শুক্রবার, ০৭ অগাস্ট ২০২০, ০৯:৫৩ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
ক্রসফায়ার ছিলো ওসি প্রদীপের নেশা, বদির সাথে ছিলো সখ্যতা আ.লীগের উপদেষ্টা জয়নাল হাজারীর বিরূদ্ধে জিডি ‘উস্কানিমূলক তথ্যে সোশ্যাল মিডিয়া কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধেও আইনি ব্যবস্থা’ আর নয় বাসা থেকে অফিস বড়াইগ্রামে অতিরিক্ত ভাড়া নেয়ায় ১৫ পরিবহনকে জরিমানা মাহবুব আলী ৩৬তম মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে শাজাহানপুরে শ্রমিকদল এর উদ্যোগে স্মরণ সভা ও দোয়া মাহফিল গাবতলীতে মাহবুব আলী খান এর ৩৬তম মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে ছাত্রদল এর দোয়া মাহফিল মাহবুব আলী ৩৬তম মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে গাবতলীতে ছাত্রদল এর উদ্যোগে দোয়া মাহফিল নেত্রকোনার মেয়ে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রী তোরাবির আত্মহত্যা জামালপুর জেলায় ক্রমেই বাড়ছে করোনার রোগী প্রচন্ড তাপদাহের পর ৬ আগষ্ট কুষ্টিয়াতে ঝুম বৃষ্টি জনজীবনে সস্তি ফিরেছে পরিবর্তনশীল বিশ্বে দক্ষিণ এশিয়া- ড. ইমতিয়াজ আহমেদ পঞ্চগড়ে একাংশ সাংবাদিকদের আর্থিক প্রণোদনার চেক হস্তান্তরে বাকী বঞ্চিতদের ক্ষোভ। সাপাহারে মোটর সাইকেলের মুখোমুখী সংঘর্ষে চালক নিহত নারী ও শিশু নির্যাতন মামলায় আইনের কঠোর ব্যাবস্হা গ্রহণে প্রধানমন্ত্রী বরাবর বাদিনীর আকুতি

লক্ষ্মীপুরে লঞ্চঘাটে যাত্রীদের জিম্মি করে চলছে নৈরাজ্য

 

তারেক উদ্দিন জাবেদ:
লক্ষ্মীপুর ভোলা নৌ-রূটে মজুচৌধুরী হাট লঞ্চঘাটের ইজারাদারের বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘাটের ইজারাদারের লোকজনের হাতে নাজে হাল হচ্ছেন চলাচলকারি যাত্রীরা। সরকারি টিকিটের হার নির্ধারিত ২ টাকা ৫০ পয়সা হলেও যাত্রীদের কাছ থেকে পাঁচ টাকা নেয়ার হত এখন কোরবানের ঈদকে ফুজি করে ১০ টাকা নেওয়ার অভিযোগ করেছেন একাধিক যাত্রী ও ব্যবসায়িরা। এতে যাত্রী সেবার নামে চলছে যাত্রী হয়রানি।

যাত্রীদের জিম্মি করে হাতিয়ে নিচ্ছে বিপুল অংকের অর্থ। আর্থিক অনিয়ম আর অব্যবস্থাপনার মধ্য দিয়ে চলছে এই ঘাটটি। ঘাট ইজারাদার ও কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে বাড়তি টাকা নেয়ার অভিযোগ দিয়েছে যাত্রীরা।

করোনা লকডাউনের ভেতরে ঘাট ইজারাদার চুক্তি ভঙ্গ করে গোপনে টোল, ভাড়া বৃদ্ধি করে যাত্রী পারাপার করেছে। ভাড়া বাড়ালেও মানা হচ্ছে না সামাজিক দুরত্ব নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে যাত্রী পারাপার-মোবাইল কোর্টে জরিমানা করেও থামানো যাচ্ছেনা নৈরাজ্য।

মেঘনা নদী বেষ্টিত দ্বীপ জেলা ভোলা থেকে ঢাকা চট্টগ্রামসহ অন্য জেলায় যাতায়াতের অন্যতম প্রধান মাধ্যম হচ্ছে নৌযান। প্রতিদিন ভোলা থেকে ঢাকা, বরিশাল, লক্ষ্মীপুরসহ বিভিন্ন নৌ রুটে প্রায় অর্ধশত ছোট বড় লঞ্চ ও সি-ট্রাক চলাচল করে।এই নৌ রুটে পারাপারের জন্য মাধ্যম রয়েছে ট্রলার ও স্পিডবোট। যেখানে যাত্রীরা ঘাট ইজারাদারের কাছে জিম্মি ও হয়রানির শিকার। বাধ্য হয়ে ইজারাদার কর্তৃপক্ষের চাপিয়ে দেওয়া সিদ্ধান্ত মেনে নিতে হয় যাত্রীদের।

যাত্রীদের অভিযোগ, দেশের অন্যান্য ঘাটের তুলনায় এই ভাড়া অনেক বেশি। অভিযোগ, স্থানীয় প্রশাসনের হুঁশিয়ারি ও ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার পরও কমছে না ইজারাদারের দৌরত্ব।

যাত্রীদের অভিযোগ, নানা অজুহাতে এখানে ভাড়া বৃদ্ধি করা হয়। বোটে নেই পর্যাপ্ত লাইফ জ্যাকেট। যা আছে তা নোংরা ও অস্বাস্থ্যকর। প্রতি ঈদে যাত্রীদের জিম্মি করে কয়েকগুণ পর্যন্ত ভাড়া আদায় করা হয়। ঈদকে সামনে রেখে নতুন করে যাতে আবার ভাড়া না বাড়ানো হয় সে ব্যাপারে প্রশাসনের কঠোর নজরদারি আশা করেন যাত্রীরা।

এবিষয়ে ইজারাদার বাবুল ছৈয়াল বলেন, আমি ইজারাদার হলেও মূলত ঘাট পরিচালনা করেন সদর উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক রুপম হাওলাদার আপনি তার সাথে কথা বলেন। রুপম হাওলাদার মুঠোফোনে একাধিকবার কল দিলেও তিনি রিসিভ করেননি।

ইউপি চেয়ারম্যান আবু ইউছুফ ছৈয়াল বলেন, জেলা পরিষদের অনুমতি নিয়ে ভাড়ানো হয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রেদোয়ান আরমান শাকিক জানান, এবিষয়ে খবর পেয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার করে জরিমানা করা হয়েছে আবারো যদি তার বিরুদ্ধে এর সত্যতা পাই অবশ্যই আইনগত ব্যবস্থা নিবো।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2017 deshersangbad.com/
Design & Developed BY Freelancer Zone