দেশের সংবাদ l Deshersangbad.com » শৈলকুপায় প্রধান শিক্ষকের দুর্নীতি ঢাকতে সাংবাদিকদের হুমকী প্রদাণ ৮ম শ্রেণী পাশের সনদ পত্র দিয়ে মহা বিপাকে প্রধান শিক্ষক



শৈলকুপায় প্রধান শিক্ষকের দুর্নীতি ঢাকতে সাংবাদিকদের হুমকী প্রদাণ ৮ম শ্রেণী পাশের সনদ পত্র দিয়ে মহা বিপাকে প্রধান শিক্ষক

৯:৩৮ অপরাহ্ণ, মার্চ ১৩, ২০১৮ |জহির হাওলাদার

113 Views

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি \
শৈলকুপার আওধা সম্মিলত মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শুশিল কুমার (মধু) চঞ্চল নামের এক ব্যাক্তি কে ৮ম শ্রেণী পাশের সনদপত্র দিয়ে বিপাকে পড়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ঝিনাইদহ জেলার শৈলকুপা উপজেলার আওধা গ্রামের বিশ্বনাথ কুমার মন্ডলের ছেলে চঞ্চল কুমার মন্ডল ১৯৯৬ সালে নাগিরাট মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ৯বম শ্রেণীতে বানিজ্য শাখায় ভর্তি হয়ে ১৯৯৯ সালের এসএসসি পরিক্ষায় ১ম বিভাগে পাশ করে। যার রোল নম্বর ছিল ২৩৩৫৪৫, রেজি: নম্বর ছিল ৪০৯০৬৮ এবং জন্ম তারিখ ছিল ১৭/৩/১৯৮৩ ইং: সাল। জাতীয় পরিচয়পত্রেও এই সাল লিপিবদ্ধ রয়েছে।অথচ কোন কিছু যাচাই বাচাই না করে প্রধান শিক্ষক শুশিল কুমার চঞ্চল কুমার মন্ডল কে ১/১/১৯৮৯ সালের জন্ম তারিখ দিয়ে ২০০০ সালের ৮ম শ্রেনীর বার্ষিক পরিক্ষায় পাশ করেছে মর্মে একটি সনদ পত্র গত ১৩ই ফেব্রয়ারী তারিখে প্রদান করেন। প্রধান শিক্ষকের দেয়া সনদ পত্র নিয়ে তেতুঁলিয়া গ্রামের মদন কুমার মন্ডল নামের এক ব্যাক্তি ইউনিয়ন পরিষদে চঞ্চলের জন্ম সনদ আনতে গেলে বিষয়টি ধরা পরে। বর্তমানে এই সনদ পত্রটি ইউনিয়ন পরিষদের অফিস সহকারী শাহিন খানের নিকট সংরক্ষিত রয়েছে বলে জানা গেছে। বিষয়টি নিয়ে এলাকায় নানা গুঞ্জন শুরু হয়েছে। এছাড়াও টাকার বিনিময়ে অনেকেরই তিনি এরকম সনদপত্র দিয়ে থাকেন বলে একটি সুত্র জানাই যা সুষ্ট তদন্ত করলে থলের বিড়াল বেড়িয়ে আসবে। এ দিকে বিদ্যালয়ের পরিচালনা পরিষদের ম্যানেজিং কমিরি সভাপতিপ্রধান শিক্ষকের নিকটতম আত্বীয় হওয়ায় তার সাথে সখ্যতা করে ভুয়া মেডিকেল সার্টিফিকেট দেখিয়ে চিকিৎসার জন্য নিয়মিত ভারতে যাতায়াত করছে। প্রধান শিক্ষক ভারতের নদীয় জেলার বেতুয়া লিচুতলা নামক স্থানে একটি আলিশ্বন বাড়ি তৈরি করেছেন। সেখানে তার ছেলে ও মেয়ে বসবাস করে। পারিবারিক কলহের কারনে তার একমাত্র ছেলে গলায় রশি নিয়ে আত্ব্যহত্যা করে। যে কারনে প্রধান শিক্ষক ও তার স্ত্রী সরকারী চাকুরি জীবি রাধা রানী প্রতিনিয়ত চিকৎসার নামকরে কিছুদিন পরপর যেয়ে ভারতের নিজবাড়িতে বসবাস করে থাকে। এব্যাপারে প্রধান শিক্ষক শুশীল কুমারের নিকট জানতে চাইলে তিনি সাংবাদিকদের উপর ক্ষিপ্ত হয়ে বলেন সারা দেশে প্রশ্নপত্র ফাঁস েেহচ্ছ সেখানে শিক্ষামন্ত্রী কি করছে? আমি সভাপতি ও স্থানীয় চেয়ারম্যান নজরুল ইসলামের নির্দেশে দিয়েছি, তাতে আমার জেল ফাঁস যা হয় হবে।

সভাপতি লক্ষিকান্ত মন্ডল জানান, আমি এব্যাপারে কিছুই জানিনা। চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম জানান বিদ্যালয়ে যোগদান করার পর থেকেই প্রধান শিক্ষক শুশীল কুমার নানা অনিয়মের সাথে জড়িত। স্থানীয় পলাশ মেম্বর জানান, প্রধান শিক্ষক সব কিছু জানার পর সে কেন এসব অনিয়ম করে তা আমার জানা নেই। তবে সনদ পত্রের বিষয়টি প্রধান শিক্ষক আমাকে সমাধানের জন্য বলেছেন। তাছাড়া সে প্রতিনিয়ত ভারতে যাতায়াত করে সত্য যে কারনে প্রশাসনিক কার্যক্রম ব্যাহত হচ্ছে। এদিকে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিদ্যালয়ের কয়েকজন শিক্ষক জানান, এরকম অনিয়ম করার কারনে শিক্ষকদের সাথে তার প্রায় মতমালিন্য সৃষ্টি হয়। যে কারনে শিক্ষকরা তার উপর নাখোশ। উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা শাশীম হোসেন জানানএরকম অভিযোগ পেলে অবশ্যই ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে আইন গত ভাবে ব্যাবস্থা নেওয়া হবে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: ওসমান গনির মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করলে ফোন রিসিভ না করাই তাহার মন্তব্য পাওয়া যায়নি।

Spread the love

৭:২৯ পূর্বাহ্ণ, ডিসে ১২, ২০১৮

নির্বাচন থেকে পিছু হটবে না বিএনপি...

18 Views
27 Views
96 Views

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




উপদেষ্টা পরিষদ:

১। ২।
৩। জনাব এডভোকেট প্রহলাদ সাহা (রবি)
এডভোকেট
জজ কোর্ট, লক্ষ্মীপুর।

৪। মোহাম্মদ আবদুর রশীদ
ডাইরেক্টর
ষ্ট্যান্ডার্ড ডেভেলপার গ্রুপ

প্রধান সম্পাদক:

সম্পাদক ও প্রকাশক:

জহির উদ্দিন হাওলাদার

নির্বাহী সম্পাদক
উপ-সম্পাদক :
ইঞ্জিনিয়ার নজরুল ইসলাম সবুজ চৌধুরী
বার্তা সম্পাদক :
সহ বার্তা সম্পাদক :
আলমগীর হোসেন

সম্পাদকীয় কার্যালয় :

১১৫/২৩, মতিঝিল, আরামবাগ, ঢাকা - ১০০০ | ই-মেইলঃ dsangbad24@gmail.com | যোগাযোগ- 01813822042 , 01923651422

Copyright © 2017 All rights reserved www.deshersangbad.com

Design & Developed by Md Abdur Rashid, Mobile: 01720541362, Email:arashid882003@gmail.com

Translate »