রবিবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ১২:২৭ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
চরমোনাই মাহফিল থেকে ফেরার পথে মুসল্লিবাহী ট্রলারডুবি স্ত্রীসহ জাতীয় পঙ্গু হাসপাতালের চিকিৎসকের বিরুদ্ধে মামলা ধানমন্ডিতে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রীর মৃত্যু নিয়ে ধুম্রজাল নিয়ন্ত্রণে এসেছে কারওয়ান বাজারের হাসিনা মার্কেটের আগুন রাত পোহালেই ২৯ পৌরসভায় ভোট রৌমারীতে প্রয়াস নাট্য সংঘের ৬ষ্ঠ প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত পেঁপে চাষে চাষে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে কৃষকের সোনালি স্বপ্ন উলিপুরে ট্রাকের ধাক্কায় শিশু নিহত অবিলম্বে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিল করে সমালোচনা সইবার সৎসাহসের পরিচয় দিন: টিআইবি মার্চ ফর ডেমোক্রেসির ৬২তম দিনে রংপুরে হানিফ বাংলাদেশী আগামীকাল যাবেন কুড়িগ্রামে পটুয়াখালীর দুমকিতে সাংবাদিক বোরহান উদ্দিন হত্যার প্রতিবাদে  মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ।  তথ্য প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে যুব সমাজের মাঝে কুরআনের প্রকৃত শিক্ষা পৌঁছে দিতে হবে। করোনা’র ভ্যাকসিন নিলেন কলাগাছিয়ার চেয়ারম্যান দেলোয়ার প্রধান মাহমুদনগরে প্রায় ৪ কোটি টাকার ব্রীজ নির্মাণ কাজের উদ্বোধণ করলেন মেয়র আইভী যৌন হয়রানির সত্যতা ছয় বছরের জন্য নিষিদ্ধ হতে পারেন রাবি শিক্ষক বিষ্ণু কুমার

তানোরে বিএনপি-আওয়ামী লীগ বিপরীতমুখী

 

আলিফ হোসেন,তানোর

রাজশাহীর তানোর পৌরসভা নির্বাচন ঘিরে বিএনপি ও আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে বিপরিতমুখী অবস্থান বিরাজ করছে। যেখানে ভোটের মাঠে ঐক্যবদ্ধ বিএনপির বিপরীতে অগােছাল আওয়ামী লীগ অনেকটা পিছিয়ে। পৌরসভা নির্বাচন ঘিরে রাজশাহী মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এ্যাডঃ শফিকুল হক মিলনের দিকনির্দেশনায় তানোর উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও মেয়র মিজানুর রহমান মিজানের তৎপরতায় বিএনপির রাজনীতিতে রাতারাতি হয়েছে নাটকিয় পরিবর্তন ও ফিরে এসেছে  প্রাণচান্চল্য। বহুধারায় বিভক্ত নেতাকর্মীরা ঐক্যর প্রয়োজনীয়তা অনুধাবন করে তাদের মধ্য বিরাজমান দীর্ঘদিনের মান-অভিমান ভুলে একে-অপরকে কাছে টানছে এতে তাদের মধ্য বিরাজমান দীর্ঘদিনের ক্ষোভ-অসন্তোষের বরফ গলতে শুরু করেছে। ব্যবসা-বাণিজ্যে, চাওয়া-পাওয়া ও মান-অভিমানসহ নানা কারণে যেসব নেতাকর্মীরা  এতোদিন নিস্ক্রীয় ছিল তারাও মিজানের  আহবানে সাড়া দিয়ে নবউদ্দ্যেমে রাজনীতিতে সক্রিয় হয়ে উঠেছে। স্থানীয় বিএনপির নেতাকর্মীরা বলছে, তারাও মিজানকে পচ্ছন্দ করে না, তবে এই নির্বাচন বিএনপির অস্থিত্ব রক্ষার লড়াই, তাই তারা মিজানকে নয় বিএনপির অস্থিত্ব রক্ষার লড়াইয়ে ধানের শীষ প্রতিককে বিজয়ী করতে চাই।

অন্যদিকে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশা করে বিশিস্ট ব্যবসায়ী ও সমাজ সেবক আবুল বাসার সুজন আওয়ামী লীগকে ঐক্যবদ্ধ করে ভোটের মাঠে সম্ভবনাময় অবস্থান গড়ে তোলেন। এখানে স্থানীয় সাংসদ আলহাজ্ব ওমর ফারুক চৌধুরীর জনপ্রিয়তা ও উপজেলা চেয়ারম্যান লুৎফর হায়দার রশিদ ময়না নির্বাচনী কৌশল কাজে লাগাতে পারলেই নৌকার নিরঙ্কুশ বিজয় সময়ের ব্যাপার ছিল মাত্র। কিন্ত্ত আবুল বাসার সুজনকে বঞ্চিত করে এমপিবিরোধী বলে পরিচিত ইমরুল হককে মনোনয়ন দেয়া হয়। এদিকে স্থানীয় সাংসদের নির্দেশে আওয়ামী লীগের সকল নেতাকর্মী নৌকার বিজয় ঘটাতে ঐক্যবদ্ধভাবে শপথ নেয়। কিন্ত্ত মনোনয়ন পাবার পর ইমরুল হক স্থানীয় সাংসদ, উপজেলা চেয়ারম্যান, সুজন প্রমুখদের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করে এমপিবিরোধীদের সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে তোলে মুলত এখান থেকেই ইমরুলের সঙ্গে নেতাকর্মীদের মতবিরোধের সুত্রপাত হয়েছে, পাশাপাশি রাব্বানী-মামুন মাঠে নামায় ভোটের মাঠে আওয়ামী লীগের গোছানো মাঠ তছনছ হয়েছে বলে মনে করছেন তৃণমুল। তৃণমুলের ভাষ্য, দেশে এমপি নির্ভর রাজনীতিতে এমপিকে উপেক্ষা করে ইমরুল কি বোঝাতে চাই, মেয়র না হতেই এমন মেয়র হলে কি করবেন, তাছাড়া কিছুদিন ভারপ্রাপ্ত মেয়রের দায়িত্ব পেয়ে তিনি কালীগন্জহাট ও গোল্লাপাড়ার মাদকসেবী দুই বখাটে যুবককে নিয়ে রাজত্ব করেছিল বলেও জনশ্রুতি রয়েছে।

এদিকে স্থানীয় রাজনৈতিক বিশ্লেষকগণের অভিমত, বিগত দিনে এমপির (নৌকা) বিপক্ষে, উপজেলা নির্বাচনেও ময়না (নৌকা) বিরোধিতা এমন মুন্ডুমালা পৌরসভা নির্বাচনে নৌকার বিজয় ঠেকাতে বিদ্রোহী প্রার্থী দিয়েছেন রাব্বানী-মামুন গ্রুপ আবার তানোর পৌরসভা নির্বাচনে তারাই নৌকার পক্ষে ভোট চাইছে। তার মানে কি তারা যাকে সমর্থন করবেন তারাই কেবল মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও জননেত্রী শেখ হাসিনার নৌকার লোক আর অন্যরা-? তারা যখন যেমন খুশি তেমন নৌকা নিয়ে ছেলে খেলা করবেন এটা কি সার্কাসের জোকার না নৌকা কোনো জনবিচ্ছিন্ন রাজনৈতিক দলের প্রতিক। অথচ এমপি, জেলা পরিষদ, উপজেলা, পৌরসভা ও ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকার বিপক্ষে এরা ভোট করেছেন আবার তানোর পৌরসভা নির্বাচনে এরাই নৌকার ভোট চাচ্ছে, মানুষ কি এতোই বোকা যে এরা যেমন নাচাবেন তেমনি তারা নাচবেন-? এদিকে রাজনৈতিক কারণে নেতারা মনে কস্টে নিয়েও তাদের মেনে নিলেও তৃণমুলের কর্মী-সমর্থকগণ তাদের বিরুদ্ধে বিক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছে।কারণ তারা যদি মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী ও আদর্শিক আওয়ামী লীগ হয়, তাহলে প্রথমেই তাদের করনীয় ছিল মুন্ডুমালায় নৌকার বিজয় ঘটাতে ঐক্যবদ্ধভাবে মাঠে নেমে কাজ করা, কেননা মুন্ডুমালায় জয়-পরাজয় তানোর পৌরসভার ভোটে বড় প্রভাব পড়বে। অথচ তারা মুন্ডুমালায় নৌকার বিরুদ্ধে আর তানোর পৌরসভায় নৌকার পক্ষে ভোট চাইছে সেটা কি সাধারণ মানুষ বোঝে না।জানা গেছে,উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম রাব্বানী ও সাধারণ সম্পাদক (দায়িত্বহীন) আব্দুল্লাহ আল-মামুনের বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগের সম্ভবনাময় গোছানো ভোটের নস্টের অভিযোগ উঠেছে। তৃণমুলের ভাষ্য, এমপির বিরোধীতা করে পৃথক বলয় সৃস্টির লক্ষ্যে দায়িত্বশীল পদে থেকেও তারা সংগঠনকে শক্তিশালী করতে কোনো ভুমিকা তো রাখেইনি বরং জামায়াত-বিএনপির এজেন্ডা বাস্তবায়নে সৃস্টি করেছিল দলীয়কোন্দল, সাংগঠনিক অবস্থা ছিল নাজুক, ভেঙ্গে পড়েছিল চেইন অব কমান্ড,  হ-য-ব-র-ল  অবস্থা বিরাজ করছিল। ফলে সংগঠন বিরোধী কর্মকান্ডের অভিযোগে তৃণমুলের দাবির মুখে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম রাব্বানিকে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দিয়ে সিনিয়র সহসভাপতি খাদেমুন নবী বাবু চৌধুরীকে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল মামুনকে দায়িত্ব থেকে অবাহতি দিয়ে যুগ্ম-সম্পাদক রাম কমল সাহাকে ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক হয়।

Please Share This Post in Your Social Media

দেশের সংবাদ নিউজ পোটালের সেকেনটের ভিজিটর

38334367
Users Today : 170
Users Yesterday : 4300
Views Today : 292
Who's Online : 30
© All rights reserved © 2011 deshersangbad.com/