রবিবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৪:১৭ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
বাংলাদেশ ডিজিটাল পণ্য উৎপাদন ও রপ্তানিকারক দেশে রূপান্তর : মোস্তাফা জব্বার ‘মোদি সরকারের আমলে ভারত-পাকিস্তান সিরিজ সম্ভব নয়’ দেশের ১৭ অঞ্চলে ঝড়বৃষ্টির পূর্বাভাস বাংলাদেশ থেকে সিঙ্গাপুর যেতে করোনা পরীক্ষার দরকার নেই এমসি কলেজে গণধর্ষণ: সাইফুরের পর এবার অর্জুন লস্কর গ্রেফতার শহরের মেয়েদের কম বয়সে স্তন বড় হয় কেন? (ভিডিও) বিরামপুরে প্রাণঘাতী কোভিট-১৯,করোনা ভাইরাস সংক্রমণের প্রার্দূভাব হ্রাস পেয়ে জনগণের মধ্যে স্বস্তি কৃত্রিম সংকটে বিমান টিকিটের দ্বিগুণ দাম গুনতে হচ্ছে যাত্রীদের সংকট নিরসনে দ্রত পদক্ষেপ নেওয়ার আহবান।  রাজশাহীর সিভিল সার্জন অফিসের গাফেলতিতেই ক্লিনিকে বাড়ছে অনিয়ম সোনালী স্বপ্নের প্রত্যয় নিয়ে আমিনের প্রচারণা রৌমারীর জনদরদী ও সফল ইউপি  চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম সালু!  ঝিনাইদহে করোনা ভাইরাসে বৃটিশ টোব্যাকো কোম্পানির ম্যানেজারের মৃত্যু ১২ দিন ধরে নিখোঁজ ঝিনাইদহের ব্যবসায়ী আশিকুর রহমান, হতাশ পরিবারে চলছে বোবা কান্না! শৈলকুপায় কলেজছাত্র সুজনের মরদেহ উদ্ধার: বেরিয়ে আাসছে চাঞ্চল্যকর ও লোমহর্ষক তথ্য ঝিনাইদহে এলজিইডির অর্থয়নে নির্মিত শত শত রাস্তা ভেঙ্গে রাস্তা ভেঙ্গে পুকুরে বিলীন, দেখার কেও নেই

ফুলছড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে স্বাস্থ্যসেবা ব্যাহত হচ্ছে

গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি: জনবল সংকটের কারণে গাইবান্ধার ফুলছড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে স্বাস্থ্যসেবা ব্যাহত হচ্ছে। নয় বছর আগে ফুলছড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সটি ৫০ শয্যায় উন্নীত হলেও এখনও জনবল রয়েছে ৩১ শয্যার। জনবল সংকট থাকার পরেও ৩ জন স্টাফকে ডেপুটেশনে অন্যত্র দেয়া হয়েছে। হাসপাতালে আলট্রাসনোগ্রাম মেশিন নাই, ডিজিটাল এক্স-রে মেশিনটি দীর্ঘদিন ধরে নষ্ট হয়ে থাকায় চিকিৎসা সেবা ব্যাহত হচ্ছে। ফলে চরাঞ্চল বেষ্টিত দরিদ্র প্রীড়িত এই অঞ্চলের মানুষ সরকারি স্বাস্থ্যসেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। ফুলছড়ি উপজেলা ছাড়াও পার্শ্ববর্তী সাঘাটা ও সদর উপজেলার চরাঞ্চলের মানুষের চিকিৎসার একমাত্র আশ্রয় স্থল এই ফুলছড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে। কিন্তু জনবল সংকটের কারণে কোন চিকিৎসা সেবা পাচ্ছে না এতদঞ্চলের মানুষ। জানা যায়, ফুলছড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সটি ২০১১ সালে ৩১ শয্যা থেকে ৫০ শয্যায় উন্নীত হলেও এখনো জনবল রয়েছে ৩১ শয্যার। হাসপাতালটিতে ৯ জন ডাক্তারের স্থলে মাত্র ৪ জন ডাক্তার কর্মরত রয়েছে। আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার, ৫ জন জুনিয়ার কনসালট্যান্টের মধ্যে গাইনী এন্ড অবস, মেডিসিন, সার্জারি ও এনেসথেসিয়া কনসালটেন্টের পদ শূন্য রয়েছে। আবাসিক মেডিক্যাল অফিসারের পদশুন্য থাকায় একজন মেডিক্যাল অফিসারকে ভারপ্রাপ্ত হিসেবে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। এছাড়া ডাঃ সালেহীন কাদেরী নামে একজন মেডিকেল অফিসার ২০০৬ সালের ৬ ফেব্রæয়ারি থেকে অদ্যাবধি অননুমোদিতভাবে কর্মস্থলে অনুপস্থিত রয়েছে। দীর্ঘদিন হলো মেডিক্যাল টেকনোলজিস্ট (ডেন্টাল) পদটি ফাঁকা পরে রয়েছে। মেডিক্যাল টেকনোলজিস্ট (ল্যাব) পদে একজন কর্মরত থাকলেও অন্যজন ডেপুটেশনে সাঘাটা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্মরত রয়েছে। একজনকে গাইবান্ধা জেলা সদর হাসপাতালে ডেপুটেশনে দেয়া হয়েছে। সহকারী স্বাস্থ্য পরিদর্শকের পদ দুইটি, নার্সের ১৪টি পদের মধ্যে ২টি, প্রাতিষ্ঠানিক ডেলিভারিসহ মাতৃস্বাস্থ্য নিশ্চিতকরণে ৪ জন মিড ওয়াইফের ৩ জন নিয়মিত কাজ করছেন। পরিসংখ্যান পদটি, অফিস সহকারী কাম ক¤িপউটার অপারেটরের ৩টি পদের মধ্যে ২টি, ফার্মাসিস্ট ও স্টোর কিপারের ২টি পদ, স্বাস্থ্য সহকারীর ৮টি, এমএলএসএস এর পদ ফাঁকা রয়েছে ২টি। বাবুর্চি ২টি পদের মধ্যে ১টি এবং ওয়ার্ড বয়ের পদ, পরিচ্ছন্ন কর্মীর ৫টি পদের মধ্যে ৩টি পদই শূন্য রয়েছে। এছাড়া একজনকে ডেপুটেশনে দেয়া হয়েছে গাইবান্ধা জেলা সদর হাসপাতালে। এছাড়া জুনিয়র মেকানিককে দেয়া হয়েছে ফার্মাসিস্টের দায়িত্ব এবং একজন স্বাস্থ্য সহকারীকে দেয়া হয়েছে স্টোর কিপারের দায়িত্ব। উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: মো. রফিকুজ্জামান বলেন, হাসপাতালে জনবল চেয়ে উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের কাছে চিঠি দেয়া হয়েছে। তারপরেও স্বল্প সংখ্যক ডাক্তার ও সাপোর্ট ষ্টাফ নিয়ে সাধ্যমত সেবা দেয়ার চেষ্টা করছি।

Please Share This Post in Your Social Media

দেশের সংবাদ নিউজ পোটালের সেকেনটের ভিজিটর

37506762
Users Today : 4669
Users Yesterday : 10073
Views Today : 11692
Who's Online : 32
© All rights reserved © 2011 deshersangbad.com/
Design & Developed BY Freelancer Zone