দেশের সংবাদ l Deshersangbad.com » শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী আলো এবার রাসিকের কাউন্সিলর পদপ্রার্থী



শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী আলো এবার রাসিকের কাউন্সিলর পদপ্রার্থী

৭:৩১ পূর্বাহ্ণ, জুলা ১২, ২০১৮ |জহির হাওলাদার

266 Views

 

নিজস্ব প্রতিবেদক–

রাজশাহী সিটি করপোরেশন (রাসিক) নির্বাচনে ২৯ নং ওয়ার্ডে এবার সাধারণ কাউন্সিলর পদে এক চিহ্নিত শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী নির্বাচন করছেন। নির্বাচন কমিশনে তার মনোনয়নপত্র বৈধ বলেও ঘোষণা হয়েছে। তার প্রতিক লাটিম মার্কা । তবে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এই ধরনের ব্যক্তি কাউন্সিলর নির্বাচিত হলে ওয়ার্ডের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি প্রতিনিয়ত খারাপের দিকেই যাবে।

জানা যায়, আসন্ন রাসিক নির্বচনে এবার ২৯ নং ওয়ার্ডের শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী “আলমগীর হোসেন আলো” এবার লাটিম মার্কা নিয়ে কাউন্সিল পদপ্রার্থী হয়ে ভোট যুদ্ধে অংশ গ্রহন করেছেন। আর তার পক্ষে ভোটের প্রচারনায় কাজ করছে তার মাদক সিন্ডিকেটের সদস্যরা। এ ছাড়াও ২৯ নং ওয়ার্ড যুবলীগ সাধারন সম্পাদক আনার হত্যা এজাহার ভূক্ত আসামী এ মাদক সম্রাট আলো। তার রিরুদ্ধে প্রায় ১০টি মাদক মামলা রয়েছে মতিহার থানায়। যার স্বাক্ষী হিসেবে ৮০০ বোতল ফেন্সিডিলসহ একটি আর্মি রংএর প্রাইভেট কার আটক রয়েছে মতিহার থানায়। অবশ্য ওই ৮০০ বোতল ফেন্সিডিলের মামলার আসামীও সে। নগরীর মতিহার থানার শীর্ষ মাদক ও গরু মহিষ চোরকারবারি আলো ও আক্কাস দুই পার্টনার।

স্থানীয়রা জানান , আলো পূর্বে একজন টেম্পো চালক ও আক্কাস চরের মাদক বহনকারি লেবার ও সে সময়ের চরের ভয়ঙ্কর ছিনতাইকারী। সে সময় বিডিআর- এর ছেড়ো গুলিতে আলোর পার্টনার আক্কাস আহত হওয়ার ঘটনাও রয়েছে । এ ছাড়াও পুরো ডাসমারী এলাকায় ঘরে ঘরে মাদক পৌঁছে দেওয়ার মতো ভাল কাজ ছাড়া আর কোন ভাল কাজ করেনি কাউন্সিলর প্রার্থী আলো। ইতিমধ্যেই কাউন্সির প্রার্থী আলো ঘোষনা দিয়েছে ২৯ নং ওয়ার্ডে সকল ভোট যত টাকা লাগবে সে খরচ করবে।

কাউন্সিলর পদপ্রার্থী চিহ্নিত শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী আলোর নির্বাচনি প্রচারনায় গোল চিহ্নে একই এলাকার মাদক ডিলার ছাদেক । ছাদেক ছাড়াও তার নির্বাচনি প্রচারনায় অত্র এলাকার একাধিক মাদক বিক্রেতাদের সাথে নিয়েই আলো ভোটারদের দ্বারে দ্বারে ভোটে চাইছেন ।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এলাকা বাসীরা জানান, লাটিম মার্কায় ভোট দিতে ২৯ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর পদপ্রার্থী আলো,তার আত্মীয়-স্বজন ও তার মাদক সিন্ডিকেটের সদস্যদের মাধ্যমে এলাকাবাসীদের তার প্রতিক লাটিম মার্কায় ভোট দেওয়ার জন্য নানাভাবে হুমকি-ধামকি দিচ্ছে। এ অবস্থায় এলাকার ভোটাররা আতঙ্কিত হয়ে উঠেছেন। তবে আলো সন্ত্রাসী ও মাদক ব্যবসায়ী হওয়াতে, ভয়ে কেউ এ নিয়ে প্রতিবাদের সাহস পাচ্ছেন না।
তারা বলেন, দেশের ভবিষ্যত প্রজন্ম ছাত্র-যুব সমাজ যখন মাদকের ভয়ঙ্কর ছোবলে ধংসের দারপ্রান্তে ঠিক সে সময় মাদকের লাগাম টেনে ধরার জন্য মাদকের উপর জিরো টলারেন্স ঘোষনা করেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা । তার নির্দেশে শুরু হওয়া দেশ ব্যপি মাদক বিরোধী অভিযান যা আজ প্রযন্ত অব্যাহত রয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় দফায়-দফায় পুলিশ, ডিবি পুলিশ ও র‌্যাবের অভিযানে নগরীর ২৯ নং ওয়ার্ডে শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী আলো-আক্কাসসহ নামধারি মাদক ব্যবসায়ীরা গ্রেফতার এড়াতে কেউ রাজশাহীর বাইরে আবার কেউ পদ্মার চরে গিয়ে আশ্রয় নিয়েছিল। তবে এই মাদক সম্রাট আলো নির্বাচনে প্রার্থী হওয়াতে তার পার্টনার আক্কাসসহ অত্র অঞ্চলের মাদক ব্যবসায়ীরা আরো বেগবান হলো।

গত বছরের ১১ই ফেব্রুয়ারী ৮০০ বোতল ফেন্সিডিলসহ পেছনে থাকা আর্মি রংএর প্রইভেট কারসহ আটোক হয়েছিল এই মাদক সম্রাট আলো। এই আলো মতিহার থানার পুলিশের এএসআই সামিউল মারার প্রধান অাসামী।

তারা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন , আলো হত্যা মামলাসহ একাধীক মাদক মামলার আসামি। এছাড়া যার এখন লুকিয়ে থাকার কথা সে আবার কি এমন জাদু করলো যে, আলো নির্বাচন কমিশন থেকে যাছাই বাছাই পর্বে টিকে গেল। এছাড়া কয়দিন আগেই যাকে প্রশাসনের লোকজন আটক করতে মরিয়া ছিল। সেই অভিযানই বা থেমে গেল কোন কায়দায় এমন প্রশ্ন মুখে মুখে। যদি সত্যি আলোর অসিম ক্ষমতায় টাকার জোরে নির্বাচিত হয়। তাহলে মাদকের স্রোত তো ড্রেন দিয়ে যাবে এমন ব্যঙ্গ কথা বলেও হাসাহাসি করতে দেখা যাচ্ছে ভোটারদের। এ নিয়ে আলোচনার ঝড় বইছে পুরো ২৯ নং ওয়ার্ডে যা বিব্রতকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে।
তবে এ ধরনের প্রার্থী জনপ্রতিনিধি নির্বাচিত হলে এলাকার আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির প্রতিনিয়ত অবনতি হবে বলে মনে করেন সুশাসনের জন্য নাগরিকের (সুজন) সম্পাদক ড. বদিউল আলম মজুমদার। তিনি বলেন, আমরা ভাল প্রার্থী চাই, ভাল নির্বাচন চাই। কোনো সন্ত্রাসী বা মাদক ব্যবসায়ী কাউন্সিলর নির্বাচিত হলে তার এলাকায় এসব কার্যকলাপ বৃদ্ধি পাবে, আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি হবে।

তিনি বলেন, নির্বাচনে আমরা এই ধরনের প্রার্থীদের বিষয়গুলো বিভিন্ন প্রকাশনার মাধ্যমে ভোটারদের সামনে তুলে ধরি। তাদের সচেতন করার চেষ্টা করি। এ ব্যাপারে ভোটারদের ভূমিকা থাকা প্রয়োজন। আমি আশা করি, ভোটাররা কোনো সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ কিংবা মাদক ব্যবসায়ীকে জনপ্রতিনিধি নির্বাচিত করবেন না। তারা সঠিক সিদ্ধান্তই নেবেন।

তবে নির্বাচনে কেউ কোনো ধরনের প্রভাব বিস্তারের চেষ্টা করলে সেটি কঠোর হাতে দমন করা হবে বলে জানান রাজশাহী মহানগর পুলিশের মুখপাত্র ইফতে খায়ের আলম। তিনি বলেন, আমরা প্রার্থীদের সম্পর্কে ডাটা সংগ্রহ করছি। তাঁদের কারো কারো তথ্য আমাদের কাছে আছেও। সে অনুযায়ী প্রয়োজনে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




উপদেষ্টা পরিষদ:

১। ২।
৩। জনাব এডভোকেট প্রহলাদ সাহা (রবি)
এডভোকেট
জজ কোর্ট, লক্ষ্মীপুর।

৪। মোহাম্মদ আবদুর রশীদ
ডাইরেক্টর
ষ্ট্যান্ডার্ড ডেভেলপার গ্রুপ

প্রধান সম্পাদক:

সম্পাদক ও প্রকাশক:

জহির উদ্দিন হাওলাদার

নির্বাহী সম্পাদক
উপ-সম্পাদক :
ইঞ্জিনিয়ার নজরুল ইসলাম সবুজ চৌধুরী
বার্তা সম্পাদক :
সহ বার্তা সম্পাদক :
আলমগীর হোসেন

সম্পাদকীয় কার্যালয় :

১১৫/২৩, মতিঝিল, আরামবাগ, ঢাকা - ১০০০ | ই-মেইলঃ dsangbad24@gmail.com | যোগাযোগ- 01813822042 , 01923651422

Copyright © 2017 All rights reserved www.deshersangbad.com

Design & Developed by Md Abdur Rashid, Mobile: 01720541362, Email:arashid882003@gmail.com

Translate »