সোমবার, ১২ এপ্রিল ২০২১, ০৯:৪৩ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
বেঁচে থাকলে পহেলা বৈশাখ-ঈদ অনেক পাবেন: ওমর সানী লক্ষ্মীপুরে বেড়িবাঁধ সড়ক সংস্কার কাজে অনিয়মের অভিযোগ লক্ষ্মীপুরে ব্যবসায়িদের মাঝে মাস্ক বিতরণ করলেন এডভোকেট নয়ন সাকিবকে কলকাতার একাদশে রাখেননি বিশপ সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ চলবে সপ্তাহে তিনদিন সৌদি আরবে মঙ্গলবার থেকে রোজা শুরু বাংলাদেশি শিক্ষকদের আমেরিকান ফেলোশিপের আবেদন চলছে ঘরের কোন জিনিস কতদিন পরপর পরিষ্কার করা জরুরি কিশোরকে গাছে বেঁধে নির্মম নির্যাতন, পায়ুপথে মাছ ঢুকানোর চেষ্টা পদ্মায় ভেসে উঠল শিশুর মরদেহ ভাইকে বাঁচাতে গিয়ে প্রাণ গেল বোনের ৭ দিনের সাধারণ ছুটির ঘোষণা আসতে পারে টার্গেট রমজান মাস তৎপর হয়ে উঠেছে ‘ভিক্ষুক চক্র’ মামুনুলের দ্বিতীয় স্ত্রীর ঘরে মিলেছে ৩ ডায়েরি এই ফলগুলো খেয়েই দেখুন!

শিক্ষা জাতীয় করন নিয়ে মনের কষ্ট ফেসবুকের মাধ্যমে ব্যক্ত করলেন অধ্যক্ষ এস এম তাইজুল ইসলাম

শিক্ষা জাতীয় করন। এই বিষয়টি এত লেখা লেখি হওয়ার পরও মাননীয় শিক্ষা মন্ত্রী বলেন এটা নিয়ে গবেষণা করতে হবে। এই দেশে কি গবেষক আছে? তা হলেকি এত বছর শিক্ষা ব্যবস্থা এরকম থাকে? পাশাপাশি ভারত, তাদের অনেক গবেষক আছে সে কারনে তারা শিক্ষা কে প্রথমেই প্রাধান্য দিয়েছে। আমরা কি সেখান থেকে কোন শিক্ষা নিয়েছি?ভারত আজ শিক্ষা ক্ষেত্রে কোথায় অবস্থান করছে,আর আমরা কেথায়? তারা উৎপাদন মুখী শিক্ষা দিয়ে থাকে। এটা তাদের গবেষণার ফল।

আমাদের দেশের মন্ত্রী, এম পি আমলার কোন সন্তান এই দেশে পড়ে না।তারা সব বিদেশে পড়া লেখা করে। আমরা যারা আছি, ওনাদের খুশি হলে দুই টাকা বেতন বাড়িয়ে দেয়,তার জন্য ও রাজপথে মার খাওয়া লাগে।

কার কাছে বলবেন? স্বাধীনতার ৫০ বছর পর শিক্ষা মন্ত্রীর বোধহয় হয়েছে শিক্ষা জাতীয় করন করা যায় কিনা এটা নিয়ে গবেষণা করতে হবে।
আমরা একটা হিসাব পযর্ন্ত তাদের কাছে দিয়েছি,সেখানে বলেছি ২০টাকার বেতন ৫০ টাকা করে দিন।রাষ্ট্রের একটি টাকাও অতিরিক্ত ব্যয় হবে না। ভৌত অবকাঠামো কোন অর্থ দিতে হবে না। সকল বৈষম্য দূরকরতে হলে এর বিকল্প কোন পথ খোলা নাই।

আর আমাদের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক সংগঠনের নেতারা এক হয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে গিয়ে সব কথা বুঝিয়ে বলতে পারেন না।কারন সব এক হয়ে গেলে সামনে নমিনেশন পাওয়ার প্রতিযোগিতায় কেউ কেউ পিছিয়ে যেতে পারে। সেই জন্য তারা এক হচ্ছে না।কারন তারাতো অবসরপ্রাপ্ত, এখন কি করবে বর্তমানদের কথা ভেবে তাদের লাভকি? এজন্য এক হতে পারছেন না। তা নাহলে জাতীয় সার্থে এক হওয়া যাবেনা কেন?

আজ ৭ই মার্চ আলোচনায় বলেছি, দেখ, জাতীয় সার্থে দেশের মানুষ এক ডাকে সবাই সারা দিয়ে ঝাপিয়ে পড়ল জাতির জনকের কথায়। অথচ তার হাতে কিছুই ছিল না, কিন্তু বলেছে আজ হতে চলবেনা গাড়ি, ষ্টিমার,রেলগাড়ী, কিছুই চলে নাই,১ তারিখে শ্রমিকরা বেতন নিয়ে আসবেন, তাই হয়েছে।কিন্তু ক্ষমতা ছিল পাকিস্তানের হাতে।

আজ স্বাধীন দেশে বাসকরে শিক্ষক সমাজ অবহেলিত। জাতির জনক কি এটা চেয়ে ছিলেন? মাননীয় শিক্ষা মন্ত্রীকে বিষয়টি ভেবে দেখার জন্য বিনীত অনুরোধ জানাই। আমার লেখায় কোন শিক্ষক দুঃখ কষ্ট পেলে আমি সে জন্য সবিনয়ে ক্ষমা প্রার্থনা করছি।

 

লেখক :  এস এম তাইজুল ইসলাম

অধ্যক্ষ

গুঠিয়া আইডিয়াল ডিগ্রি কলেজ, ঊজিরপুর, বরিশাল।

এস এম তাইজুল ইসলাম

                   এস এম তাইজুল ইসলামের ফেসবুকে ব্যক্ত পোস্ট এর কপি

দৈনিক বাংলার ঐতিহ্য’

Please Share This Post in Your Social Media

দেশের সংবাদ নিউজ পোটালের সেকেনটের ভিজিটর

38442357
Users Today : 568
Users Yesterday : 1265
Views Today : 7329
Who's Online : 34
© All rights reserved © 2011 deshersangbad.com/
Design And Developed By Freelancer Zone