বৃহস্পতিবার, ১৩ মে ২০২১, ০৩:০০ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
১৫ হাজার দুঃস্থ পরিবারকে রায়পুরের সংসদ সদস্য প্রার্থী এডভোকেট নয়নের ঈদ উপহার লক্ষ্মীপুর-২ আসনের স্হগিত হওয়া উপনির্বাচন সম্পন্ন করার দাবী এলাকাবাসীর ১৩ তলার গাজা টাওয়ার গুড়িয়ে দিল ইসরায়েল ভারতে ২৪ ঘণ্টায় রেকর্ড ৪২০৫ জনের মৃত্যু ইসরাইল বিরোধী বিক্ষোভে উত্তাল নিউইয়র্ক ফেরিতে যাত্রীদের চাপে ৬ জনের মৃত্যু যশোরে গরীব দুস্থদের মাঝে বঙ্গবন্ধু আইন ছাত্র পরিষদের ঈদ উপহার বিতরণ বোচাগঞ্জে অসহায় আনসার ভিডিপি সদস্য/ সদস্যাদের মাঝে ঈদ উপহার বিতর বেনাপোল বাহাদুরপুর গ্রামে ১৫শ পরিবারের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ চীনা রাষ্ট্রদূতের কূটনৈতিক শিষ্টাচার বহির্ভূত মন্তব্যের নিন্দা শ্যামনগরে জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জেরে হামলা আহত-৩, আটক-৫ ৪ মাসের অন্তঃসত্ত্বা আখি আত্মহনন, স্বামী আটক দ্বিতীয় ধাপে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ রোজা ৩০টি হবে, জানালো সৌদি আরব সেই মিতু হত্যার অভিযোগে স্বামী পুলিশকর্তা বাবুল আক্তার গ্রেপ্তার

‘বাংলাদশের মানুষ লুটেরা জুয়ারো সরকারের হাত থেকে রেহাই পেতে চায়’

বাংলাদশের মানুষ ব্যাংক লুটেরা, শেয়ার বাজার লুটেরা ও জুয়ারো এ সরকারের হাত থেকে রেহাই পেতে চায়। এক সময় রাজধানী ঢাকা মসজিদের শহর থাকলেও বর্তমানে ঢাকাকে ক্যাসিনোর শহরে পরিণত করেছে আওয়ামীলীগ। আওয়ামীলীগের লোকজন নিজেদের আখের গোছাতে সবকিছু লুটপাট করে গিলে খাচ্ছে। ক্যাসিনোর দুর্নীতির চেয়েও সরকারের বড় দুর্নীতি হচ্ছে ২৯ ডিসেম্বরের ভোট ডাকাতি। এই সরকার ভোটের সরকার নয়, ভোট ডাকাতির সরকার। আওয়ামীলীগ ছাত্রলীগ, যুবলীগসহ সব লীগেই দুর্নীতিতে ভরা।

বৃহস্পতিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) বিকেলে ময়মনসিংহ মহানগরীর রেলওয়ে কৃঞ্চচূড়া চত্বরে আয়োজিত বিএনপি’র বিভাগীয় সম্মেলনে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এসব কথা বলেন।

মির্জা ফখরুল আরো বলেন, ঐক্যবদ্ধ নেতাকর্মীদের আন্দোলনই পারে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে। তাই অচিরেই খালেদা জিয়াকে মুক্তি না দিলে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের মাধ্যমে সরকারকে বাধ্য করা হবে। শত বাধার মধ্যেও ময়মনসিহে বিএনপি’র সমাবেশে লোকজনের উপস্থিতিই প্রমাণ করে মানুষ বিএনপিকে কত ভালোবাসে। এ সমাবেশে আসতে অবৈধ সরকার নেতাকর্মীদের বাঁধা দিয়েছে বলেও তিনি বক্তব্যে অভিযোগ করেন। আগামী দিনে মানুষের ভালোবাসা নিয়েই বিএনপি ক্ষমতায় আসবে।

এসময় তিনি আরো বলেন, দলীয় নেতাকর্মীদের অনিয়ম দুর্নীতির কারণেই আওয়ামীলীগ থেকে সাধারণ মানুষ মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছে। বর্তমান সরকারকে অবিলম্বে পদত্যাগ করে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন দেয়ার দাবী জানান। অন্যথায় জনগণকে ঐক্যবদ্ধ করে এ সরকারকে পদত্যাগে বাধ্য করা হবে বলেও উল্লেখ করেন।

ময়মনসিংহ দক্ষিণ জেলা বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অধ্যাপক একেএম শফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে এবং দক্ষিণ জেলা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক আবু ওয়াহাব আকন্দের সঞ্চালনায় সমাবেশে আরো বক্তব্য রাখেন বিএনপি’র কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, মির্জা আব্বাস, নজরুল ইসলাম খান, ডা.এ জেড এম জাহিদ হোসেন, সৈয়দ ইমরান সালেহ প্রিন্স, অ্যাডভোকেট সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, সুলতান সালাউদ্দিন টুকুসহ কেন্দ্রীয় ও জেলার নেতৃবৃন্দ।

সমাবেশে ময়মনসিংহ বিভাগের বিভিন্ন জেলা ও উপজেলা থেকে আগত নেতাকর্মীরা অংশ নেন।

তার আগে ময়মনসিংহে বিএনপি’র বিভাগীয় সমাবেশ করার অনুমতির জন্য বৃহস্পতিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) বেলা ১১টার দিকে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ৯ শর্ত জুড়ে দিয়ে শেষে সমাবেশ করার অনুমতি দেয়া হয়।

ওই সময় জেলা প্রশাসনের এ চিঠিগ্রহন করেন ময়মনসিংহ দক্ষিণ জেলা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক আবু ওয়াহাব আকন্দ ওয়াহিদ ও উত্তর জেলা বিএনপি’র জ্যেষ্ঠ যুগ্ম আহ্বায়ক মোতাহার হোসেন তালুকদার। প্রশাসনের এ চিঠি গ্রহন করার সময় দলীয় ভাইস চেয়ারম্যান ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন ও ময়মনসিংহ বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স উপস্থিত ছিলেন।

ময়মনসিংহ জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের জুডিশিয়াল মুন্সীখানার সহকারী কমিশনার তাসনিম আক্তার স্বাক্ষরিত ওই চিঠিতে ৯টি শর্তের কথা বলা হয়েছে।

ময়মনসিংহ দক্ষিণ জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবু ওয়াহাব আকন্দ ওয়াহিদ এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, ৯টি শর্তের মধ্যে- সমাবেশে নির্দিষ্ট স্থানের বাইরে মাইক ব্যবহার করা যাবে না, চলাচলে যানবাহনে বিঘ্ন সৃষ্টি করা যাবে না, মাগরিবের নামাজের পূর্বে সমাবেশ সমাপ্ত করতে হবে, সমাবেশস্থলে কোনো ধরনের লাঠি এবং ব্যাগ বহন করা যাবে না, আশপাশ এলাকা থেকে মিছিল সহকারে সমাবেশে প্রবেশ করা যাবে না, সমাবেশ শেষে যানবাহন চলাচলে বিঘœ সৃষ্টি করা যাবে না এবং দ্রুত সমাবেশস্থল ত্যাগ করতে হবে।

নিজস্ব ভলান্টিয়ার দ্বারা সমাবেশস্থলের অভ্যন্তরীণ আইন-শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণ রাখতে হবে। সাম্প্রদায়িক উস্কানি, মানহানিমূলক ও অস্থিতিশীল কোনো বক্তব্য দেওয়া যাবে না। আদালতের বিচারাধীন কোনো বিষয়ে উস্কানিমূলক বক্তব্য দিয়ে জনগণকে উত্তেজিত করা যাবে না।’

এদিকে ময়মনসিংহ নগরীর কৃষ্ণচূড়া চত্বরে বৃহস্পতিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) দুপুর দুইটা থেকে এ সমাবেশ শুরুর কথা থাকলেও আধাঘন্টা পরে আড়াইটায় পবিত্র কোরআন তেলাওয়াতের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিক ভাবে সমাবেশ শুরু হয়।

সমাবেশকে কেন্দ্র করে বেলা ১২টা থেকে এ বিভাগের বিভিন্ন জেলা ও উপজেলা থেকে কর্মীরা ব্যানার, ফেস্টুন ও প্ল্র্যাকার্ডসহ খন্ড খন্ড মিছিল নিয়ে দলীয় প্রধানের মুক্তির দাবিতে বিভিন্ন ধরণের শ্লোগান ধরে সমাবেশস্থলে আসতে থাকে।

বিএনপি’র সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স অভিযোগ করেন, নানা নাটকীয়তার পর বৃহস্পতিবার বেলা পৌনে ১১টার দিকে ময়মনসিংহ জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার সমাবেশ অনুষ্ঠানের লিখিত অনুমতি দেয়। এ সমাবেশের উদ্দেশ্যে আশপাশের জেলাগুলো থেকে বিএনপি নেতাকর্মীদের নিয়ে ছেড়ে আসা পরিবহনকে বিভিন্নস্থানে বাধাগ্রস্থ্য করা হয়েছে বলেও অভিযোগ করেন।

Please Share This Post in Your Social Media


বঙ্গবন্ধু কাতরকণ্ঠে বলেন, মারাত্মক বিপর্যয়

বঙ্গবন্ধু কাতরকণ্ঠে বলেন, মারাত্মক বিপর্যয়

https://twitter.com/WDeshersangbad

© All rights reserved © 2011 deshersangbad.com/
Design And Developed By Freelancer Zone