শনিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২০, ১০:০৫ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
সংবাদ প্রকাশের পর কারেন্ট পোকার হাত থেকে ধান রক্ষায় মোড়েলগঞ্জে জরুরি সভা সুন্দরবনে দুবলার পথে রাস মেলায় অংশ নিতে তীর্থযাত্রী ও হিন্দু ধর্মাবলম্বীরা, হচ্ছে না রাস মেলা নড়াইলে স্বভাব কবি বিপিন সরকারের ৫ম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত শিবগঞ্জে বৈদ্যুতিক শর্ট-সার্কিট থেকে দুটি বসতবাড়ী পুড়ে ছাই ১০ মাসে ধর্ষণের শিকার ১০৮৬ নারী ও শিশু বর্তমান সরকার অনাদায়ী কৃষি ঋণ মওকুফ করেছেন –তারিন মুসলিম দেশগুলোর বিরুদ্ধে ইউএই‌’‌র ভিসা নিষেধাজ্ঞার নেপথ্যে নগ্ন হয়ে একি করলেন পপ তারকা লোপেজ (ভিডিও) প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষক নিয়োগের আবেদনে ভুল সংশোধন শুরু করোনায় ২৪ ঘণ্টায় ৩৬ জনের মৃত্যু, আক্রান্ত ১৯০৮ বাংলাদেশকে আফগানিস্তান-পাকিস্তান হতে দেবো না: নওফেল বিয়ের আসরে নতুন জামাইকে একে-৪৭ উপহার দিলেন শাশুড়ি কেন্দ্রীয় বিএমএসএফের চতুর্থ কাউন্সিলের তারিখ ঘোষণা খাস জমির অধিকার ভূমিহীন জনতার শ্লোগানে ভূমিহীন আন্দোলনের রংপুর বিভাগীয় সম্মেলন অনুষ্ঠিত পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রী লামা উপজেলায় ২নং লামা সদর ইউনিয়নে বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজের শুভ উদ্বোধন ও ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন

প্রয়াত বিচারক সোহেল আহমেদ ও জগন্নাথ পাঁড়ের স্মরণে লক্ষ্মীপুরে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে

প্রেস বিজ্ঞপ্তি

১৪ নভেম্বর এলেই আমাদের সামনে ভেসে ওঠে চিরচেনা দুটি মুখ। বিচার বিভাগের দুই উজ্জ্বল নক্ষত্র সিনিয়র সহকারী জজ জগন্নাথ পাঁড়ে ও সিনিয়র সহকারী জজ শহীদ সোহেল আহমেদ। ২০০৫ সালের ১৪ নভেম্বর ঝালকাঠিতে কর্মরত থাকা অবস্থায় তারা উগ্র জঙ্গিবাদীদের বোমা হামলায় নিহত হন। সেদিন বিশ্ববাসী জেনেছিল, বাংলাদেশের শান্তিপ্রিয় নিরীহ মানুষ জঙ্গিবাদীদের লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত হয়েছে।

প্রয়াত বিচারক সোহেল আহমেদ ও জগন্নাথ পাঁড়ের স্মরণে বিচার বিভাগ, লক্ষ্মীপুর কর্তৃক গত ১৮ নভেম্বর বুধবার আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়। লক্ষ্মীপুর জেলার মাননীয় জেলা ও দায়রা জজ জনাব মোঃ রহিবুল ইসলামের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য প্রদান করেন-বিচারক (জেলা জজ) নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল জনাব মোঃ সিরাজুদ্দৌলাহ কুতুবী, চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট জনাব মোহাম্মদ মুমিনুল হাসান, অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ জনাব মনজুর কাদের, সহকারী জজ জনাব ইকবাল হোসেন এবং লক্ষ্মীপুর জেলা ও দায়রা জজ আদালতের প্রশাসনিক কর্মকর্তা মোঃ আবদুল কাদের ভূঁইয়া। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট জনাব মোঃ তারেক আজিজ।
সভায় লক্ষ্মীপুর জেলার মাননীয় জেলা ও দায়রা জজ জনাব মোঃ রহিবুল ইসলাম বলেন, বোমা হামলায় নিহত দুই বিচারক জগন্নাথ পাঁড়ে ও শহীদ সোহেল আহমেদ আমার সহকর্মী ছিলেন। ১৯৯৮ সালের ২৪ জুন ১৮তম বি.সি.এস (বিচার) এর মাধ্যমে তারা দু`জনসহ আমরা ৯৯ জন সহকারী জজ দেশের বিভিন্ন জেলার জাজশিপে যোগদান করেছিলাম। অধস্তন আদালতের সর্বোচ্চ পদ জেলা ও দায়রা জজ। এই পদে বর্তমানে কর্মরত আমরা। বেঁচে থাকলে তারা দু`জনও আমাদের সঙ্গে জেলা ও দায়রা জজ হতে পারতেন। জঙ্গিদের নির্মম আঘাত শুধু তাদের ওপর ছিল না; ছিল দেশের বিচার বিভাগ তথা রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে। রাষ্ট্র হত্যাকারীদের বিচার করে তাদের ফাঁসিতে ঝুলিয়েছে।

নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিজ্ঞ বিচারক (জেলা জজ) জনাব সিরাজদ্দৌলাহ কুতুবী বলেন, ইসলাম কখনো সন্ত্রাসকে সমর্থন করে না। বিপদগামী কিছু সন্ত্রাসী সংঘঠনের আক্রোশের স্বীকার হন বিচার বিভাগের দুইজন মেধাবী কর্মকর্তা। তিনি উভয়ের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন।

চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট জনাব মোহাম্মদ মুমিনুল হাসান তার বক্তব্যে বলেন, বিচার বিভাগীয় কর্মকর্তাদের নিরাপত্তার বিষয়টি যেন সর্বোচ্চ গুরুত্ব সহকারে দেখা হয়।তিনি অবকাঠামো গত উন্নয়ন জঙ্গীবাদ মোকাবেলায় সরকারের ভূয়সী প্রশংসা করেন।

আলোচনা শেষে নিহতদের আত্মার শান্তি কামনা করে দোয়া করা হয়।
২০০৫ সালের ১৪ নভেম্বর সকাল ৮টা ৫৫ মিনিটে ঝালকাঠিতে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন জামাআতুল মুজাহিদীন বাংলাদেশের (জেএমবির) বোমা হামলায় জগন্নাথ পাঁড়ে ও সোহেল আহমেদ নিহত হন।
২০০৬ সালের ২৯ মে ঝালকাঠির অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ ৭ জনকে ফাঁসির আদেশ দেন। উচ্চ আদালতে এ রায় বহাল থাকলে ২০০৭ সালের ২৯ মার্চ পলাতক আসামি আসাদুল ইসলাম আরিফ ব্যতীত দেশের বিভিন্ন আদালতে শীর্ষ ৬ জঙ্গীর ফাঁসি কার্যকর করা হয়।

Please Share This Post in Your Social Media

দেশের সংবাদ নিউজ পোটালের সেকেনটের ভিজিটর

37871542
Users Today : 6741
Users Yesterday : 2663
Views Today : 22857
Who's Online : 83
© All rights reserved © 2011 deshersangbad.com/
Design & Developed BY Freelancer Zone