শনিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২০, ১১:০২ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
শীতের আগমনী বার্তা নিয়ে গরম কাপড়ের কদর  বেড়েছে বরিশালে।  শাহসুফি সৈয়দ ক্বারী অাব্দুল মান্নান শাহ( রাঃ) এর বার্ষিক ওরশ ও ঈদে মিলাদুন্নবী( সাঃ) সম্পন্ন। শিবগঞ্জে মামলার প্রতিবাদ ও ধর্ষণের চেষ্টা মামলার সুষ্ঠ তদন্ত চেয়ে সংবাদ সম্মেলন শিবগঞ্জে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে মা ও ছেলেকে লাঞ্চিতের অভিযোগ ডা. মিলনের রক্তের সাথে বেঈমানি করবেন না : মোমিন মেহেদী ঝালকাঠি সদর থানার ওসি খলিল মানবিক সেবায় অনন্য।মাদক সেবীদের আতঙ্ক ।  বেনাপোল ইমিগ্রেশনে আটকা পড়েছে করোনা সনদ না থাকায় পাসপোর্ট যাত্রীরা তারেক রহমানের ৫৬তম জন্মদিন উপলক্ষে গাবতলীতে যুবদলের উদ্যোগে দোয়া মাহফিল ব্যারিস্টার এসএম সাইফুল্লাহ রহমান কেন্দ্রীয়  যুবলীগের সদস্য মনোনীত হওয়ায় ঘোষেরপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের শুভেচ্ছা সাঁথিয়ায় ধুলাউড়ি গণহত্যা দিবস পালিত নলছটিরি নাচনমহল ইউনযি়ন পরষিদরে চয়োরম্যান র্প্রাথী মাসুম বল্লিাহ শক্ত অবস্থানে মাঠ।ে বিরামপুরে পাকা রাস্তার কাজের অনিয়ম দেখার দ্বায়িত্বে কে! দুমকিতে দেশী-বিদেশী মদসহ যুবক আটক সাবেক সেনা সদস্যের বাড়ি থেকে যুবকের মরদেহ উদ্ধার বেরোবিতে দুর্নীতির খবর ঢাকতে উপেক্ষিত তথ্য অধিকার আইন

সাভারে ব্যাটারি চালিত অটোরিক্সার দৌরাত্বে অতিষ্ঠ এলাকাবাসী

ব‍্যাংক টাউনে অবাধে চলছে অবৈধ অটোরিকশা মোড়ে মোড়ে দোকানে দোকানে তৈরি হয়েছে অটোরিকশার গ‍্যারেজ

সাভার ব‍্যুরো চীফ রিপোর্টার (জুয়েল খান):- সাভার উপজেলার ব‍্যাংক টাউন নামাগেন্ডা বটতলা রোডে দিন দিন বেড়ে চলেছে অবৈধ অটোরিকশার দৌরাত্ব ব‍্যাংক টাউন সাভার উপজেলার একটি ব্যস্ততম এলাকা । যেখানে যানজট সব সময় লেগেই থাকে। এর মধ্যে বর্তমানে অবাধে বেড়েছে অবৈধ ব্যাটারিচালিত অটোরিকশার চলাচল । এটা নিয়ন্ত্রণে পৌর কর্তৃপক্ষ কিংবা ট্রাফিক বিভাগের কার্যত কোনো উদ্যোগ নেই। উচ্চ আদালতের নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও সাভার পৌর শহরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়ক ও এলাকার সড়কে দিব্যি দাপিয়ে বেড়াচ্ছে কয়েক হাজারেও বেশি ব্যাটারিচালিত অবৈধ অটোরিকশা। উচ্চগতিসম্পন্ন এসব মোটরচালিত রিকশায় প্রতিনিয়ত দুর্ঘটনার আশঙ্কায় দিন গুনছে প্রতিনিয়ত বাচ্চা ও স্কুল গামী ছাএ ছাএীদের অভিভাবকেরা তা ছাড়া এসব রিকশার ব্যাটারি অবৈধ পন্থায় চার্জ করা হয়। তাতে বিদ্যুতের অপচয় বাড়ছে। যে কারণে অফ-পিক আওয়ারেও লো-ভল্টেজ, লোডশেডিং তথা বিদ্যুৎ সরবরাহে বিঘ্ন সৃষ্টি হচ্ছে। জানা যায়, চলতি বছরে সাভার ব‍্যাংক টাউনের নামাগেন্ডায় রেকর্ডসংখ্যক ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা বেড়েছে। পৌর শহরের প্রধান সড়কসহ ৯টি ওয়ার্ডের সব কটি সড়কে দেড় সহস্রাধিক নিবন্ধনহীন ব্যাটারিচালিত রিকশা চলাচল করছে। গুরুত্বপূর্ণ এসব সড়ক ছাড়াও শহরের বাইরে বিভিন্ন ইউনিয়নের সড়কে দুই সহস্রাধিক ব্যাটারিচালিত রিকশা চলাচল করছে। আদালতের নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও তিন শতাধিক ব্যাটারিচালিত রিকশা পৌরসভা ও বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদে চলাচল করছে। যার অধিকাংশই নিবন্ধনহীন। অবৈধ এসব রিকশা উচ্ছেদ ও নিয়ন্ত্রণে পৌর কর্তৃপক্ষ কিংবা ট্রাফিক পুলিশের কোনো ভূমিকাই নেই। পৌর শহরের একাধিক অটোরিকশাচালকের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, সমিতির নাম করে কয়েকটি সিন্ডিকেটচক্র রিকশাচালকদের কাছ থেকে চাঁদা আদায় করে। এসব থেকে ট্রাফিক পুলিশকে মোটা অঙ্কের মাসোয়ারা দেওয়া হয় বলে জানা গেছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক পৌরসভার নিবন্ধিত একাধিক রিকশাচালক জানান, ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা পরিবহন শ্রমিক সমিতির সদস্য হওয়ার জন্য তিন শ টাকা এবং পরিবহন কার্ডের জন্য এক শ টাকা নেওয়া হয়। তা ছাড়া তিন হাজার টাকা দিয়ে দুই মাস আগে পৌরসভার নিবন্ধন পেয়েছেন। এদিকে নিবন্ধনহীন একাধিক রিকশাচালকের কাছে জানতে চাইলে বলেন, নিবন্ধন এখন পৌরসভা দিচ্ছে না। সমিতিকে টাকা দিয়ে কার্ড নিয়ে রিকশা চালাচ্ছি। সমিতির নাম জানতে চাইলে তাঁরা প্রকাশ করতে রাজি হননি। সাভার উপজেলার পৌর শহরের ব‍্যাংক টাউনের বটতলা রোড থেকে ব‍্যাংক টাউনে গতরাতে গিয়ে দেখা যায়, কয়েকটি দোকান ভাড়া নিয়ে ভেতরে ১০টি অটোরিকশা চার্জ দেওয়া হচ্ছে। নিও নতুন বড় বড় গ‍্যরেজও চোখে পড়ার মত সেখানে উপস্থিত রিকশামালিকরা জানান, এসব দোকানে ও অটোরিকশা গ‍্যরেজে সারা রাত রিকশা চার্জ দেওয়া হয়।এস আলম সুমন, রিপন দেব, ইকবাল আহমদসহ একাধিক স্থানীয় বাসিন্দা জানান, এ বছর উপজেলার পৌর শহরসহ বিভিন্ন এলাকায় অবাধে অটোরিকশা বৃদ্ধি পেয়েছে। ব্যাটারিচালিত অটোরিকশার দাপটে পাচালিত রিকশা এখন একেবারে না দেখা যাওয়ার মত। তাই বাধ্য হয়েই জীবনের ঝুঁকি নিয়ে এসব রিকশায় চলাচল করতে হয়। মোটরচালিত রিকশা দ্রুতগতির হওয়ায় অদক্ষ চালকরা বেপরোয়াভাবে চালাতে গিয়ে প্রায়ই ছোট-বড় দুর্ঘটনা ঘটে। সম্প্রতি সাভার উপজেলার নামা গেন্ডার ফিরোজা সুপার মার্কেটের স্মমূখে এলাকায় দুটি অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষে তিনজন গুরুতর আহত হন তার ভেতর সাড়ে চার বছরের শিশু খান
সাভার ও আশুলিয়ায় ব্যাটারি চালিত অটোরিক্সার দৌরাত্বে অতৃস্ট এলাকা বাসী। এই শহরে প্রতিদিন ১২ থেকে ১৫ হাজার অটোরিক্সা চলাচল করে। অটোরিক্সার কারণে এলাকার জনগনের স্বাভাবিক চলাচল এক প্রকার বন্ধ হয়ে গেছে। মহাসড়ক গুলো অধিকাংশ সময় যানযট বাধে। এই অটোরিক্সার নিয়ন্ত্রনে নেই কোন উদ্যেগ।ফলে সাভার ও আশুলিয়া বাসী এই অটোরিক্সার দৌরাত্বে এক প্রকার জিম্মি হয়ে পড়েছে। যত দিন যাচ্ছে অটো রিক্সার পরিমান ততই বৃদ্ধি পাচ্ছে। এর পাশাপাশি রয়েছে ১০ সিটের অটো এগুলোও মহাসড়কের মধ্যে চলাচল করে। এই সকল রিক্সার হাইড্রোলিক হর্ন গুলো এলাকার মহল্লায় শব্দদুষন করে চলছে। মেশিন দ্বারা এই রিক্সা চলাচলের কারনে অদক্ষ চালক অনেক সময় রিক্সা নিয়ন্ত্রন করতে পারে না ফলে ঘটে দুর্ঘটনা ঘটে। সাভার বাসীকে এখন এক প্রকার ঝুকির মধ্যে মহাসড়কে চলাচল করতে হয়। এর সাথে মাত্রাতিরিক্ত ভাড়া। ভাড়া নিয়ে যাত্রীর সাথে রিক্সা চালকদের তর্ক বিতর্ক এখন নিত্য নৈমত্তিক বিষয় হয়ে দাড়িয়েছে। রোদ,ঝড়,বৃষ্টি এবং বিশেষ দিনগুলিতে এরা এক প্রকার জিম্মি করে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করে। সম্প্রতি এর পরিমান দ্বিগুন বেড়ে গেছে। অফিস টাইমে একদিকে অফিসমুখী মানুষ অন্য দিকে স্কুল কলেজগামী শিক্ষার্থী যার যার গন্তব্যর পথে বের হওয়ায় সৃষ্টি হয় তীব্র যানযটের । এই যানযট নিরসনে হীমশিম খেতে হয় ট্রাফিক পুলিশ এবং পৌর পুলিশের। কয়েকদিন আগে অটোরিক্সার দুর্ঘটনায় মারাত্বক ভাবে আহত হয় জামগড়া এলাকার পোশাক কারখানার এক শ্রমিক। সাভার ও আশুলিয়ায় কতগুলো ব্যাটারি চালিত অটোরিক্সার রয়েছে তার সঠিক কোন পরিসংখ্যান কারো কাছে নেই।আশুলিয়া থানা রিক্সা/ভ্যান মলিক সমবায় সমিতির সভাপতি সেলিম সরকার জানিয়েছেন , ইউনিয়নে নিবন্ধনকৃত রিক্সার সংখ্যা ৫ হাজার আর চলাচল করে প্রায় ১৫ হাজার অটোরিক্সার শ্রমিক ইউনিয়ন থেকে একাধিক বার তাদের নিয়ন্ত্রনের জন্য উদ্যেগ গ্রহন করা হলেও শেষ পর্যন্ত সম্ভব হয়না। জানা গেছে অবৈধ এই ব্যাটারি চালিত অটোরিক্সার কিছু কিছু ইউনিয়ন থেকে নিবন্ধন দিয়েছে।আশুলিয়া থানার স্বনির্ভও ধামসোনা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম জানিয়েছেন ব্যাটারি চালিত রিক্সার কারণে প্রতিদিনই ছোট ছোট দুর্ঘটনা ঘটে এতে আহত হয় অনেকে। আমরা ইউনিয়ন পরিষদ পক্ষ থেকে এই সকল রিক্সার গুলো নিয়ন্ত্রনে আনার চেষ্টা করছি। এর পরিমান এখন বেশি হয়ে গেছে এটা এখন রোধ করা না হলে এই আশুলিয়া চলাচলের অযোগ্য হয়ে যাবে। নিবন্ধনহীন রিক্সা চলাচল বন্ধ করে দেয়া হবে। সেই সাথে ১০ সিটের অটোগুলো মহাসড়কে প্রবেশে করতে পারবে না। সাভার ব‍্যাংক টাউনে অবৈধ অটোরিকশার যন্ত্রণায় অতিষ্ট এলাবাসী উপজেলার ব‍্যাংক টাউন নামাগেন্ডা বটতলা রাডে দিন দিন বেড়ে চলেছে অবৈধ আটোরিকশার দৈরাও ব‍্যাংক টাউন সাভার উপজেলার একটি ব্যস্ততম এলাকা । যেখানে যানজট সব সময় লেগেই থাকে। এর মধ্যে বর্তমানে অবাধে বেড়েছে অবৈধ ব্যাটারিচালিত অটোরিকশার চলাচল। এটা নিয়ন্ত্রণে পৌর কর্তৃপক্ষ কিংবা ট্রাফিক বিভাগের কার্যত কোনো উদ্যোগ নেই। উচ্চ আদালতের নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও সাভার পৌর শহরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়ক ও এলাকার সড়কে দিব্যি দাপিয়ে বেড়াচ্ছে কয়েক হাজারেও বেশি ব্যাটারিচালিত অবৈধ অটোরিকশা। উচ্চগতিসম্পন্ন এসব মোটরচালিত রিকশায় প্রতিনিয়ত দুর্ঘটনার আশঙ্কায় দিন গুনছে প্রতিনিয়ত বাচ্চা ও স্কুল গামী ছাএ ছাএীদের অভিভাবকেরা তা ছাড়া এসব রিকশার ব্যাটারি অবৈধ পন্থায় চার্জ করা হয়। তাতে বিদ্যুতের অপচয় বাড়ছে। যে কারণে অফ-পিক আওয়ারেও লো-ভল্টেজ, লোডশেডিং তথা বিদ্যুৎ সরবরাহে বিঘ্ন সৃষ্টি হচ্ছে। জানা যায়, চলতি বছরে সাভার ব‍্যাংক টাউনের নামাগেন্ডায় রেকর্ডসংখ্যক ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা বেড়েছে। পৌর শহরের প্রধান সড়কসহ ৯টি ওয়ার্ডের সব কটি সড়কে দেড় সহস্রাধিক নিবন্ধনহীন ব্যাটারিচালিত রিকশা চলাচল করছে। গুরুত্বপূর্ণ এসব সড়ক ছাড়াও শহরের বাইরে বিভিন্ন ইউনিয়নের সড়কে দুই সহস্রাধিক ব্যাটারিচালিত রিকশা চলাচল করছে। আদালতের নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও তিন শতাধিক ব্যাটারিচালিত রিকশা পৌরসভা ও বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদে চলাচল করছে। যার অধিকাংশই নিবন্ধনহীন। অবৈধ এসব রিকশা উচ্ছেদ ও নিয়ন্ত্রণে পৌর কর্তৃপক্ষ কিংবা ট্রাফিক পুলিশের কোনো ভূমিকাই নেই।পৌর শহরের একাধিক অটোরিকশাচালকের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, সমিতির নাম করে কয়েকটি সিন্ডিকেটচক্র রিকশাচালকদের কাছ থেকে চাঁদা আদায় করে। এসব থেকে ট্রাফিক পুলিশকে মোটা অঙ্কের মাসোয়ারা দেওয়া হয় বলে জানা গেছে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক পৌরসভার নিবন্ধিত একাধিক রিকশাচালক জানান, ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা পরিবহন শ্রমিক সমিতির সদস্য হওয়ার জন্য তিন শ টাকা এবং পরিবহন কার্ডের জন্য এক শ টাকা নেওয়া হয়। তা ছাড়া তিন হাজার টাকা দিয়ে দুই মাস আগে পৌরসভার নিবন্ধন পেয়েছেন। এদিকে নিবন্ধনহীন একাধিক রিকশাচালকের কাছে জানতে চাইলে বলেন, নিবন্ধন এখন পৌরসভা দিচ্ছে না। সমিতিকে টাকা দিয়ে কার্ড নিয়ে রিকশা চালাচ্ছি। সমিতির নাম জানতে চাইলে তাঁরা প্রকাশ করতে রাজি হননি।সাভার উপজেলার পৌর শহরের ব‍্যাংক টাউনের বটতলা রোড থেকে ব‍্যাংক টাউনে গতরাতে গিয়ে দেখা যায়, কয়েকটি দোকান ভাড়া নিয়ে ভেতরে ১০টি অটোরিকশা চার্জ দেওয়া হচ্ছে। নিও নতুন বড় বড় গ‍্যরেজও চোখে পড়ার মত সেখানে উপস্থিত রিকশামালিকরা জানান, এসব দোকানে ও অটোরিকশা গ‍্যরেজে সারা রাত রিকশা চার্জ দেওয়া হয়।এস আলম সুমন, রিপন দেব, ইকবাল আহমদসহ একাধিক স্থানীয় বাসিন্দা জানান, এ বছর উপজেলার পৌর শহরসহ বিভিন্ন এলাকায় অবাধে অটোরিকশা বৃদ্ধি পেয়েছে। ব্যাটারিচালিত অটোরিকশার দাপটে পাচালিত রিকশা এখন একেবারে না দেখা যাওয়ার মত। তাই বাধ্য হয়েই জীবনের ঝুঁকি নিয়ে এসব রিকশায় চলাচল করতে হয়। মোটরচালিত রিকশা দ্রুতগতির হওয়ায় অদক্ষ চালকরা বেপরোয়াভাবে চালাতে গিয়ে প্রায়ই ছোট-বড় দুর্ঘটনা ঘটে। সম্প্রতি সাভার উপজেলার নামা গেন্ডার ফিরোজা সুপার মার্কেটের স্মমূখে এলাকায় দুটি অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষে তিনজন গুরুতর আহত হন তার ভেতর সাড়ে চার বছরের শিশু খান আব্দুর রহমন আরিফিন গুরুতর আহত হয়ে দিপক্লিনিকে চিকিৎসা নেন সড়কের যত্রতত্র পার্কিং করায় যানজটও তৈরি হচ্ছে।এলাকাবাসী আরো বলেন, ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা বিক্রি ও চলাচলের ওপর আদালতের নিষেধাজ্ঞা থাকা সত্ত্বেও সমিতির নামে সিন্ডিকেট করে চাঁদার বিনিময়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ ও ট্রাফিক পুলিশকে ম্যানেজ করে এসব অটোরিকশা চালানো হচ্ছে।এ বিষয়ে ট্রাফিক পুলিশ সাভার থানার ওসি বলেন, ‘অবৈধ অটোরিকশার বিষয়ে আমার কোনো ধারণা নেই।’ মাসোয়ারার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি ব‍্যস্ততা দেখান ।সাভার উপজেলার বিদ্যুৎ বিক্রয় ও বিতরণ কেন্দ্রের নির্বাহী প্রকৌশলী বলেন, ‘ব্যাটারিচালিত অটোরিকশাগুলো রাতের বেলায় বিভিন্ন স্থানে চার্জ দেওয়া হয় শুনেছি। এতে বিদ্যুতের চরম অপচয় হচ্ছে। তবে আমরা পুলিশ ও প্রশাসনের সঙ্গে আলাপ করে শিগগিরই এ ব্যাপারে অভিযানে নামব।’সাভার পৌরসভার মেয়র বলেন, তিন চাকার পা চালিত রিকশা দেখিয়ে কিছুদিন আগে কয়েকটি নিবন্ধন নিয়েছিল রিকশাচালক। এগুলো অটোরিকশায় লাগিয়ে চলাচল করছে। আগামী মাসের প্রথম দিকে নিবন্ধনহীন রিকশা উচ্ছেদে অভিযানে নামবে পৌর কর্তৃপক্ষ।উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বলেন, ‘অবৈধ অটোরিকশার বিষয়টি জেনেছি। শিগগিরই অভিযান পরিচালনা করা হবে।’

Please Share This Post in Your Social Media

দেশের সংবাদ নিউজ পোটালের সেকেনটের ভিজিটর

37867138
Users Today : 2337
Users Yesterday : 2663
Views Today : 8376
Who's Online : 131
© All rights reserved © 2011 deshersangbad.com/
Design & Developed BY Freelancer Zone