মঙ্গলবার, ১৩ এপ্রিল ২০২১, ০৮:২০ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
নেত্রকোণার পূর্বধলায় লকডাউনে খাবারের দাবিতে বিক্ষোভ ৭টি বৈশাখী ছড়া জঙ্গিনেতা মামুনুল হককে  গ্রেফতার – হেফাজতে ইসলামকে নিষিদ্ধ ও জঙ্গি সংগঠন ঘোষণা করুন: কমিউনিস্ট পার্টি(মার্কসবাদী) বিশেষ প্রয়োজনে ব্যাংক খোলা রাখার নির্দেশ সকাল সাড়ে ৯টা থেকে দুপুর দেড়টা পর্যন্ত ব্যাংক খোলা চাঁদ দেখা গেছে, বুধবার থেকে রোজা ঢাবি মেডিকেল সেন্টার আধুনিকায়ন করে শহীদ বুদ্ধিজীবী ডা. মোর্তজার নামে নামকরণের দাবি পণ্য বিপণনে সমস্যা হলে ফোন করুন জরুরি সেবায় ধর্মীয় নেতাকে গ্রেপ্তারের ঘটনায় উত্তাল পাকিস্তান, গুলিতে নিহত ২ সাংবাদিকদের ‘মুভমেন্ট পাস’ লাগবে না খাদ্যপণ্যের বিজ্ঞাপনে একগুচ্ছ নিষেধাজ্ঞা আসছে, থাকছে জেল-জরিমানা হাতে বড় একটি ট্যাবলেট ফোন নিয়ে ডিজিটাল জুয়ার আসরে ব্যস্ত তরুণ-তরুণী রমজানের নতুন চাঁদ দেখে বিশ্বনবী যে দোয়া পড়তেন ফরিদপুরে চাের সন্দেহে গণপিটুনীতে একজন নিহত এটিএম বুথ থেকে তোলা যাবে এক লাখ টাকা

পর্ণ ভিডিও সামাজিক ও শারীরিক অধঃপতনের জন্য দায়ী !!

আমাদের আধুনিক সমাজে পর্ণোগ্রাফী একটি মারাত্মক সামাজিক ব্যাধি। প্রতিদিন কোটি কোটি পর্ণ ভিডিও মোবাইলের মাধ্যমে বিদুৎতের চেয়েও দ্রুত গতিতে তরুণদের মাঝে ছড়িয়ে পড়ছে, যার ফলে বাড়ছে যৌন অপরাধ। বর্তমানে টিনেজাররা পর্ণোগ্রাফীর মূল দর্শক। তাই নিয়মিত পর্ণোগ্রাফী দেখার ফলে তরুণ-তরুণীরা সেক্স সম্পর্কে যা শিখছে তার অধিকাংশই ভুল। শুধু তাই নয় – এই গুলির কুফলে জন্ম হচ্ছে নানা সামাজিক ও শারীরিক সমস্যা। পর্ণোগ্রাফী দেখে কি শিখছে মানুষ – আসুন জেনে নিই…..

পুরুষাঙ্গ বড় হলেই সেক্স করে মজা পাওয়া যায় :- পর্ণোগ্রাফী দেখতে দেখতে অনেক ছেলে-মেয়ের মধ্যে এ ধারণাটি কাজ করে যে, পুরুষাঙ্গ বড় হলেই সেক্স করে মজা পাওয়া যায়। এর ফলে দেখা যায় যে, অনেক সময় ছেলেরা নিজেদের পুরুষত্ব পরীক্ষা করার জন্য বিভিন্ন মেয়ের সাথে সেক্স করে এই কারণে যে, তার পুরুষাঙ্গ কোন মেয়েকে তৃপ্ত করার জন্য যথেষ্ট কিনা। আসলে একটি মেয়েকে যৌনতৃপ্তি দেয়ার জন্য ন্যুনতম ৩-৪ ইঞ্চির পুরুষাঙ্গই যথেষ্ট।

যোনীতে পুরুষাঙ্গ প্রবেশ করালেই মেয়েরা তৃপ্ত হয় :- বিভিন্ন পর্ণোগ্রাফীতে দেখা যায় যে, যোনীতে পুরুষাঙ্গ প্রবেশ করানোর কিছুক্ষণ পরপরই মেয়েরা তৃপ্ত হচ্ছে, কামরস বের করছে। আসলে বাস্তবে তা নয়। এখানে এক্সট্রা লুব্রিকেন্ট ব্যবহার করে কামরস দেখানো হয়। আসলে একটা মেয়েকে সেক্সুয়ালি তৃপ্ত করতে হলে অনেক পরিশ্রম করতে হয়। অনেক সময় এমনও হয় যে, মেয়েটি মানসিকভাবে তৃপ্ত হলেও তার কোন কামরস বের হয়নি।

ছেলেদের চেয়ে মেয়েরা সেক্স করতে বেশী ভালোবাসে :- পর্ণোগ্রাফীতে মেয়ে পর্ণস্টারদের আগ্রাসী ভূমিকা দেখলে যে কোন ছেলেরই মনে হতে পারে যে, ছেলেদের চেয়ে মেয়েরা সেক্স করতে বেশী ভালোবাসে। আসলে ছেলে-মেয়েদের যৌন আকাঙ্খা একই। মূলত ছেলেরা সেক্স করে যৌনতৃপ্ত হওয়ার জন্য আর মেয়েরা সেক্স করে ভালোবাসা পাওয়ার জন্য। তবে কিছু এক্সট্রিম টাইপের মেয়ে আছে যারা সেক্স করতে ভালোবাসে। তবে সব মেয়েরা একরকম নয়।

ডাবল পেনিট্রেশন মেয়েদের অত্যাধিক আনন্দ দেয় :- যারা নিয়মিত পর্ণোগ্রাফী দেখে, তারা হয়তো মনে করে যে, ডাবল পেনিট্রেশন মেয়েদের অত্যাধিক আনন্দ দেয়। পর্ণোগ্রাফীতে মূলত এধরণের বিকৃত যৌনাচরণ দেখানো হয় শুধুমাত্র যৌন উত্তেজনা বৃদ্বির জন্য। বাস্তবে এ ধরণের পেনিট্রেশন করা উচিত না। মেয়েদের যোনীতেই সেক্স করা উচিত। পায়ূপথে সেক্স করা বিকৃত মানসিকতার লক্ষণ।

থ্রিসাম/গ্রুপ সেক্স খুবই মজার :- এধরণের সেক্স বাস্তব জীবনে মোটেও ভালো নয়। কারণ আপনি হয়তো নিশ্চই চাইবেন না যে, আপনার গার্লফ্রেন্ড/স্ত্রী আপনার সামনে অন্য পুরুষদের সাথে সেক্স করুক অথবা আপনার বয়ফ্রেন্ড/স্বামী আপনার সামনে অন্য মেয়েদের সাথে সেক্স করুক। যদি আপনি এগুলোতে আনন্দ অনুভব করেন, তাহলে আপনার মানসিক সমস্যা আছে। মূলত এধরণের পর্ণোগ্রাফীর কারণে সমাজে ধর্ষণের হার বৃদ্বি পাচ্ছে। তাই এধরণের বিকৃত যৌনাচারকে না বলা উচিত।

আত্নীয়দের সাথে সেক্স করা :- পর্ণোগ্রাফীতে বিভিন্ন ধরণের সেক্সের পাশাপাশি ইনসেস্ট সেক্সের পরিমাণও বেশী। পর্ণোগ্রাফীর ভাষায় ইনসেস্ট সেক্স হচ্ছে পরিবারের সদস্যদের সাথে অথবা আত্নীয়দের সাথে অবৈধ যৌনসম্পর্ক করা। যাদের সাথে ইনসেস্ট সেক্স দেখানো হয়, তারা অধিকাংশই ২০-৩০ বছর যাবৎ পর্ণ জগতে রয়েছে। এধরণের সেক্স দেখে অনেক ছেলে-মেয়েই মনে করে আত্নীয়দের সাথে সেক্স করা সময়ের ব্যাপার মাত্র। কিন্তু বাস্তব জীবনে এসব এতই সোজা নয়। তবে এধরণের যৌনসম্পর্ক তৈরী করার চেষ্টা থেকে বিরত থাকা উচিত।

সেক্স টেপ তৈরী করার মজাই আলাদা :- যেসকল ছেলে-মেয়ে প্রেমের আবেগে বিয়ের আগেই যৌনসম্পর্ক গড়ে তোলে, সাধারণত তাদের মনে এধরণের ইচ্ছা জাগে। এক্ষেত্রে তারা মূলত পর্ণোগ্রাফীতে দেখা অভিজ্ঞতাকে প্রয়োগ করে নিজেদের সেক্স করার পাশাপাশি মোবাইলের ক্যামেরা বা হ্যান্ডিক্যাম দিয়ে নিজেদের একটি সেক্স টেপ তৈরী করে তা ইন্টারনেটে ছেড়ে দেয়। এতে ছেলেটি তেমন ক্ষতিগ্রস্থ না হলেও মেয়েটি বিয়ে করার সময় ঠিকই ক্ষতিগ্রস্থ হয়।

কলেজের মেয়েরাই সেক্স করার জন্য শ্রেষ্ঠ :- নিয়মিত পর্ণোগ্রাফী দর্শকরা মনে করেন যে, সেক্স করার জন্য কলেজের মেয়েরাই শ্রেষ্ঠ। এখানে মূলত নারী পর্ণস্টাররা কলেজের মেয়ে সেজে সেক্স করে। আর এতে দর্শকরা ভাবে যে, সেক্সের জন্য কলেজের মেয়েরাই শ্রেষ্ঠ। আসলে সব মেয়েরাই সেক্স করার জন্য শ্রেষ্ঠ, যদি আপনি সেক্স করার প্রকৃত কলাকৌশল জানেন।

Please Share This Post in Your Social Media

দেশের সংবাদ নিউজ পোটালের সেকেনটের ভিজিটর

38444194
Users Today : 1149
Users Yesterday : 1256
Views Today : 15036
Who's Online : 30
© All rights reserved © 2011 deshersangbad.com/
Design And Developed By Freelancer Zone