শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২:১৪ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
যে পাঁচ কারণে সেক্স পাওয়ার কমে!! স্ত্রী_সহবাসের_সুন্নাত_নিয়ম? ,,,,,,,,, কক্সবাজারের এসপিকে ‘বর বেশে’ বিদায় ৫ টি চোরাই মোটরসাইকেল সহ দুই জনকে আটক করেছে নাটোর পুলিশ ডোমারে হামলার শিকার ইউপি সদস্য। আটক ৩  জাহাজঘাটা শেখ রাসেল স্মৃতি সংঘ ও মারকাজুল কুরান এতিমখানার পক্ষ থেকে এ্যাড জহুরুল হায়দারকে শুভেচ্ছা উলিপুরে অনৈতিক কর্মকান্ডের অভিযোগে আওয়ামীলীগ নেতাকে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে দিলো জনতা একটা সিজার মানে বাচ্চা জন্মের পর থেকে একটা মায়ের মৃত্যুর আগ পযর্ন্ত প্রতিবন্ধি হয়ে বেঁচে থাকা। ফেসবুকে এসে যা বললেন ধর্ষণে অভিযুক্ত মামুন রেস্টুরেন্টে বারের ব্যবসা, মদ-বিয়ার জব্দ বিএসইসি চেয়ারম্যানের সঙ্গে বিএপিএলসি প্রতিনিধিদলের সাক্ষাৎ দুই কোম্পানির ৬০০ কোটি টাকার বন্ড অনুমোদন হতাহতদের পরিবারকে ৫ লাখ টাকা করে দিলেন প্রধানমন্ত্রী বিয়ের ‘গণজোয়ার’ ঠেকিয়ে রাখতে পারেনি করোনাভাইরাস মোবাশ্বের আলীর-সাহিত্য চেতনা

৫২ মণ ওজনের ‘ভাগ্যরাজ’র কোরবানি!

মানিকগঞ্জের সাটুরিয়ার খামারী ইতি আক্তারের গরু ‘ভাগ্যরাজ’ গত দুই কোরবানি ঈদজুড়েই আলোচনায় এসেছে। ২০১৯ সালের ঈদুল আজহায় অবিক্রিত অবস্থায় থাকলেও এবার প্রায় ১৪ লাখ টাকায় বিক্রি হয়েছে প্রায় ৫২ মণ ওজনের বিরাটাকায় গরু ‘ভাগ্যরাজ’।

রাজধানীর মিরপুরে আতিয়ার রহমান নামের একজন ব্যবসায়ী গরুটি তার পরিবারের জন্য কিনেছেন। সোমবার (৩ আগস্ট) সকাল ৮টায় কোরবানি করা হবে ভাগ্যরাজকে।

আতিয়ার রহমানের কন্যা পুষ্প রহমান সময়নিউজকে জানান, আমরা নয় বোন এবং এক ভাই। আমার একমাত্র ভাই এইবার আমার বাবাকে (আতিয়ার রহমান) অন্যান্যবারের চাইতে বড় গরু কোরবানি করার অনুরোধ করেন। আমরা এর আগে ৮/৯ মণ ওজনের গরুই কিনতাম। তবে এইবার আমার ভাইরের অনুরোধে একটু বড় কিনতে রাজি হন আমার বাবা।

এরপর ভাগ্যরাজকে কেনার ব্যাপারে আর কোন বিরতি নেয়নি আতিয়ার রহমানের পরিবার। একমাত্র ছেলে মোহাম্মদ উল্লাহই সর্বপ্রথম ইউটিউবে সাটুরিয়ার খামারি ইতি আক্তারের ভাগ্যরাজকে দেখান। সেখানে দেখার পর তারা গরুটি কেনার সিদ্ধান্তে আসেন। এরপর যেই ভাবনা সেই কাজ। ঈদের আগের দিন মধ্যরাতে হাজির হন ইতি আক্তারের বাড়িতে।

উল্লেখ্য এর ২০১৯’র ঈদুল আজহাতেও ভাগ্যরাজকে বিক্রির কথা ভেবেছিলেন মাত্র ১৮ বছরের খামারি ইতি আক্তার। তবে নানা জটিলতায় তা সম্ভব হয়নি। মূল্য ১২ লাখ হলেও প্রায় ১৪ লক্ষ টাকায় আতিয়ার রহমানের পরিবার কিনে নেন ভাগ্যরাজকে। বিক্রির সময় কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন খামারি ইতি আক্তার।

পুষ্প রহমান সময়নিউজকে জানান, ‘ভাগ্যরাজকে কেনার পর ইতি আক্তারও ভাগ্যরাজের সঙ্গে মিরপুরে কাজীপাড়ায় আমাদের বাসায় চলে আসেন।’

পুষ্প আরো জানান, সন্তানতূল্য ভাগ্যরাজকে কোরবানির আগে শেষবারের মত দেখার জন্য নিজের ৩৫ দিনের নবজাতককে শ্বশুরবাড়িতে রেখে আসেন ইতি। এছাড়াও ইতিকে অন্যান্য এগ্রো ফার্ম থেকে ব্যবসা বন্ধের চাপ দেওয়া হচ্ছিল বলে জানান পুষ্প।

ইতি আক্তার সাভারের ‘শেখ হাসিনা যুব উন্নয়ন কেন্দ্র’ থেকে গরু মোটাতাজাকরণের প্রশিক্ষণ নেয়। অভাবের সংসারে কিস্তির টাকায় ২০১৭ সালে লক্ষীসোনা ভাগ্যবদল করে দেয় ইতি আক্তারের। ২৯ মন ওজনের গরুটি তিনি বিক্রি করেন ১০ লাখ টাকায়।

Please Share This Post in Your Social Media

দেশের সংবাদ নিউজ পোটালের সেকেনটের ভিজিটর

37486135
Users Today : 164
Users Yesterday : 6154
Views Today : 244
Who's Online : 82
© All rights reserved © 2011 deshersangbad.com/
Design & Developed BY Freelancer Zone