শনিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২০, ০২:৩৩ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
শীতের আগমনী বার্তা নিয়ে গরম কাপড়ের কদর  বেড়েছে বরিশালে।  শাহসুফি সৈয়দ ক্বারী অাব্দুল মান্নান শাহ( রাঃ) এর বার্ষিক ওরশ ও ঈদে মিলাদুন্নবী( সাঃ) সম্পন্ন। শিবগঞ্জে মামলার প্রতিবাদ ও ধর্ষণের চেষ্টা মামলার সুষ্ঠ তদন্ত চেয়ে সংবাদ সম্মেলন শিবগঞ্জে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে মা ও ছেলেকে লাঞ্চিতের অভিযোগ ডা. মিলনের রক্তের সাথে বেঈমানি করবেন না : মোমিন মেহেদী ঝালকাঠি সদর থানার ওসি খলিল মানবিক সেবায় অনন্য।মাদক সেবীদের আতঙ্ক ।  বেনাপোল ইমিগ্রেশনে আটকা পড়েছে করোনা সনদ না থাকায় পাসপোর্ট যাত্রীরা তারেক রহমানের ৫৬তম জন্মদিন উপলক্ষে গাবতলীতে যুবদলের উদ্যোগে দোয়া মাহফিল ব্যারিস্টার এসএম সাইফুল্লাহ রহমান কেন্দ্রীয়  যুবলীগের সদস্য মনোনীত হওয়ায় ঘোষেরপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের শুভেচ্ছা সাঁথিয়ায় ধুলাউড়ি গণহত্যা দিবস পালিত নলছটিরি নাচনমহল ইউনযি়ন পরষিদরে চয়োরম্যান র্প্রাথী মাসুম বল্লিাহ শক্ত অবস্থানে মাঠ।ে বিরামপুরে পাকা রাস্তার কাজের অনিয়ম দেখার দ্বায়িত্বে কে! দুমকিতে দেশী-বিদেশী মদসহ যুবক আটক সাবেক সেনা সদস্যের বাড়ি থেকে যুবকের মরদেহ উদ্ধার বেরোবিতে দুর্নীতির খবর ঢাকতে উপেক্ষিত তথ্য অধিকার আইন

শীতের আগমনী বার্তা নিয়ে প্রায় একযুগ পর আবার দূর্গাসাগরে পাখিদের মেলা মনির হোসেন,বরিশাল ব্যুরো ॥

বরিশালের ঐতিহ্যবাহী দূর্গাসাগরে ঝাঁকে ঝাঁকে
অতিথি পাখি আসছে। অতিথি পাখিদের কলকাকলিতে
মুখর দূর্গাসাগর। প্রায় একযুগ পর হাজারো মাইল পাড়ি
দিয়ে প্রজননের জন্য ছুটে আসা অতিথি পাখির খাবারের
চাহিদা পূরণ করতে জেলা প্রশাসক গ্রহণ করেছে অভিনব
কৌশল। বিভিন্ন স্থান থেকে সংগ্রহ করে দীঘির জলে ও পাড়
ঘেঁষে প্রায় ৫০ হাজারের অধিক শামুক ঝিনুক ছাড়া
হয়েছে। ফলে শীত মৌসুমে আগত অতিথি পাখি এবং
হাসের খাবারের চাহিদা পূরণ হবে। এতে সার্বিক
সহযোগিতা করেন উজিরপুর ও বাবুগঞ্জ উপজেলা প্রশাসন।
খাদ্যের অভাবে যেন অতিথি পাখির প্রজননে কোনরূপ
বাঁধা সৃষ্টি না হয় এবং তারা যেন এখান থেকে চলে না
যায় সেজন্যই এ অভিনব উদ্যোগ করা হয়েছে বলে জেলা
প্রশাসন সূত্র জানিয়েছে। জেলা প্রশাসক এস.এম.
অজিয়র রহমান জানান, দুর্গাসাগরে ভারসাম্যপূর্ণ
ইকোসিস্টেম তৈরি করার জন্য সংযুক্ত করা হয়েছে শামুক,
ঝিনুক।
জেলা প্রশাসক এস.এম অজিয়র রহমান বরিশালে যোগদানের
পর থেকেই জেলা উন্নয়ন ও সরকারের এজেন্ডা বাস্তবায়নে
নানাবিধ কর্মসূচী গ্রহণ করেছেন। বিশেষ করে জেলার
পর্যটন স্পট সমূহের উন্নয়নে বিভিন্ন কার্যক্রম হাতে
নিয়েছে। যার মধ্যে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ পর্যটন স্পট
ঐতিহ্যবাহী দুর্গাসাগর দীঘিকে আকর্ষণীয় করে গড়ে

তুলতে ইতোমধ্য নানাবিধ কার্যক্রম হাতে নিয়েছে।
দুর্গাসাগরের মধ্যবর্তী দ্বীপকে আরো বেশি দৃষ্টিনন্দন
ও আকর্ষণীয় করে সাজানোর জন্য রোপণ করা হয়েছে দেশীয়
নানা প্রজাতির বাঁশ এবং বিভিন্ন প্রজাতির ফুলের
গাছ। ফুল গাছের মধ্যে অন্যতম হচ্ছে দ্বীপের চারপাশের
জলরাশিতে শাপলা এবং দ্বীপের মাঝে নানা রঙ্গের পদ্ম, গাদা,
কলাবতী, হাসনা-হেনাসহ নানা ধরণের শীতকালীন ফুল।
এছাড়াও, দীঘির জলে অবমুক্ত করা হয়েছে বিভিন্ন
প্রজাতির মাছ, দীঘির জলে খেলা করছে পদ্মের পাশাপাশি লাল
সাদা শাপলা, বাহারি নৌকা, দ্বীপের মাঝে ফুলের বাগান,
সদ্য নির্মিত ডিসি মঞ্চ, পিকনিক স্পট। বর্তমানে
নির্মাণাধীন রয়েছে শিশুদের জন্য শিশু পার্ক এবং দক্ষিণ
বাংলার কৃষক কুলের নয়ন মনি শহীদ আবদুর রব
সেরনিয়াবাত এর নামে রেস্টহাউজ।
প্রলয়ংকারী ঘূর্ণিঝড় সিডরের পরে দুর্গাসাগর
দীঘিতে প্রায় এক যুগ পর পরিযায়ী অতিথি পাখির দেখা
মিলেছে। দুর্গাসাগরে পরিযায়ী পাখির পাশাপাশি দেখা
মিলছে দেশি প্রজাতির হাস, রাজা হাস, দেশি-বিদেশি
প্রজাতির পাখি, বানর, শতাধিক কবুতর, হরিণ। বিষয়টি
জানতে পেরে প্রতিদিন পাখি দেখতে ছুটে যাচ্ছেন
বিভিন্ন বয়সের প্রকৃতি ও পাখি প্রেমী মানুষ।
জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, খুব শীঘ্রই বাংলাদেশ
পর্যটন কর্পোরেশন ও জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে গৃহীত
উন্নয়ন প্রকল্পের কার্যক্রম শুরু করা হবে।

মাস্ক পরাকে সামাজিক
আন্দোলনে পরিনত করতে হবে

– বিএমপি কমিশনার

মনির হোসেন,বরিশাল ব্যুরো ॥
মহামারী করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে স্বাস্থ্যবিধি মেনে
সবাইকে সচেতন হতে হবে। নিয়ম মেনে মাস্ক পরে সবাইকে মাস্ক
ব্যবহারের প্রতি উদ্ধুদ্ধ করতে হবে। শপিং মল, দোকানে ক্রেতা
বিক্রেতা ও বিভিন্ন সেবা মুলক প্রতিষ্ঠানে সেবা দাতা এবং
সেবা গ্রহীতাকে মাস্ক ব্যবহার করতে হবে। মাস্ক পরাকে একটি
সামাজিক আন্দোলনে পরিনত করতে হবে। তাহলেই আমরা
করোনাকে কমিয়ে সহনশীল মাত্রায় রেখে আমাদের জীবনযাত্রাকে
পরিচালিত করতে পারব। বরিশাল কোতয়ালী মডেল থানার আয়োজনে
বুধবার (১৮ নভেম্বর) সকাল সাড়ে ১০ টায় বরিশাল সার্কিট
হাউজের সামনে অনুষ্ঠিত করোনা প্রতিরোধে মাস্ক ব্যবহারে
সচেতনতামূলক এক বর্ণাঢ্য র‌্যাালীর উদ্ধোধনকালে এ সব কথা
বলেন বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশ (বিএমপি) কমিশনার মোঃ
শাহাবুদ্দিন খান (বিপিএম-বার)। র‌্যালীটি সদর রোড হয়ে জেল
খানার মোড় অতিক্রম করে পুনরায় নগরীর অশ্বিনী কুমার টাউন হল
চত্বরে এসে শেষ হয়।
র‌্যালী শুরুর পূর্বে বিএমপি কমিশনার সাধারন পথচারী, রিকশা চালক,
শ্রমিক ও অটোরিক্সা চালকদের মাঝে মাস্ক বিতরণ করেন এবং
বিভিন্ন যানবাহনে করোনা প্রতিরোধে সচেতনতা মুলক স্টিকার
লাগিয়ে দেন।
এ সময় তিনি বলেন, চলতি শীতের সময় দেশে মহামারী করোনা
ভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউ আসতে পারে। এ সময় আমাদের সবাইকে
নিজেদের স্বাস্থ্যের প্রতি বিশেষভাবে নজর রাখতে হবে যাতে
অসচেতনতার কারনে কেউ করোনায় আক্রান্ত না হই। এ মহামারীর
হাত থেকে আমাদের নিজেদের রক্ষা করার পাশাপাশি পরিবারের
সদস্যদের প্রতিও বিশেষ দৃষ্টি রাখার আহবান জানান তিনি।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন, অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার প্রলয়
চিসিম, উপ-পুলিশ কমিশনার (সাপাই এন্ড লজিষ্টিকস) মোঃ
জুলফিকার আলী হায়দার, উপ-পুলিশ কমিশনার (সদর দপ্তর) আবু
রায়হান মুহাম্মদ সালেহ, উপ-পুলিশ কমিশনার (দক্ষিণ) মোঃ
মোকতার হোসেন, উপ-পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) মোঃ জাকির
হোসেন মজুমদার, উপ-পুলিশ কমিশনার (উত্তর) মোঃ খাইরুল আলম,
উপ-পুলিশ কমিশনার (নগর বিশেষ শাখা) মোঃ জাহাঙ্গীর মলিক,
অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (দক্ষিণ) মোঃ জাকারিয়া রহমান
জিকু, অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (উত্তর) মোঃ ফজলুল করিম,
কোতয়ালী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ নুরুল
ইসলাম সহ বিভিন্ন কর্মকর্তাবৃন্দ।
ক্যাপশনঃ
বরিশালে করোনা প্রতিরোধে মাস্ক ব্যবহারে সচেতনতামূলক
র‌্যালীতে উপস্থিত বিএমপি কমিশনার মোঃ শাহাবুদ্দিন খান
(বিপিএম-বার)সহ কর্মকর্তাবৃন্দ

Please Share This Post in Your Social Media

দেশের সংবাদ নিউজ পোটালের সেকেনটের ভিজিটর

37869121
Users Today : 4320
Users Yesterday : 2663
Views Today : 14151
Who's Online : 116
© All rights reserved © 2011 deshersangbad.com/
Design & Developed BY Freelancer Zone