মঙ্গলবার, ০২ মার্চ ২০২১, ১০:৩৪ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
বরিশাল পুলিশ লাইন্সএ নিহত পুলিশ সদস্যদের স্মৃতিম্ভতে পুস্পার্ঘ্য অর্পন শেখ হাসিনার সুযোগ্য নেতৃত্ব বাংলাদেশকে উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত করেছে: মিজানুর রহমান মিজু রাণীশংকৈলে জাতীয় বীমা দিবসে র‍্যালি ও অলোচনা  গণতন্ত্রের আসল অর্জনই হলো বিরোধিতা করার অধিকার – সুমন  জাতীয় প্রেস ক্লাবে মোমিন মেহেদীকে লাঞ্ছিতর ঘটনায় উদ্বেগ বেরোবি ভিসিকে নিয়ে মন্তব্য করায় শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ পটুয়াখালী এই প্রথম জোড়া লাগানোর শিশুর জন্ম! তানোরে ইউনিয়ন পরিষদের ভবন উদ্বোধন ফেসবুক ইউটিউব টুইটারকে যেসব শর্ত মানতে হবে ভারতে ২০৩০ সালের মধ্যে ঢাকার যানজট মুক্তির স্বপ্নপূরণে যত উদ্যোগ আজ অগ্নিঝরা মার্চের প্রথম দিন রাশিয়া প্রথম হয়েছিল বাংলাদেশের দুই টাকার নোট। অজুহাত দেখিয়ে মে’য়েরা বিয়ের প্রস্তাবে ল’জ্জায় গো’পনে ১০টি কাজ করে তামিমা স’ম্পর্কে এবার চা’ঞ্চল্যকর ত’থ্য দিল তার মেয়ে তুবা নিজেই ছে’লে: “বাবা তুমি তো বলেছিলে পিতৃ ঋণ কোনদিন শোধ হয় না

পুলিশ কর্মকর্তা মানসিক ভারসাম্যহীন এক নারীর গায়ে জড়িয়ে দিলেন নিজেরই পরিধানের কাপড়

নিউজ ডেস্ক: এক মানবিক বিষয়ে নায়ক চরিত্রে অবতীর্ণ হলেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের ট্রাফিক উত্তরের বিভাগের এক পুলিশ কর্মকর্তা। পথে বিবস্ত্র মানসিক ভারসাম্যহীন নারীকে দেখা সবাই এড়িয়ে গেলেই তেমনটি করেননি সেই পুলিশ। ডিউটিরত অবস্থায় গাড়ি থেকে নেমে সেই ভারসাম্যহীন নারীর গায়ে জড়িয়ে দিলেন নিজেরই পরিধানের কাপড়।

এ কাজটি করেছেন ডিএমপির ট্রাফিক উত্তরের বিভাগের উপপুলিশ কমিশনার প্রবীর কুমার রায়।

এমন মানবিক কর্ম করে গত সোমবার থেকেই সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রশংসিত হচ্ছেন সেই পু’লিশ কর্মকর্তা। জানা গেছে, গত সোমবার বিমানবন্দর চত্বরের পাশে এক মানসিক ভারসাম্যহীন তরুণীকে দেখেন উপপুলিশ কমিশনার প্রবীর কুমার রায়। পথচারীরা বিষয়টি দেখেও না দেখার ভান করে এড়িয়ে যেতে থাকেন। কিন্তু তরুণীকে এমন অবস্থায় দেখে সঙ্গেসঙ্গে গাড়ি থেকে নেমে নিজের ট্রাউজার এবং জার্সি পরিয়ে দেন প্রবীর কুমার। আর এক পথচারী সেই মু’হূর্তের ছবি তুলে ফেসবুকে প্রকাশ করে দেয়। দ্রুতই তা ভাই’রাল হয়ে যায়।

উপপুলিশ কমিশনার প্রবীর কুমা’রের সেই কাজের প্রশংসা করে আনিসুল হক নামের একজন ফেসবুকে লিখেছেন, পু’লিশের নেতিবাচক দিকগুলোই আম’রা দেখি। কিন্তু এটাও ঠিক যে তাদের অনেকেই মানবিক কাজ করে থাকেন সেসব ভাল কাজের প্রশংসা করি না আমরা।

আতিক আহমেদ নামের একজন লেখেন, এই শহরে তো আমরাও থাকি। নিশ্চয়ই ঐ নারীকে আগেও ওখানে দেখা গেছে। অন্যরা যারা আগে দেখলেন তারা কেন এগিয়ে আসলেন না, সব কিছুতে কি পু’লিশেরই এগিয়ে আসতে হবে!

বিষয়টি নিয়ে উপপু’লিশ কমিশনার প্রবীর কুমা’র বলেন, হ্যা, ঘটনাটি নাকি ফেসবুকে ভাই’রাল হয়েছে। তবে কে বা কারা সেই ছবি ফেসবুকে দিয়েছে আমি জানি না। অন্য কোনো উদ্দেশ্য নয়; আমি শুধু আমার মানবিক দায়বদ্ধতা থেকে কাজটি করেছি।

তিনি বলেন, প্রথম টার্গেটই ছিল ওই নারীকে পোশাকে আবৃত করা। তাই সে সময় হাতের কাছে যা ছিল তা দিয়েই ঐ নারীর লজ্জা নিবারণের চেষ্টা করেছি। মানিব্যাগে সে সময় যে পরিমাণ টাকা ছিল সেটাও দিয়েছি ওই ভারসাম্যহীন তরুণীকে।

তিনি যোগ করেন, এখানে আলাদাভাবে আমা’র প্রশংসা করার কিছু নেই। আমা’র মনে হয়, আমা’র জায়গায় অন্য কোন পুলিশ সদস্য থাকলেও এমনটি করতেন। এই ঘটনার মতো পুলিশ সদস্যদের এমন অনেক মানবিক উদাহরণ আছে। কিন্তু সেসব ঘটনা পত্রপত্রিকায় সেভাবে প্রচার পায় না। এসব প্রচার পেলে জনগণের মাঝে আমাদের ‘ইমেজ’ এ পরিবর্তন আসবে বলে মনে করি।

Please Share This Post in Your Social Media

দেশের সংবাদ নিউজ পোটালের সেকেনটের ভিজিটর

38343218
Users Today : 1495
Users Yesterday : 5054
Views Today : 5671
Who's Online : 40
© All rights reserved © 2011 deshersangbad.com/