রবিবার, ২৯ নভেম্বর ২০২০, ১০:৩৬ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
শিগগিরই ভাসানচরে রোহিঙ্গা স্থানান্তর শেখ হাসিনার স্বপ্ন কেউ যেন নস্যাৎ করতে না পারে- যুবলীগ চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ বকেয়া বেতন পরিশোধের দাবিতে জিল বাংলা সুগার মিলে মানববন্ধন ছাতকের গোবিন্দগঞ্জে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের দাবীতে এলাবাসীর উদ্যোগে মানববন্ধন।। ‘কথা দিলাম প্রমাণ করতে পারলে রাজনীতি ছেড়ে দেবো’ ২৫ পৌর নির্বাচনে নৌকার প্রার্থী হলেন যারা ইতিহাস-ঐতিহ্য ধ্বংসের ষড়যন্ত্রে জামাত-শিবির গাবতলীর সুখানপুকুরে শিক্ষিকা মাহমুদার মৃত্যুতে দোয়া মাহফিল সংবাদ প্রকাশের পর কারেন্ট পোকার হাত থেকে ধান রক্ষায় মোড়েলগঞ্জে জরুরি সভা সুন্দরবনে দুবলার পথে রাস মেলায় অংশ নিতে তীর্থযাত্রী ও হিন্দু ধর্মাবলম্বীরা, হচ্ছে না রাস মেলা নড়াইলে স্বভাব কবি বিপিন সরকারের ৫ম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত শিবগঞ্জে বৈদ্যুতিক শর্ট-সার্কিট থেকে দুটি বসতবাড়ী পুড়ে ছাই ১০ মাসে ধর্ষণের শিকার ১০৮৬ নারী ও শিশু বর্তমান সরকার অনাদায়ী কৃষি ঋণ মওকুফ করেছেন –তারিন মুসলিম দেশগুলোর বিরুদ্ধে ইউএই‌’‌র ভিসা নিষেধাজ্ঞার নেপথ্যে

প্রেমিককে দাওয়াত দিয়ে ডেকে নিয়ে রাতভর নির্যাতন

লিজা তাদের প্রেমের সম্পর্ক তার মাকে জানায় এবং ফয়সলকে পরিচয় করিয়ে দেয়। একপর্যায় লিজার পরামর্শে মা লিপি বেগম ফয়সলকে বাড়িতে দাওয়াত করে।

হবিগঞ্জের বাহুবল উপজেলায় রাতের অন্ধকারে খুটির সাথে বেধে অর্নাস পড়ুয়া কলেজ ছাত্র মো. ফয়সলকে নিযার্তন করা হয়েছে। শনিবার (৩১ অক্টোবর) দিবাগত রাতে উপজেলার দ্বিমুড়া গ্রামে এঘটনাটি ঘটে।

ফয়সলকে আহত অবস্থায় উদ্ধার সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। নির্যাতনের শিকার ফয়সল চুনারুঘাট উপজেলার সদর ইউনিয়নের হাসারগাও গ্রামের আহসান উল্ল্যার ছেলে। সে বৃন্দাবন সরকারি কলেজের অনার্স ৪র্থ বর্ষের ছাত্র এবং কোরআআনে হাফেজ।

সূত্রে জানা গেছে, ফয়সলের সাথে দীর্ঘদিন ধরে প্রেমের সম্পর্ক ছিল বাহুবল উপজেলার মিরপুর ইউনিয়নের দ্বিমুড়া গ্রামের কুয়েত প্রবাসী আব্দুল হাইর কন্যা লিজার। ফয়সল ও লিজা একই কলেজে পড়ে। একই সাথে আসা যাওয়ার সুবাধে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। লিজা তাদের প্রেমের সম্পর্ক তার মাকে জানায় এবং ফয়সলকে পরিচয় করিয়ে দেয়। একপর্যায় লিজার পরামর্শে মা লিপি বেগম ফয়সলকে বাড়িতে দাওয়াত করে। ফয়সল দেখা করতে গেলে মেয়ের পরিবারের লোকজন তার হাত-পা খুটির সাথে বেধে বেধড়ক মারধর করে। এক পর্যায়ে তার অবস্থার অবনতি হলে তারা তাকে ডাকাত বলে পুলিশে খবর দেয়। খবর পেয়ে বাহুবল মডেল থানার একদল পুলিশ গিয়ে মুছলেকায় পরিবারের জিম্মায় দেন। পরে ফয়সলের মা তাকে উদ্ধার করে হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন।

ফয়সলের মা বলেন, মারপিটের সময় আমার ছেলের বুকে প্রচন্ড আঘাত পায় এবং স্মৃতি শক্তি হারিয়ে ফেলে। তাকে হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে।

বাহুবল মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) মোহাম্মদ কামরুজ্জামান  বলেন, কোন অভিযোগ পাইনি। প্রেম ঘটিত একটি বিষয় শুনেছি। পুলিশ গিয়ে ছেলেকে উদ্ধার করে তার মায়ের কাছে তুলে দিয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

দেশের সংবাদ নিউজ পোটালের সেকেনটের ভিজিটর

37873822
Users Today : 1672
Users Yesterday : 7349
Views Today : 7126
Who's Online : 33
© All rights reserved © 2011 deshersangbad.com/
Design & Developed BY Freelancer Zone