মঙ্গলবার, ০৯ মার্চ ২০২১, ১২:৪৪ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
নোয়াখালী সুবর্ণচরের বিএনপি নেতা এনায়েত উল্লাহ বি কম এর ইন্তেকাল নওগাঁর মহাদেবপুরে মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের গণকবর প্রাচীর দিয়ে সংরক্ষণের দাবি বীর মুক্তিযোদ্ধাদের শিক্ষা জাতীয় করন নিয়ে মনের কষ্ট ফেসবুকের মাধ্যমে ব্যক্ত করলেন অধ্যক্ষ এস এম তাইজুল ইসলাম কুলিয়ারচরে দিনব্যাপী ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ উদযাপন ২৫ ও ২৬ মার্চ হত্যাকাণ্ড চালিয়েছিল জিয়া মমতাকে ছেড়ে আসা মিঠুন এখন মোদির দলে সন্তান কোলে নিয়েই দায়িত্ব সামলাচ্ছেন নারী ট্রাফিক পুলিশ স্ত্রীসহ করোনায় আক্রান্ত সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট আসাদ মিয়ানমারে রাস্তায় হাজারো হাজার লোকের বিক্ষোভ স্কুল শিক্ষককে বিয়ে করলেন বিশ্বের শীর্ষ ধনী নারী প্রতারণার মামলায় ডা. সাবরিনার জামিন আবেদন নামঞ্জুর চট্টগ্রামে প্রবাসী হত্যায় ৯ জনের মৃত্যুদণ্ড সামাজিক মাধ্যমে কুরুচিপূর্ণ লেখা সতর্ক করলেন প্রধান বিচারপতি নিবন্ধনধারীদের এমপিওভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে নিয়োগের নির্দেশ ১৫ দিনের মধ্যে বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধনধারীদের নিয়োগ

নিয়োগ আইন মন্ত্রণালয়ের অধীনে কিন্তু কাজ ভূমি মন্ত্রণালয়ে,

কাজ ভূমি মন্ত্রণালয়ে, কিন্তু নিয়োগ আইন মন্ত্রণালয়ের অধীনে। তাই অনেক ক্ষেত্রেই জবাবদিহিতা নিশ্চিতের বিষয়টি এড়িয়ে গিয়ে দুর্নীতিতে জড়াচ্ছেন দেশের সাব রেজিস্ট্রাররা। এ অবস্থায় ভূমি ব্যবস্থাপনায় স্বচ্ছতা ও গতি আনতে তাদের এক মন্ত্রণালয়ের অধীনে আনার তাগিদ বিশেষজ্ঞদের। এ বিষয়ে ভূমি মন্ত্রণালয় উদ্যোগ নিলেও আপত্তি করছে আইন মন্ত্রণালয়ের।

সিরাজগঞ্জের ভূমি অফিসে ঘুষ দাবির ছবি ও ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পর তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয় আইন মন্ত্রণালয়।

এভাবে দেশের অনেক ভূমি অফিসকে দুর্নীতির আখড়ায় রূপ দিয়েছেন কিছু সাব-রেজিস্ট্রার। সাম্প্রতিক গবেষণা বলছে, দেশের সাব রেজিস্ট্রি অফিসগুলোতে চলে বদলি বাণিজ্য, দলিল নিবন্ধনে জমির দাম নিয়ে কারসাজি; অনিয়ম আর দায়িত্বে অবহেলাতো নৈমিত্তিক।

তবে দায় নিতে রাজি নয় ভূমি মন্ত্রণালয়। তারা বলছে, সাব রেজিস্ট্রাররা আইন মন্ত্রণালয়ের অধীন। তাদের নিজেদের মন্ত্রণালয়ে আনতে বহুবার চিঠি চালাচালি করা হয়েছে। কিন্তু মানতে নারাজ আইন মন্ত্রণালয়।

ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ বলেন, এ রেজিস্ট্রেশন বিভাগটি নিয়ে সবচেয়ে বেশি সমস্যা হচ্ছে। এটি আমার মন্ত্রণালয়ের মধ্যে না। সুতরাং ওখানে আমার হাত দেওয়ার ক্ষমতা নেই।

আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেন, আমার মনে হয় না রেজিস্ট্রেশনের জন্য তাদের খুব বদনাম হচ্ছে। সবচেয়ে বড় দুর্নীতি হয়েছে সার্ভেয়ার হালনাগাদ করতে গিয়ে। সেটা তো আর আইন মন্ত্রণালয় বা করে রেজিস্ট্রেশন ডিপার্টমেন্ট করেনি। সেটা ভূমি মন্ত্রণালয় করেছে।

আগে একসঙ্গে ছিল আইন ও ভূমি মন্ত্রণালয়। পরে ভূমি বিষয়ক পৃথক মন্ত্রণালয় গঠন হলেও ভূমি ব্যবস্থাপনার সঙ্গে গভীরভাবে জড়িত সাব রেজিস্ট্রাররা থেকে গেছেন আইন মন্ত্রণালয়েই।

সাব রেজিস্ট্রি অফিসকে নিজ মন্ত্রণালয়ে আনতে প্রধামন্ত্রীর উপদেষ্টাকে চিঠি দিয়েছিলেন ২০১৫ সালে। তবে সে উদ্যোগ তেমন কার্যকরী হয়নি।

ট্রান্সপ্যারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল-বাংলাদেশের নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, সমন্বয়ের একটা বিষয় থাকে। দায়বদ্ধতার একটা বিষয় থাকলে বিষয়টি সমাধান করা যায়।

বিশেষজ্ঞদের ধারণা, সাব রেজিস্ট্রারদের নিয়োগ, বদলি এবং রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়ায় মোটা অঙ্কের অর্থ জড়িত বলেও এ বিভাগের নিয়ন্ত্রণ হাতে রাখতে চায় মন্ত্রণালয়গুলো।

Please Share This Post in Your Social Media

দেশের সংবাদ নিউজ পোটালের সেকেনটের ভিজিটর

38374944
Users Today : 1664
Users Yesterday : 4902
Views Today : 9188
Who's Online : 47
© All rights reserved © 2011 deshersangbad.com/