শনিবার, ১৫ মে ২০২১, ১১:০৮ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
তথাকথিত ধর্ম ও সমাজতান্ত্রিকরা রাষ্ট্রের জন্য ক্ষতিকর : মোমিন মেহেদী নওগাঁর মহাদেবপুরে এমপির সাথে নবগঠিত ডিজিটাল প্রেসক্লাবের সদস্যদের ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় ও কমিটি হস্তান্তর পল্লবীতে পুলিশ কর্তৃক সাংবাদিক ও মানবাধিকার কর্মীকে হয়রানী। লকডাউন অমান্য করে কুয়াকাটায় পর্যটকের ভীড় বিশ্বে প্রাকৃতিক দুর্যোগ প্রকৃতির বিচিত্র কখনো কখনো মানুষের উপর ভয়াবহ দুর্যোগ নেমে আসে। কোম্পানীগঞ্জে আবারো পাল্টাপাল্টি কর্মসূচি ঘোষণা ইসরায়েলকে ঠেকাতে এগিয়ে যাচ্ছে আশপাশের দেশের মানুষ! দাতভাঙা জবাব দিচ্ছে হামাস, সত্য গোপনের চেষ্টায় ইসরায়েল! এবার পশ্চিম তীরে রণক্ষেত্র! ৪০ মিনিটে ১৩ ফিলিস্তিনিকে হ’ত্যা করল ইসরাইলি যু’দ্ধবিমান ! ঈদ উদযাপন শেষ, বাড়ছে ঢাকামুখী মানুষের চাপ ! মুসলিম দেশকে এক করার ঘোষণা ইমরান খানের ! ইসরাইলের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে শত শত বিক্ষোভকারীরা! (ভিডিও) ঈদের ছুটি শেষ, কাল খুলছে অফিস-আদালত ! লকডাউন আরও বাড়ছে, কাল প্রজ্ঞাপন জারি !

রাবির খাবারে বড়শি-কেঁচো, প্রতিবাদে বিক্ষোভ ও ভাঙচুর

রাবি প্রতিনিধি: রাজশাহী বিশ^বিদ্যালয় নবাব আব্দুল লতিফ হলের ডাইনিং এর খাবারে মাছ ধরা বড়শি ও কেঁচো পাওয়ার অভিযোগে হলের প্রধান ফটকে তালা লাগিয়ে বিক্ষোভ ও ভাংচুর করেছে আবাসিক শিক্ষার্থীরা। শুক্রবার দুপুর ১২ টা থেকে তিনটা পর্যন্ত হল গেটে এ আন্দোলন চলে।
এসময় হলে অভ্যন্তরে চেয়ার, ডাইনিং এর আসবাবপত্র, সিসিটিভি ক্যামেরা ভাংচুর করে বিক্ষুদ্ধ শিক্ষার্থীরা। পরে ঘটনাস্থলে প্রক্টর ও হল প্রাধ্যক্ষ উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।
এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে চিকিৎসা বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক ও হলের আবাসিক শিক্ষক সাইফুর রহমানকে আহ্বায়ক করে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি করা হয়েছে। সাতদিনের মধ্যে তদন্তের প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়। এছাড়াও হলের বিভিন্ন সমস্যা উল্লেখ করে প্রক্টর ও প্রাধ্যক্ষকে স্মারকলিপি দেন আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা।
হল সূত্র জানায়, হলের আবাসিক ও বাংলা বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ইমরান হোসেন ডাইনিং এ মাছ ভর্তা দিয়ে খাবার খাচ্ছিলেন। এসময় মাছ ভর্তার মধ্যে মাছ ধরা বড়শি ও কেঁচো পায়। পাশে বসা আরেক আবাসিক শিক্ষার্থীকে দেখালে পরে সকল শিক্ষার্থীরা চিৎকার দিয়ে ডাইনিং এর আসবাবপত্র ভাংচুর শুরু করে। পরে হল ফটক লাগিয়ে বিক্ষোভ শুরু করে শিক্ষার্থীরা। পরবর্তীতে প্রক্টর ও প্রাধ্যক্ষ’র নিকট ১৫ দফা দাবি দেন।
শিক্ষার্থীদের দাবিগুলো হচ্ছে- ডাইনিং এর খাবার মান উন্নয়ন ও পরিচ্ছন্নতা, ক্যান্টিন ব্যবস্থা, রিডিং রুমের ব্যবস্থা, বিশুদ্ধ পানির ও ডাস্টবিনের ব্যবস্থা, ওয়াইফাই ও টয়লেটের মানোন্নয়, টিভি রুম আধুনিকায়ন প্রমুখ।
আন্দোলনরত শিক্ষার্থী নির্ঝর বলেন, হল প্রাধ্যক্ষ তাঁদের কোনো কল্যাণে আসেন না। শুধু আশ^াস দেই। বাস্তবায়ন হয় না। কেননা এ সমস্যগুলো নতুন নয়। এর আগেও অনেকবার আন্দোলন করেছি দৃশ্যমান কোন পদক্ষেপ পাইনি।
নবাব আব্দুল লতিফ হল প্রাধ্যক্ষ ড. একরাম হোসেন জানান, খাবারে বড়শির ঘটনা শুনেই হলে উপস্থিত হই। এঘটনায় তিন সদস্য কমিটি গঠন করা হয়েছে এবং সাতদিনের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে বলেছি। তদন্ত সাপেক্ষে জড়িতের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
এছাড়াও শিক্ষার্থীদের স্মারকলিপিতে উল্লেখিত দাবিগুলো দ্রুত সমাধান করার চেষ্টা করা হবে বলে জানান তিনি।
বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর প্রফেসর ড. লুৎফর রহমান বলেন, প্রাধ্যক্ষকে নিয়ে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের শান্ত করি। পরে যৌক্তিক দাবি গুলো বিবেচনা নিয়ে দ্রুত সমস্যা নিরসনের চেষ্টা করার আশ^াস দিয়েছি বলে জানান তিনি।

Please Share This Post in Your Social Media


বঙ্গবন্ধু কাতরকণ্ঠে বলেন, মারাত্মক বিপর্যয়

বঙ্গবন্ধু কাতরকণ্ঠে বলেন, মারাত্মক বিপর্যয়

https://twitter.com/WDeshersangbad

© All rights reserved © 2011 deshersangbad.com/
Design And Developed By Freelancer Zone