শুক্রবার, ০৫ মার্চ ২০২১, ০৪:৫৭ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
আত্রাইয়ে ইরি-বোরো ধান পরিচর্যায় ব্যস্ত কৃষক দেখুন এই ৫ রাশির মেয়েরাই স্ত্রী হিসাবে সবচেয়ে সেরা, বিস্তারিত যে কারণে নিকটাত্মীয় ভাই-বোনদের বিয়ে ঠিক নয়, জেনে রাখা দরকার সুন্দরগঞ্জে জনবল সংকটে স্বাস্থ্য সেবা বিঘিœত ভারতে মিয়ানমারের ১৯ পুলিশের আশ্রয় প্রার্থনা মিয়ানমারের ওপর বাণিজ্যিক নিষেধাজ্ঞা যুক্তরাষ্ট্রের ৬৬০ থানায় একযোগে ৭ মার্চ উদযাপন করবে পুলিশ জাপান থেকে দেশের পথে মেট্রোরেল জেলখানায় ‘প্ল্যান’, প্রিজন ভ্যান থেকে পালালেন আসামি! শুক্রবার ঢাকার যেসব মার্কেট বন্ধ থাকবে ‘দেশেই তৈরি হবে বিলাসবহুল বাস-ট্রাক’ ডিস লাইনের তার নিয়ে শিশু ছাত্রকে পেটালেন মাদ্রাসা শিক্ষক লক্ষ্মীপুরে সড়ক খোঁড়াখুঁড়িতে গ্যাস ও বিটিসিএল লাইন বিচ্ছিন্ন যৌন হয়রানির দায়ে ডিসি অফিস সহকারীর কারাদণ্ড প্রতিবেশী দেশগুলোর সমস্যা আলোচনার মাধ্যমে সমাধান করা উচিত: প্রধানমন্ত্রী

হিন্দু কর্মকর্তার পরিচয় গোপন রেখে মুসলিম কলেজ ছাত্রীকে বিয়ে!

ডেস্ক রিপোর্ট  : রাজশাহীতে ধর্মীয় পরিচয় গোপন রেখে কলেজ ছাত্রীকে বিয়ে করেছেন বিএসটিআই’র পরিদর্শক মিঠুন কবিরাজ। এর আগে নাটোর টিএমএসএস টেকনিক্যাল ইন্সটিটিউট ইলেকট্রিক্যাল বিভাগের ইনচার্জ ছিলেন তিনি। মিঠুন কবিরাজ রাজশাহীর পবা থানাধীন নওহাটা বড় মসজিদ সংলগ্ন এলাকার শ্রী রতন কবিরাজের ছেলে।

ভুক্তভোগী রাজশাহী জেলার পুঠিয়া উপজেলার বাড়ইপাড়া গ্রামের অধিবাসী। তিনি জানান, ২০১৩ সালে এসএসসি পাশ করার পর নাটোর টিএমএসএস টেকনিক্যাল ইন্সটিটিউটে কম্পিউটার বিভাগে ভর্তি হই। আমাদের বিভাগে ক্লাস নিতেন মিঠুন কবিরাজ। সেই থেকে নিজের ধর্মীয় (সনাতন-হিন্দু) পরিচয় গোপন রেখে আমাকে প্রেমের প্রস্তাব দেন এবং বিয়ে করবেন বলে প্রলোভন দেখান। এক পর্যায়ে আমাদের মধ্যে সম্পর্ক গড়ে উঠে। যখন বুঝতে পারি, তিনি হিন্দু ধর্মালম্বী তখন তার সাথে সম্পর্ক না রাখার সিদ্ধান্ত নিই। পরে মিঠুন ২০১৪ সালের ৩ ডিসেম্বর নোটারী পাবলিকের মাধ্যমে হিন্দু ধর্ম ত্যাগ করে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেন।

তার তিনদিন পর ২০১৪ সালে ৬ ডিসেম্বর দুপুর ১২ টার দিকে রাজশাহী নগরীর হেতেম খাঁ এলাকায় মিঠুনের বন্ধুর বাসায় ইসলামী শরিয়তের বিধান মোতাবেক আমরা বিয়েবন্ধনে আবদ্ধ হই। কিন্তু কথিত একজন মাওলানার মাধ্যমে ওই বিয়ে যে ভুয়া ছিল তখন তা বুঝতে পারিনি। পরে মিঠুনের বিএসটিআইয়ে পরিদর্শক পদে চাকুরি হয়।

এরপর পোস্টিং নিয়ে রংপুরে চলে যান। আর আমাকে ঢাকার ধানমন্ডি এলাকায় একটি ভাড়া বাসায় রেখে দেন। সেখানে প্রতি সপ্তাহে যাওয়া আসা করতেন মিঠুন। ইতোমধ্যে আমাদের সংসারে একটি কন্যা সন্তানের জন্ম হয়। দুর্ভাগ্যজনকভাবে ২০১৮ সালের জানুয়ারিতে ১১ মাস বয়সে শিশুটি মারা যায়। তার তিন মাস পর থেকে মিঠুন কবিরাজ আমার সাথে যোগাযোগ বন্ধ করে দেন।

ভুক্তভোগী আরো জানান, পরবর্তীতে স্বামীর সন্ধানে আমি শশুর বাড়ি নওহাটা যাই। সেখানে মিঠুনের দুলাভাই রনজিৎ ও মিলন আমাকে বলেন, মিঠুন একটি হিন্দু মেয়েকে বিয়ে করেছে। তাই আমি যেনো তাকে ভুলে যাই এবং আমাকে অন্যত্র বিয়ে করে নেয়ার কথা বলেন। সেখান থেকে ফিরে আসার পর আমার উপর চলে মিঠুনের নজরদারি।

 

কিছুদিন পূর্বে তিনটি মোটরসাইকেল করে মুখে মাস্ক পরিহিত অবস্থায় ৬ জন যুবক আমার বাড়িতে গিয়ে গলায় ধারালো ছুরি ধরে হুমকি প্রদান করেন। যাতে করে আমি আর কখনো মিঠুনের বিরুদ্ধে থানায় বা সাংবাদিকদের কাছে কোনো অভিযোগ না দিই। আর তাদের অবাধ্য হলে আমার বাবাসহ আমাকে কেটে নদীতে ভাসিয়ে দেয়ার হুমকি দেন।

এখানেই শেষ নয়, পুঠিয়া উপজেলার চেয়ারম্যান বাচ্চুও তার চেম্বারে ডেকে গালিগালাজসহ বিষয়টি নিয়ে বাড়াবাড়ি না করার জন্য বলেন। বর্তমানে আমিও আমার পরিবার চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। আর আমি নিরাপত্তাহীনতার কারণে ঘর ছেড়ে আত্নগোপনে রয়েছি।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত মিঠুন কবিরাজ ক্যাম্পাসলাইভকে বলেন, আমার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ সঠিক নয়। ধর্মীয় পরিচয় গোপন রেখে ভুয়া বিয়ে করার অভিযোগ সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি ক্ষুব্ধ হয়ে বলেন, যা পারেন লিখেন। আপনার কাছে কী প্রমাণ রয়েছে।

এ ব্যাপারে পুঠিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান জিএম হীরা বাচ্চু ক্যাম্পাসলাইভকে বলেন, আামি তো প্রশাসনের কেউ না। আমি কীভাবে পদক্ষেপ নেবো। এক পর্যায়ে তিনি জানতে চান-আপনার কাছে কী প্রমাণ রয়েছে। তিনি বলেন, আমার বিরুদ্ধে উত্থাপিত অভিযোগ সঠিক নয়।

এদিকে, মিঠুন কবিরাজের এই প্রতারণার বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ নেয়ার জোর দাবি জানিয়েছেন পুঠিয়ার বাড়ইপাড়া ও পবার নওহাটা এলাকার লোকজন। একইসঙ্গে মিঠুনের প্রতারণার অভিযোগ অনেক পুরনো বলেও স্থানীয়রা জানিয়েছেন।

পুঠিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রেজাউল করিম ক্যাম্পাসলাইভকে বলেন, বিষয়টি আমার জানা নেই। এ ব্যাপারে কেউ থানায় অভিযোগ করেনি। এখন যেহেতু বিষয়টি শুনলাম খোঁজ নিয়ে নিয়ে দেখছি। আমি ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠাচ্ছি।

ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম

Please Share This Post in Your Social Media

দেশের সংবাদ নিউজ পোটালের সেকেনটের ভিজিটর

38355688
Users Today : 2331
Users Yesterday : 6146
Views Today : 8979
Who's Online : 29
© All rights reserved © 2011 deshersangbad.com/