বুধবার, ২৮ অক্টোবর ২০২০, ১১:৫৫ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
এক ধাক্কায় ২৫ মিলিয়ন গায়েব। জামায়াতের আমির ডা. শফিকুরসহ ‌৮৬ জনের বিচার শুরু যে ছবির ‘অশ্লীল’ মুহূর্ত মনে রাখতে চান না মাধুরী বিমানবন্দরে মহিলাদের ‘নগ্ন’ করে তল্লাশি, তীব্র নিন্দার মুখে কাতার বরিশালে ক্লিনিকে সহকারী প্রকৌশলীকে মারধরের অভিযোগ আকবরকে পালাতে সহযোগিতাকারীরাও মামলায় অন্তভূক্ত হবে: এসএমপির নবাগত কমিশনার ইরফান ও সহযোগী জাহিদের বিরুদ্ধে আরো ৪ মামলা হাজী সেলিম ও ইরফানের সম্পদের তথ্য সংগ্রহ করছে দুদক ডোমারে যুবদলের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে র‌্যালি ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত এলডি ট্যাক্স সফটওয়ারের পাইলটিং কার্যক্রম বাস্তবায়নে প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি নেয়ার নির্দেশ…ডিএলআরসি নয়টি ধাপে পরীক্ষা নিয়েই বিদ্যালয়ে ভর্তি করাতে চান প্রধান শিক্ষকরা এমপিপুত্র-মন্ত্রীপুত্র দেখেন না প্রধানমন্ত্রী: হানিফ বিদেশ ফেরত প্রবাসীদের পুনর্বাসনে ৭০০ কোটি টাকার তহবিল ফরাসি দূতাবাস ঘেরাও কর্মসূচিতে মানুষের ঢল পুত্রের কাণ্ডে এমপি হাজী সেলিম পলাতক!

পেয়াজে স্বনির্ভর হবার উজ্জ্বল সম্ভবনা

আলিফ হোসেন,তানোর
বাংলাদেশের পেয়াজ চাষে স্বনির্ভর হবার উজ্জ্বল সম্ভনা রয়েছে। সংরক্ষণ সুবিধা সৃস্টির পাশাপাশি সরকারের প্রয়োজনীয় পৃষ্ঠপোষকতা পেলে তা সম্ভব বলে মনে করছেন কৃষকেরা। এছাড়াও ফাস্টফুড, হোটেল-রেস্তোরায় সালাদ পরিবেশনে পেঁয়াজের বিকল্প শসা, গাজর, পেঁপে ইত্যাদি ব্যবহার করতে হবে। জানা গেছে, পেয়াজ একটি মসলা ও সবজি জাতীয় উদ্যান ফসল। বাংলাদেশে প্রতিবছর গড়ে প্রায় ২৫ থেকে ২৬ লাখ মেট্রিক টন পেয়াজ উৎপাদন হয়ে থাকে। এছাড়া ভারত থেকে সাড়া বছরই বিপুল পরিমান পেয়াজ আমদানি হয়ে থাকে। গত বছর থেকে ভারত প্রতি সেপ্টেম্বর মাসে বাংলাদেশে পেয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দেয়। তাদের অভ্যন্তরীন চাহিদার যোগান স্বাভাবিক রাখতে এমন পদক্ষেপ নেয় ভারত সরকার।
তবে এতো পেয়াজ কি হয়? সবই কি আমরা তরকারির কাজে ব্যয় করছি? না উত্তরটা একদমই সরল, দেশের এবং আমদানি যোগানের বিশ শতাংশ ব্যয় হয় তরকারিতে আর আশি শতাংশ পেয়াজ ই খরচ হচ্ছে হোটেল রেস্তুরায় ফার্স্ট ফুড তৈরি ও পরিবেশনের সালাদ হিসেবে। দেশে বছরের শেষের দিকে গত দুই বছর যাবৎ পেয়াজের মূল্য বৃদ্ধি লক্ষ্য করা যাচ্ছে, ফাস্ট ফুডের তুমুল আগ্রহটাও সারা দেশে বিধ্যমান। যদি আমরা স্বাস্থ্য সচেতনতা সরূপ ফার্স্ট ফুডের চাহিদা কমিয়ে ফেলি এবং পরিবেশনে পেয়াজের পরিবর্তে সিজনালি শশা, পেপে, গাজর কিংবা মূলার ব্যবহার করা হয় তাহলে মোট চাহিদার বিশাল একটা অংশ বেচে যাবে।বর্তমান পরিস্থিতিতে পেয়াজের বিকল্প দিয়েই সালাদ পরিবেশন হচ্ছে।  এটি সারা বছর ধরে রাখলেই আমাদের আর আমদানি নির্ভর হওয়া লাগবেনা। তাছাড়া যখন স্বাভাবিক সিজনালি আমদানি হয়ে থাকে তখন দেশীয় পেয়াজ বাজারে অধিক সরবারহ না করলে  সহজেই আমরা আত্ন নির্ভরশীল হতে পারবো।#

Please Share This Post in Your Social Media

দেশের সংবাদ নিউজ পোটালের সেকেনটের ভিজিটর

37696273
Users Today : 4332
Users Yesterday : 13155
Views Today : 14382
Who's Online : 36
© All rights reserved © 2011 deshersangbad.com/
Design & Developed BY Freelancer Zone