মঙ্গলবার, ০৯ মার্চ ২০২১, ০৩:৫৬ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
নোয়াখালী সুবর্ণচরের বিএনপি নেতা এনায়েত উল্লাহ বি কম এর ইন্তেকাল নওগাঁর মহাদেবপুরে মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের গণকবর প্রাচীর দিয়ে সংরক্ষণের দাবি বীর মুক্তিযোদ্ধাদের শিক্ষা জাতীয় করন নিয়ে মনের কষ্ট ফেসবুকের মাধ্যমে ব্যক্ত করলেন অধ্যক্ষ এস এম তাইজুল ইসলাম কুলিয়ারচরে দিনব্যাপী ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ উদযাপন ২৫ ও ২৬ মার্চ হত্যাকাণ্ড চালিয়েছিল জিয়া মমতাকে ছেড়ে আসা মিঠুন এখন মোদির দলে সন্তান কোলে নিয়েই দায়িত্ব সামলাচ্ছেন নারী ট্রাফিক পুলিশ স্ত্রীসহ করোনায় আক্রান্ত সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট আসাদ মিয়ানমারে রাস্তায় হাজারো হাজার লোকের বিক্ষোভ স্কুল শিক্ষককে বিয়ে করলেন বিশ্বের শীর্ষ ধনী নারী প্রতারণার মামলায় ডা. সাবরিনার জামিন আবেদন নামঞ্জুর চট্টগ্রামে প্রবাসী হত্যায় ৯ জনের মৃত্যুদণ্ড সামাজিক মাধ্যমে কুরুচিপূর্ণ লেখা সতর্ক করলেন প্রধান বিচারপতি নিবন্ধনধারীদের এমপিওভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে নিয়োগের নির্দেশ ১৫ দিনের মধ্যে বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধনধারীদের নিয়োগ

রংপুর চিনিকলে আখ মাড়াই বন্ধ হওয়ায় চরম বিপাকে আখচাষীরা

গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি: গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার মহিমাগঞ্জে অবস্থিত রংপুর
চিনিকলের আখ মাড়াই বন্ধ হয়ে যাওয়ায় আখচাষীরা চরম বিপাকে পড়েছে। অনেকে গুড় তৈরী
করে ক্ষতি পুষিয়ে নেয়ার চেষ্টা করলেও গুড়ের চাহিদা কম থাকায় অর্থনীতি ক্ষতি পুষিয়ে নিতে
পারছেন না। ফলে এ অঞ্চলের জনপ্রিয় ফসল আখ চলতি মৌসুমে কৃষকের মরণ ফাঁদ হয়ে
দাঁড়িয়েছে। চিনিকলটি বন্ধ হয়ে যাওয়ায় বছর জুড়ে আবাদ করার পর একসাথে বিশাল অংকের
টাকার যোগান দেয়া ফসল আখ কর্তৃপক্ষের অব্যবস্থাপনায় জমিতেই শুকিয়ে যাচ্ছে। পূর্ব
ঘোষণা ছাড়াই গাইবান্ধার একমাত্র কৃষিভিত্তিক ভারিশিল্প কারখানা মহিমাগঞ্জ অবস্থিত
রংপুর চিনিকলের ব্যবস্থাপনায় চাষ করা প্রায় ৫ হাজার দুইশত একর জমিতে আখ দন্ডায়মান
রেখে হঠাৎ করে চলতি বছরে এ চিনিকলে আখ মাড়াই বন্ধ হওয়ায় এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে।
রংপুর চিনিকল কর্তৃপক্ষ অন্য চিনিকলে এ সব আখ পাঠানোর ব্যবস্থা নিলেও প্রয়োজনের
তুলনায় তা খুবই নগন্য। আখ কাটার নির্দিষ্ট সময় পেরিয়ে যাওয়ায় এখন কৃষকরা না
পারছেন জমির আখ অন্যত্র বিক্রি করতে, না পারছেন জমিতে রাখতে। এ কারণে প্রতিদিনই
বিপুল পরিমাণ আখ জমিতেই শুকিয়ে যাচ্ছে। জমি থেকে আখ কেটে জমি মুক্ত করতে না
পেরে ধান বা অন্য ফসল চাষাবাদের প্রস্তুতিও নিতে পারছেন না তারা। চিনিকল কর্তপক্ষ তাদের
দেয়া ঋণের টাকা আদায় করে নেয়ার জন্য সীমিত সংখ্যক পুর্জি (চিনিকলে আখ সরবরাহের
অনুমতিপত্র) দিলেও সে আখও সঠিকভাবে নিতে পারছে না বলে অভিযোগ করেছেন চাষীরা। এর
ফলে অনেকেই বাধ্য হয়ে অবৈধ মাড়াইকলে গুড় তৈরি করে আখের অর্ধেক মূল্যও ঘরে তুলতে
পারছেন না। জানা যায় চলতি বছর রংপুর চিনিকলের আওতাধীন আটটি সাব-জোন এলাকার
৪০টি ক্রয় কেন্দ্রের আওতায় পাঁচ হাজার দুইশত একর জমিতে উৎপাদিত ৫২ হাজার মেট্রিক
টন আখ মাড়াইয়ের জন্য প্রস্তুতি নেয়া হয়। গত বছরের ২৫ ডিসেম্বর মাড়াই শুরুর সম্ভাব্য
তারিখ নির্ধারণ করে প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি নেয় চিনিকল কর্তৃপক্ষ। কিন্তু ২ ডিসেম্বর
হঠাৎ করেই রংপুর চিনিকল সহ দেশের ৬টি চিনিকলে আখ মাড়াই স্থগিতের চিঠি আসে
বিএসএফআইসির (বাংলাদেশ চিনি ও খাদ্যশিল্প সংস্থা) সদর দপ্তর থেকে। চিনিকলের
লোকসানের বোঝা কমানোর জন্য এ পদক্ষেপ নিলেও চিনিকল থেকে দেয়া ঋণের টাকায়
উৎপাদিত আখ সময়মত ও সঠিকভাবে সংগ্রহের বাস্তবসম্মত ব্যবস্থা নেয়া হয়নি বলে
আখচাষী ও শ্রমিকরা অভিযোগ করে আসছেন। এরপরেও কেবল মাত্র পরিবহন খাতেই কয়েক গুণ
টাকা বেশি ব্যয় করে জয়পুরহাট চিনিকলে আখ প্রেরণের সিদ্ধান্তে অটল থাকে কর্তৃপক্ষ।
নির্দিষ্ট সময়ের ১৫ দিন পরে আখ সংগ্রহ শুরু করে প্রতিদিন সাতশত মেট্রিক টন আখ
প্রেরণের কথা থাকলেও মাত্র দুই থেকে তিনশত মেট্রিক টন আখ প্রেরণ করা হচ্ছে জয়পুরহাট
চিনিকলে। এভাবে চললে চাষীদের জমির সিংহভাগ আখই জমিতেই শুকিয়ে যাবে বলে আশংকা
করা হচ্ছে। বর্তমান পরিস্থিতিতে সরকারি নিষেধাজ্ঞার কড়াকড়ি না থাকায় রংপুর চিনিকল
জোন এলাকায় ১২০টি অবৈধ আখ মাড়াইকল কম দামে আখ কিনে গুড় মাড়াই চালিয়ে যাচ্ছে
। এর মধ্যে মহিমাগঞ্জের রংপুর চিনিকল মিলস গেট এলাকাতেই ১০ থেকে ১৫টি মাড়াইকল গুড়
মাড়াই করছে। রংপুর চিনিকলের মহাব্যবস্থাপক (কৃষি) মো. আমিনুল ইসলাম বলেন শ্রমিক ও
পরিবহন নিয়ে সৃষ্ট জটিলতার অবসান হয়েছে। একটি জমির আখও পড়ে থাকবে না। বর্তমানে
পরিবহনে নিয়োজিত গাড়ির সাথে জয়পুরহাট চিনিকলের ১০টি গাড়ি এনে এখন থেকে
প্রতিদিন সাতশত মেট্রিক টন আখ জয়পুরহাট চিনিকলে পাঠানো হবে।

Please Share This Post in Your Social Media

দেশের সংবাদ নিউজ পোটালের সেকেনটের ভিজিটর

38374053
Users Today : 773
Users Yesterday : 4902
Views Today : 2475
Who's Online : 27
© All rights reserved © 2011 deshersangbad.com/