় একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে কর্তৃপক্ষ।

ভুক্তভোগী তরুণীর স্বজনরা জানান, ৩ সেপ্টেম্বর জ্বর ও শরীর ব্যথা নিয়ে সাটুরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হন ওই তরুণী। ধীরে ধীরে সুস্থ হয়ে উঠলে তাকে ১২ সেপ্টেম্বর হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র দেয়া হবে বলে আগের রাতে নার্সরা জানান। সেই রাত আনুমানিক ১১টার দিকে হাসপাতালের এক যুবক তাকে বারান্দায় নিয়ে ধর্ষণ করেন। এ সময় অজ্ঞান হয়ে পড়লে তরুণীকে বারান্দায় ফেলে পালিয়ে যান ধর্ষক।

এদিকে, মেয়েকে বেডে না পেয়ে হাসপাতালের বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজি করেন তরুণীর মা। একপর্যায়ে বারান্দায় অজ্ঞান অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখেন। কাছে গিয়ে দেখেন মেয়েটির প্রচুর রক্তক্ষরণ হচ্ছে। তখন তিনি চিৎকার দিয়ে চিকিৎসক ও নার্সদের ডাকতে থাকেন। পরে নার্সরা ওই তরুণীর অবস্থা আশঙ্কাজনক দেখে চিকিৎসককে ডেকে আনেন। পরে চিকিৎসক ভুক্তভোগী তরুণীকে অ্যাম্বুলেন্সে মানিকগঞ্জ ২৫০ শয্যা হাসপাতালে পাঠান।

তরুণীর বাবা বলেন, আমি একজন হতদরিদ্র ভ্যানচালক। হাসপাতালে মহিলা ওয়ার্ডে সিসি ক্যামেরা রয়েছে। ওই ক্যামেরার ফুটেজ দেখলে ধর্ষককে চেনা যাবে। আমি গরিব বলে মেয়ের বিয়ের কথা চিন্তা করে মুখ বুঝে চুপ ছিলাম। এখন এ ঘটনার বিচার চাই।

সাটুরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. মামুনুর রশীদ জানান, ওই ঘটনায় শনিবার শিশু বিশেষজ্ঞ ডা. সাদিককে প্রধান করে সাত সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি করা হয়েছে। দুই কর্মদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে। হাসপাতালের ভেতর এমন ঘটনা যেই ঘটাক, তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Please Share This Post in Your Social Media

দেশের সংবাদ নিউজ পোটালের সেকেনটের ভিজিটর

37703298
Users Today : 7014
Users Yesterday : 4343
Views Today : 18796
Who's Online : 106
© All rights reserved © 2011 deshersangbad.com/
Design & Developed BY Freelancer Zone