শনিবার, ১৭ এপ্রিল ২০২১, ১০:৩৮ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
মিনা পাল থেকে সিনেমার ‘মিষ্টি মেয়ে’ কবরী সপরিবারে ভ্যাকসিনের ২য় ডোজ নিলেন আলমগীর সৌদি এয়ারলাইন্সের ফ্লাইট চলবে রোববার থেকে নতুন করে দেড় কোটি মানুষকে দরিদ্র করেছে করোনা রমজানে যেসব খাবার এড়িয়ে চলবেন ইলিয়াস আলী নিখোঁজের বিষয়ে নতুন তথ্য দিলেন আব্বাস বাতাসেও ছড়ায় করোনাভাইরাস নববর্ষে গণস্বাস্থ্যের উপহার ৬ ক্যাটাগরিতে ফি কমালো গণস্বাস্থ্য ডায়ালাইসিস সেন্টার বাংলাদেশকে ৬০ লাখ ডোজ টিকা দিতে চায় চীনা কোম্পানি চীনকে ঐক্যবদ্ধভাবে মোকাবিলার প্রতিশ্রুতি সুগা ও বাইডেনের দুমকিতে ডায়রিয়ার প্রকোপ বৃদ্ধি, স্লাইন ও বেড সংকট চরম ভোগান্তিতে রোগীরা।। আওয়ামী লীগে আদর্শিক নেতৃত্বের কবর   !  কবরী দেশকে ভালোবেসে ঋণী করেছেন : নতুনধারা রত্নগর্ভা মুনজুরা চৌধুরীর দাফন সম্পন্ন বড়াইগ্রামে কৃষি জমিতে পুকুর খনন, ৫০ হাজার টাকা জরিমানা

মুখ খুললেন উহানের ভাইরোলজি ল্যাবের পরিচালক

চীনের উহানে অবস্থিত ল্যাব থেকেই করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ প্রথম শুরু হয়। এমন অভিযোগ নাকচ করে ওই উহান ইনস্টিটিউট অব ভাইরোলজির ল্যাবের পরিচালক ইউয়ান ঝিমিং বলেছেন, ‘এ ল্যাব থেকে ভাইরাসটির সূত্রপাত একেবারেই অসম্ভব বিষয়। এমনকি আমাদের কোন স্টাফও আক্রান্ত হয়নি। পুরো ইনস্টিটিউট করোনা ভাইরাস সম্পর্কিত বিভিন্ন গবেষণা চালিয়ে যাচ্ছে।’ বিভিন্ন মিডিয়ায় চীন সম্পর্কে ভাইরাস ছড়ানোর মিথ্য খবর প্রকাশের প্রেক্ষিতে এসব কথা বলেন তিনি। খবর এএফপি।

তিনি বলেন, ‘এ বিষয়ে চীনের ওপর আন্তর্জাতিক চাপ তৈরি করা হচ্ছে। খোদ যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প অভিযোগ তুলে বলছেন, ভাইরাসের সূত্রপাত নিয়ে চীন লুকোচুরি খেলছে। তাই তাদের বিষয়টি স্পষ্ট করতে হবে। এ নিয়ে তদন্ত হচ্ছে জানিয়ে তিনি হুমকি দিয়ে বলেন, যদি করোনা ভাইরাস চীনের উহান ইনস্টিটিউট অব ভাইরোলোজি ল্যাব থেকে শুরু হয় তবে চীনকে কঠিন পরিণতি ভোগ করতে হবে।’

এসব অভিযোগের জবাবে গতকাল শনিবার স্থানীয় গণমাধ্যম সিজিটিএনকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে ল্যাবের পরিচালক ইউয়ান ঝিমিং বলেন, ‘এ ল্যাব থেকে ভাইরাসটির সূত্রপাত একেবারেই অসম্ভব বিষয়। আমাদের কোন স্টাফই আক্রান্ত হয়নি। পুরো ইনস্টিটিউট করোনা ভাইরাস সম্পর্কিত বিভিন্ন গবেষণা চালিয়ে যাচ্ছে।’
তিনি বলেন, ‘আমরা যারা ভাইরাস নিয়ে গবেষণা করছি, আমরা স্পষ্টভাবে জানি আমরা কোন ধরণের গবেষণা করছি। একইভাবে আমরা এটাও অবগত আছি, ইনস্টিটিউট ভাইরাস এবং স্যাম্পলগুলো কিভাবে ব্যবস্থাপনা করে। সুতরাং এখান থেকে ছড়ানোর বিষয়টি পুরাই অবাস্তব।’

ইউয়ান ঝিমিং বলেন, ‘এ নিয়ে কিছু মিডিয়া ইচ্ছাকৃতভাবে মানুষের মাঝে ভুল ছড়াচ্ছে। ওয়াশিংটন পোস্ট ও ফক্স নিউজের প্রতিবেদন নামহীন সূত্র থেকে এসেছে। যারা উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেছে, ভাইরাস এখান থেকে আসতে পারে। পুরো রিপোর্টই অনুমান নির্ভর। এখানে কোনো প্রমাণ, সূত্র বা গ্রহণযোগ্য তথ্য কিছুই নেই।’

২০১৭ সালে চীন উহান প্রদেশে উচ্চ প্রযুক্তসিম্পন্ন ভাইরাস গবেষণা ল্যাব ‘উহান ইনস্টিটিউট অব ভাইরোলজি’ তৈরি কর। যেখানে ইবোলা, সার্সের মতো বিশ্বের সবচেয়ে বিপজ্জনক কিছু ভাইরাস নিয়ে কাজ করার কথা জানায় বেইজিং।

এই ল্যাবটি চীনের সর্বপ্রথম বায়োসেফটি লেভেল-৪ (বিএসএল-৪) মানের ল্যাব। সর্বোচ্চ বিপদজনক ভাইরাস নিয়ে নিরাপদে কাজ করা যায়, এমন ল্যাবগুলোই বিএসএল-৪ মানসম্পন্ন ল্যাব।

চীনা গবষেকরা দাবি করেন, গবেষণা ল্যাবটি সম্পূর্ণ নিরাপদ। ল্যাবটি উহানে অবস্থিত হুনানের সামুদ্রিক বাজার থেকে ২০ মাইল দূরে অবস্থিত। ভাইরাসে আক্রান্ত প্রথম রোগী ওই বাজারেরই একজন বিক্রেতা। ভাইরাসটি ছড়িয়ে পড়ার পর গবেষকরা বলে আসছিলেন যে, ভাইরাসটি বণ্য প্রাণী থেকে মানবদেহে এসেছে।

Please Share This Post in Your Social Media

১৯

দেশের সংবাদ নিউজ পোটালের সেকেনটের ভিজিটর

38449500
Users Today : 1124
Users Yesterday : 1193
Views Today : 9234
Who's Online : 26
© All rights reserved © 2011 deshersangbad.com/
Design And Developed By Freelancer Zone