রবিবার, ০৯ অগাস্ট ২০২০, ০২:০৯ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
ওসি প্রদীপ মিথ্যা মামলা করার আইনি পরামর্শও নিয়েছিলেন প্রত্যাহার আর বদলিতে সীমাবদ্ধ “লাগামহীন ওসি”দের শাস্তি ! ঘুম থেকে তুলে ক্রসফায়ার দেন ওসি প্রদীপ, টাকাও নেন ১৮ লাখ (ভিডিও) সিনহাকে ‘হত্যা’র পর ‘বাঁচার জন্য’ আইনজীবীকে ফোন ওসি প্রদীপের (অডিও)ভাইরাল পুলিশ নিজেদের এখন ‘ওয়েস্টার্ন হিরো’ ভাবছে: সোহেল চেকপোস্টে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের তদারকি আরো বাড়াতে হবে: ডিএমপি কমিশনার থানায় বোমা বিস্ফোরণের পর মিরপুর পুলিশের শীর্ষ কর্মকর্তাদের বদলি মাহিন্দা রাজাপাকসেকে অভিনন্দন জানালেন শেখ হাসিনা বৈরুতে আহত বাংলাদেশিদের দূতাবাসে যোগাযোগের আহ্বান জোয়ারে প্লাবিত লক্ষ্মীপুর : ক্ষতির শিকার ১১ হাজার হেক্টর ফসলী জমি লক্ষ্মীপুর জেলা উন্নয়ন বাস্তবায়ন পরিষদের আহ্বায়ক কমিটি গঠন অটোরিকশার ৭ যাত্রীকে পিষে দিলো বাস গণমাধ্যমে প্রচার হওয়া ,ফোনালাপ যাচাই করা হবে: র‌্যাব প্রেম করে বিয়ে করছেন? তাহলে দেখে নিন কী কী ভুল হতে পারে আপনার! যে কারণে ছেলেদের দেখলে মেয়েরা বার বার ওড়না ঠিক করে

নারী ইউপি সদস্য মায়ের নামে ১৭ বছর ধরে ডাবল ভাতা ইস্যুকারায় বহিষ্কারের সুপারিশ

শেখ সাইফুল ইসলাম কবির, বাগেরহাট প্রতিনিধি :বাগেরহাটের ফকিরহাট উপজেলার লখপুর ইউনিয়নের (৪,৫ ও ৬ নং ওয়ার্ড)নারী ইউপি সদস্য মায়ের নামে  দুটি বিধবা ভাতার কার্ড ইস্যু করায় তাছলিমা বেগম লতাকে বহিষ্কার ও অপসারণের সুপারিশ করেছে উপজেলা ভাতা বাস্তবায়ন কমিটি।ইউপি সদস্য তাছলিমা বেগম লতা তার মায়ের নামে দুটি বিধবা ভাতার কার্ড ইস্যু করে ১৭ থেকে ২১ বছর ধরে নিয়মিত টাকা উত্তোলন করছেন। এমন অভিযোগের সত্যতা পেয়ে উপজেলা প্রশাসন বিষয়টি আমলে নেয়। উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা সবুর আলীকে অভিযোগের বিষয়ে তদন্ত করে রিপোর্ট প্রদানের নির্দেশ দেন।

তদন্তে অভিযোগের সত্যতা পেয়েছেন বলে উপজেলা ভাতা বাস্তবায়ন কমিটির সভাপতি ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান স্বপন কুমার দাসের কাছে তদন্ত রিপোর্ট প্রদান করেন। পরবর্তীতে উপজেলা ভাতা বাস্তবায়ন কমিটির সভায় ইউপি সদস্য তাছলিমা বেগম লতাকে বহিষ্কার ও অপসারণের সুপারিশ করা হয়। এর সাথে অবৈধভাবে উত্তোলন করা ৬৩ হাজার টাকা ফেরত দেওয়ার জন্য ইউপি সদস্য লতাকে চিঠি দিয়েছে উপজেলা ভাতা বাস্তবায়ন কমিটি।

বৃহস্পতিবার (০২ জুলাই) তদন্ত রিপোর্টসহ উপজেলা ভাতা বাস্তবায়ন কমিটির সুপারিশ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর পাঠিয়েছেন উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা সবুর আলী।

উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা সবুর আলী বলেন, বিভিন্ন গণমাধ্যমে রিপোর্ট প্রকাশের পরে আমরা তদন্ত শুরু করি। তদন্তে ইউপি সদস্য তাছলিমা বেগম লতার বিরুদ্ধে সকল অভিযোগ প্রমাণিত হয়।

স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ) আইন, ২০০৯ এর ৩৪ (৪) (ঘ) ধারা মোতাবেক ইউপি সদস্য তাছলিমা বেগম লতাকে বহিষ্কার ও অপসারণের সুপারিশ করা হয়েছে। সেই সুপারিশ অনুযায়ী সকল কাগজপত্র উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর পাঠিয়েছি।

ফকিরহাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোছা. শাহানাজ পারভীন বলেন, তদন্ত কমিটি ও উপজেলা ভাতা বাস্তবায়ন কমিটির সুপারিশ অনুযায়ী জেলা প্রশাসক মহোদয় বরাবর প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস পাঠিয়েছি। স্থানীয় সরকার বিভাগ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2017 deshersangbad.com/
Design & Developed BY Freelancer Zone