রবিবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ০২:৫১ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
নড়াইলের নবাগত পুলিশ সুপারের সাথে জেলা মাদ্রাসা শিক্ষক সমিতির মতবিনিময়। কুলিয়ারচরে দড়িগাঁও সরঃ প্রাঃ বিদ্যালয়ের নবগঠিত পরিচালনা পর্ষদের অভিষেক সভা অনুষ্ঠিত দেশের ২০ জেলায় ২৯ পৌরসভায় ভোট আজ দীর্ঘ এক বছর বন্ধ থাকার পর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলছে ৩০ মার্চ কোম্পানিগঞ্জে মুজাক্কিরের কবর জিয়ারত করেছেন বিএমএসএফ নেতৃবৃন্দ চরমোনাই মাহফিল থেকে ফেরার পথে মুসল্লিবাহী ট্রলারডুবি স্ত্রীসহ জাতীয় পঙ্গু হাসপাতালের চিকিৎসকের বিরুদ্ধে মামলা ধানমন্ডিতে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রীর মৃত্যু নিয়ে ধুম্রজাল নিয়ন্ত্রণে এসেছে কারওয়ান বাজারের হাসিনা মার্কেটের আগুন রাত পোহালেই ২৯ পৌরসভায় ভোট রৌমারীতে প্রয়াস নাট্য সংঘের ৬ষ্ঠ প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত পেঁপে চাষে চাষে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে কৃষকের সোনালি স্বপ্ন উলিপুরে ট্রাকের ধাক্কায় শিশু নিহত অবিলম্বে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিল করে সমালোচনা সইবার সৎসাহসের পরিচয় দিন: টিআইবি মার্চ ফর ডেমোক্রেসির ৬২তম দিনে রংপুরে হানিফ বাংলাদেশী আগামীকাল যাবেন কুড়িগ্রামে

সহকারী শিক্ষিকার সহায়তায় বরিশালে প্রধানশিক্ষকের লালসায় অন্তঃস্বত্তা ছাত্রী

বরিশাল ব্যুরো \ সহকারী শিক্ষিকার সহায়তায় প্রধানশিক্ষকের লালসার শিকার হয়ে অন্তঃস্বত্তা চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রী মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। খবর পেয়ে জেলা পুলিশ সুপার সাইফুল ইসলাম অন্তঃস্বত্তা ওই ছাত্রীকে শেবাচিমে দেখতে গিয়েছিলেন।
শনিবার সকালে তিনি সাংবাদিকদের জানান, ওই ছাত্রীর সার্বিক বিষয়ে তিনি খোঁজখবর নিয়ে তার চিকিৎসার ব্যয় বহনের দায়িত্ব নিয়েছেন। পাশাপাশি এ ব্যাপারে যথাযথ আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ারও প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। শেবাচিম হাসপাতালের প্রসূতি বিভাগের সহকারী রেজিস্ট্রার ডাঃ মৃদুলা কর জানান, পরীক্ষা-নিরীক্ষার পরই নির্যাতিতার শারীরিক অবস্থা জানা যাবে। তিনি আরও জানান, অপরিণত বয়সে অন্তঃস্বত্তা হওয়ায় ওই ছাত্রীর জীবন ঝুঁকিতে রয়েছে। নির্যাতিতা ছাত্রীর মা জানান, গত ১০ ডিসেম্বর রাতে তার ১২ বছরের স্কুল পড়–য়া কন্যাকে শেবাচিম হাসপাতালের প্রসূতি বিভাগে ভর্তি করার পর বেশকিছু পরীক্ষা-নিরীক্ষা করাতে দেয়া হয়েছে। কিন্তু টাকার অভাবে তারা এখনও কোনো পরীক্ষা-নিরীক্ষা করাতে পারেননি।
হাসপাতালে শষ্যাশয়ী জেলার বাকেরগঞ্জ উপজেলার ভোজমহল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেনীর ছাত্রী জানায়, প্রায় নয় মাস আগে স্কুলের সহকারী শিক্ষিকা রেবা খানমের সহায়তায় দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রধানশিক্ষক বাবুল হোসেন তার অফিস কক্ষে ডেকে নিয়ে জোরপূর্বক তাকে ধর্ষণ করে। পরবর্তীতে প্রায় প্রতিদিনই তাকে ধর্ষণ করা হতো। এসময় বাহিরে পাহারায় থাকতো শিক্ষিকা রেবা খানম। বিষয়টি কাউকে জানালে তাকে (ছাত্রী) প্রাণে মেরে ফেলারও হুমকি দেয়া হয়। ধর্ষণে গর্ভবতী হওয়ার চার মাস পর বিষয়টি ওই ছাত্রীর মা বুঝতে পেরে মেয়েকে জিজ্ঞাসা করলে সে তার মায়ের কাছে সব খুলে বলে। এরপর ভোজমহল গ্রামের দরিদ্র পরিবারের সন্তান ওই ছাত্রীর মা স্কুলে গিয়ে সকল শিক্ষকের কাছে বিষয়টি জানালে তারা তাকে বিভিন্ন ধরনের ভয়ভীতি প্রদর্শন করে। বিষয়টি স্থানীয়ভাবে জানাজানি হলে প্রতিবেশী জুয়েল হাওলাদার ও রনি খালি বাসায় ঢুকে ওই ছাত্রীকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। এ ঘটনায় নির্যাতিতার মা প্রতিবাদ করায় তাকে মারধর করা হয়।
পরবর্তীতে উল্লেখিত ঘটনায় গত ২২ আগস্ট ওই ছাত্রীর মা বাদি হয়ে বাকেরগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। নির্যাতিতার মা অভিযোগ করেন, স্থানীয় প্রভাবশালীদের চাঁপের মুখে ধর্ষণকারী শিক্ষক, রনি ও সহায়তাকারী শিক্ষিকার নাম মামলা থেকে বাদ দিতে বাধ্য হয়েছে থানা পুলিশ। নির্যাতিতা ওই শিশু চার ভাইবোনের মধ্যে ছোট। তার মা গৃহকর্মীর কাজ করেন এবং বাবা শাক তুলে তা বিক্রি করেন।
বাকেরগঞ্জ থানার ওসি আবুল কালাম বলেন, নির্যাতিতার মায়ের দায়ের করা মামলায় জুয়েল হাওলাদার নামের আসামিকে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। অভিযোগ অস্বীকার করে ভোজমহল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অভিযুক্ত দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রধানশিক্ষক বাবুল হোসেন সাংবাদিকদের বলেন, আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র হচ্ছে।

Please Share This Post in Your Social Media

দেশের সংবাদ নিউজ পোটালের সেকেনটের ভিজিটর

38335979
Users Today : 1782
Users Yesterday : 4300
Views Today : 7074
Who's Online : 31
© All rights reserved © 2011 deshersangbad.com/