মঙ্গলবার, ১৩ এপ্রিল ২০২১, ০৩:৪০ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
খাদ্যপণ্যের বিজ্ঞাপনে একগুচ্ছ নিষেধাজ্ঞা আসছে, থাকছে জেল-জরিমানা হাতে বড় একটি ট্যাবলেট ফোন নিয়ে ডিজিটাল জুয়ার আসরে ব্যস্ত তরুণ-তরুণী রমজানের নতুন চাঁদ দেখে বিশ্বনবী যে দোয়া পড়তেন ফরিদপুরে চাের সন্দেহে গণপিটুনীতে একজন নিহত এটিএম বুথ থেকে তোলা যাবে এক লাখ টাকা যৌবন দীর্ঘস্থায়ী করে যোগ ব্যায়াম ‘শশাঙ্গাসন’ আজ চৈত্র সংক্রান্তি মসজিদে সর্বোচ্চ ২০ জন নিয়ে নামাজ পড়া যাবে অপহরণ করা হয়েছিলো ম্যারাডোনাকে দুপুরে বিএনপির সংবাদ সম্মেলন বসুন্ধরা সিটি শপিংমল খোলা থাকবে মঙ্গলবার উত্তম কুমারের নাতবৌয়ের ভিডিও ভাইরাল রমজান শুরু কবে জানা যাবে সন্ধ্যায় সন্ধ্যায় জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী বিশ্বে করোনায় মৃত্যু ২৯ লাখ ৫৮ হাজার ছাড়ালো

শেখ হাসিনার সুযোগ্য নেতৃত্ব বাংলাদেশকে উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত করেছে: মিজানুর রহমান মিজু

প্রেস বিজ্ঞপ্তি

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুযোগ্য নেতৃত্ব আমাদের প্রিয় মাতৃভূমিকে উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত করতে সবচেয়ে বড় ভূমিকা রেখেছে বলে জানিয়েছেন জাতীয় স্বাধীনতা পার্টি (জেএসপি) এর চেয়ারম্যান জননেতা মিজানুর রহমান মিজু।

আজ ১ মার্চ ২০২১ সোমবার সংবাদ পাঠনো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে মিজানুর রহমান মিজু বলেন, “২৭ ফেব্রুয়ারি স্বল্পোন্নত দেশের তালিকা থেকে উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণে জাতিসংঘের চূড়ান্ত সুপারিশ পেয়েছে বাংলাদেশ। নিউ ইয়র্কে জাতিসংঘের কমিটি ফর ডেভেলপমেন্ট পলিসি বা ইউএন-সিডিপির পাঁচ দিনব্যাপী ত্রিবার্ষিক পর্যালোচনাসভা শেষে শুক্রবার রাতে এই সিদ্ধান্ত জানায়। বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে মহান মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে অর্জিত স্বাধীনতা হল বাঙালি জাতির সবচেয়ে বড় অর্জন। সেই স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীতে ও জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকীতে স্বল্পোন্নত দেশের তালিকা থেকে উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণ নিঃসন্দেহে আমাদের জাতীয় জীবনের অন্যতম সেরা অর্জন। আর জাতির এই গৌরবজনক অর্জনের নেতৃত্ব দিয়েছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা।”

তিনি আরো বলেন, “প্রধানমন্ত্রীর ভাষায়, ‘এ কৃতিত্ব সমগ্র বাংলাদেশের জনগণের।’ কিন্তু সবার সম্মিলিত এ প্রচেষ্টা সফল হয়েছে তাঁর বলিষ্ঠ নেতৃত্বে। ২০০৮-০৯ বছরে জিডিপির আকার ছিল মাত্র ১০৩.৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। ২০১৯-২০ সালে তা ৩৩০.২ বিলিয়ন মার্কিন ডলারে উন্নীত হয়েছে। ২০০৮-০৯ বছরে রপ্তানি আয়ের পরিমাণ ছিল ১৫.৫৭ বিলিয়ন ডলার। আর ২০১৮-১৯ বছরে তা ৪০.৫৪ বিলিয়ন ডলারে বৃদ্ধি পেয়েছে। বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ ২০০৮-০৯ অর্থবছরে ৭.৪৭ বিলিয়ন মার্কিন ডলার থেকে বৃদ্ধি পেয়ে বর্তমানে ৪৪.০৩ বিলিয়ন ডলারে উন্নীত হয়েছে। ২০০১ সালে দেশে দারিদ্র্যের হার ছিল ৪৮.৯ শতাংশ এবং হতদরিদ্রের হার ছিল ৩৪.৩ শতাংশ। ২০১৯ সালে দারিদ্র্যের হার কমে দাঁড়িয়েছে ২০.৫ শতাংশ এবং হতদরিদ্রের হার ১০.৫ শতাংশে। ২০০৯-১০ সালে বিদ্যুতের স্থাপিত ক্ষমতা ছিল পাঁচ হাজার ২৭১ মেগাওয়াট। বর্তমানে বিদ্যুৎ উৎপাদন সক্ষমতা ২৪ হাজার ৪২১ মেগাওয়াটে উন্নীত হয়েছে। বিদ্যুৎ সুবিধাভোগী জনসংখ্যা ৪৭ থেকে বেড়ে ৯৯ শতাংশে দাঁড়িয়েছে। এ সবই অর্জিত হয়েছে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে। তাঁর নেতৃত্বে বাংলাদেশ আজ বিশ্বে উন্নয়নের রোল মডেল।”

জাতীয় স্বাধীনতা পার্টি (জেএসপি) চেয়ারম্যান আলো বলেন, “পদ্মা সেতু আজ দৃশ্যমান। মেট্রোরেল, এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে, কর্ণফুলী টানেল, রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র প্রকল্প, মহেশখালী-মাতারবাড়ী সমন্বিত উন্নয়ন প্রকল্পসহ অনেক ছোট বড় প্রকল্প বাস্তবায়িত হচ্ছে। ১০০টি বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল, দুই ডজনের বেশি হাইটেক পার্ক এবং আইটি ভিলেজ নির্মিত হচ্ছে। উন্নয়নের এই ধারা বজায় থাকলে অল্প সময়ের মধ্যে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলাকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী তাঁর বলিষ্ঠ নেতৃত্বে উন্নত-স্বনির্ভর-সুখী-সমৃদ্ধ বাংলাদেশে পরিণত করবেন বলে আমাদের বিশ্বাস।”

Please Share This Post in Your Social Media

দেশের সংবাদ নিউজ পোটালের সেকেনটের ভিজিটর

38443963
Users Today : 918
Users Yesterday : 1256
Views Today : 11900
Who's Online : 34
© All rights reserved © 2011 deshersangbad.com/
Design And Developed By Freelancer Zone