দেশের সংবাদ l Deshersangbad.com » বাংলাদেশ উন্নয়নের মহাসড়কে এমপি ফারুক



বাংলাদেশ উন্নয়নের মহাসড়কে এমপি ফারুক

৫:৫৪ অপরাহ্ণ, জুলা ২৪, ২০১৮ |জহির হাওলাদার

148 Views

আলিফ হোসেন, তানোর
রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি, (সাবেক) শিল্প প্রতিমন্ত্রী ও সাংসদ ওমর ফারুক চৌধূরী এমপি বলেছেন, আগামী ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে মধ্যম আয়ের দেশ হিসেবে গড়ে তোলার জন্য জননেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার কাজ করে যাচ্ছে এবং জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শে দেশ পরিচালনা করছে, এখন দেশ উন্নয়নের মহাসড়কে রয়েছে। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ সাধারণ মানুষের জন্য রাজনীতি করে, মানুষকে ক্ষুধা ও দারিদ্র্য মুক্ত করাই আওয়ামী লীগ সরকারের লক্ষ্য, তিনি বলেন, চিকিৎসা সেবা প্রত্যন্ত এলাকার প্রান্তিক মানুষের দৌরগোড়ায় পৌচ্ছে দিতে বর্তমান সরকার গ্রামীণ কমিউনিটি ক্লিনিকগুলো চালু এবং যোগাযোগ ব্যবস্থা সহজ করতে জননেত্রী শেখ হাসিনার সরকার ৯৬ সালে মোবাইল ফোনে কলরেট কমিয়েছে, কর্মসংস্থানের জন্য সরকার নতুন নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টি করছে। তিনি বলেন, উন্নয়নের সঙ্গে সম্পৃক্ত থাকতেই আওয়ামী লীগকে বার বার রাষ্ট্রিয় ক্ষমতায় আসতে হবে, আর আগামীতেও আওয়ামী লীগ মনোনিত প্রার্থীকে নৌকা প্রতিকে ভোট দিয়ে বিজয়ী করার জন্য তিনি সকলের প্রতি আহবান জানিয়ে আওয়ামী লীগের অর্জন ও উন্নয়নের চিত্র সাধারণ মানুষের মধ্যে তুলে ধরে তা প্রচারের কথা কলেন। স¤প্রতি তানোর উপজেলা বঙ্গবন্ধু সৈনিক লীগের বিশেষ বর্ধিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য তিনি উপস্থিত নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে এসব কথা বলেছেন। এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল­াহ আল-মামুন, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি ও কলমা ইউপি চেয়ারম্যান লুৎফর হায়দার রশিদ ময়না, সাধারণ সম্পাদক জুবায়ের ইসলাম. তানভীর রেজা ও মোর্শেদুল মোমেনিন রিয়াদ প্রমূখ। এছাড়াও ৭টি ইউপির চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠনের সভাপতি,সম্পাদক ও সাংগঠনিক সম্পাদকগণ উপস্থিত ছিলেন। তিনি আসন্ন রাজশাহী সিটি নির্বাচনে আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থী এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটনকে বিজয়ী করার জন্য দলের সকল নেতাকর্মীদের নিজ নিজ অবস্থান থেকে কাজ করে যাবার আহবান জানিয়েছেন।
অনুসন্ধানে জানা গেছে, বিগত ২০০৬ সালে দেশে দারিদ্রতার হার ছিল ৪০ শতাংশ তা কমে বর্তমানে দেশে দারিদ্রতার হার ২৪ শতাংশ, মাথাপিছু জাতীয় আয় ছিল ‘মার্কিন ডলার’ ৫২০ ডলার তা বেড়ে বর্তমানে মাথা পিছু আয় ১৪৬৬ ডলার, জিডিপি ছিল ‘কোটি টাকা’ ৪.৮২.৩৩৭ তা বেড়ে বর্তমানে জিডিপি ১৫১৩৬০০ টাকা, অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ছিল ৫.৪০ শতাংশ তা বেড়ে বর্তমানে ৬.৫১ শতাংশ, বাজেটের আকার ছিল ‘কোটি টাকা’ ৬১০৫১ তা বেড়ে বর্তমানে ২৯৫১০০ টাকা, বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ ‘বিলিয়ন ডলার’ ছিল ৩.৪৮ বিলিয়ন তা বেড়ে বর্তমানে ২৭ বিলিয়ন, রেমিটেন্স প্রাপ্তি ‘বিলিয়ন ডলার’ ৫.০৮ বিলিয়ন তা বেড়ে বর্তমানে ১৬ বিলিয়ন ডলার, প্রত্যাশিত গড় আয়ু ‘বছর’ ৬৪.৫ বছর তা বেড়ে বর্তমানে ৭০.৭ বছর, মাতৃমূত্যুর হার ‘লাখে’ ছিল ৩২২ জন তা কমে বর্তমানে ১৭৩ জন, শিশু মূত্যুর হার ‘হাজারে’ ছিল ৪৫ জন তা কমে বর্তমানে ৩০ জন, বিদ্যালয়ে ভর্তির হার ছিল ৯০.৯ তা বেড়ে বর্তমানে ৯৯.৪৭ জন, ঝরেপড়া হার ছিল ৪৫.১ তা কমে বর্তমানে ২১.৪ জন, বিদ্যুৎ উৎপাদন সক্ষমতা ‘মেঘাওয়াট’ ছিল ৪.৫৮৩ তা বেড়ে বর্তমানে ১৪১০০ মেঘাওয়াট, সর্বোচ্চ উৎপাদন ছিল ৩.৭১৮ তা বেড়ে বর্তমানে ৮০৩২, সুবিধাপ্রাপ্ত জনগোষ্ঠি ছিল ৪৩ ভাগ তা বেড়ে বর্তমানে ৭০ ভাগ, বয়স্কভাতা ছিল ১৫০০০০০ জন তা বেড়ে বর্তমানে ৩০০০০০০ জন, বিধবা ভাতা ৬২৫০০ জন তা বেড়ে বর্তমানে ১০১২০০ জন, অস্বচ্ছল প্রতিবন্ধী ভাতা ছিল ১০৪০১৬ জন তা বেড়ে বর্তমানে ৪০০০০০ জন, ২০০৬ সালে প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থী ভাতা ছিলনা কিšত্ত বর্তমানে ১৮৬২০ জন ভাতা পাচ্ছেন, খাদ্যশস্য উৎপাদন ছিল ‘লক্ষ মেট্রিক টন’ ২৭৭.৮৭ তা বেড়ে বর্তমানে ৩৮৪.১৮ লক্ষ মেট্রিক টন, ২০০৬ সালে মুক্তিযোদ্ধা ভাতা ছিলনা কিšত্ত বর্তমানে ভাতা পাচ্ছেন ১৭৬৪৮৪ জন, মুক্তিযোদ্ধা ভাতার পরিমাণ ‘টাকা’ ছিল ৯০০ টাকা তা বেড়ে বর্তমানে পাচ্ছেন ১০.০০০ টাকা, বেসরকারী টিভি ছিল ৯টি তা বেড়ে বর্তমানে আছে ২৬টি, সরকারী টিভি ছিল ২টি তা বেড়ে বর্তমানে আছে ৩টি, এফএম রেডিও ছিল ২টি তা বেড়ে বর্তমানে আছে ২৮টি, কমিউনিটি রেডিও ছিলনা বর্তমানে আছে ৩২টি, ডিজিটাল সেন্টার ছিল না বর্তমানে ডিজিটাল সেন্টার আছে ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টার ৪৫৪৭টি,পৌরসভা ডিজিটাল সেন্টার ৩২১টি, সিটিকর্পোরেশন ডিজিটাল সেন্টার ৪০৭টি, ২০০৬ সালে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে ই-সেবা ছিল না বর্তমানে ৬৪টি জেলায় ই-সেবা রয়েছে, মোবাইল ফোন ব্যবহারকারী ছিল ১ কোটি ৯১ লাখ বর্তমানে ১৩ কোটি ১৪ লাখ, বর্তমানে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা ৪ কোটি ৫৬ লাখ, সীমান্ত সমস্যার সমাধান ও মানবতাবিরোধী অপরাধের বিচার করছে ‘চলমান’ ২০০৬ সালে দারিদ্রতার হার ছিল ৪১.৫১ ও বর্তমানে ৩০.৭০ হার, অতিদরিদ্রতার হার ছিল ২৫.১ ও বর্তমানে ১২.৩ শতাংশ, নূন্যতম মজুরী ছিল ১৬৬২ টাকা বর্তমানে ৫৩০০ টাকা, কৃষি শ্রমিকের দৈনিক মজুরী চাল ক্রয়ের ক্ষমতা ৪-৫ কেজি বর্তমানে ১০-১২ কেজি। আওয়ামী লীগ সরকারের ভিশন ২০২১ ও রুপকল্প ২০৪১ বাস্তবায়ন হলে বাংলাদেশ উন্নত দেশে পরিণত হবে। #

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




উপদেষ্টা পরিষদ:

১। ২।
৩। জনাব এডভোকেট প্রহলাদ সাহা (রবি)
এডভোকেট
জজ কোর্ট, লক্ষ্মীপুর।

৪। মোহাম্মদ আবদুর রশীদ
ডাইরেক্টর
ষ্ট্যান্ডার্ড ডেভেলপার গ্রুপ

প্রধান সম্পাদক:

সম্পাদক ও প্রকাশক:

জহির উদ্দিন হাওলাদার

নির্বাহী সম্পাদক
উপ-সম্পাদক :
ইঞ্জিনিয়ার নজরুল ইসলাম সবুজ চৌধুরী
বার্তা সম্পাদক :
সহ বার্তা সম্পাদক :
আলমগীর হোসেন

সম্পাদকীয় কার্যালয় :

১১৫/২৩, মতিঝিল, আরামবাগ, ঢাকা - ১০০০ | ই-মেইলঃ dsangbad24@gmail.com | যোগাযোগ- 01813822042 , 01923651422

Copyright © 2017 All rights reserved www.deshersangbad.com

Design & Developed by Md Abdur Rashid, Mobile: 01720541362, Email:arashid882003@gmail.com

Translate »