Breaking News
Home / বরিশালের সংবাদ / নলছিটির তালতলা বাহাদুরপুর দাখিল মাদ্রাসায় নোটিশ দিয়ে অতিরিক্ত ফি আদায়ের অভিযোগ

নলছিটির তালতলা বাহাদুরপুর দাখিল মাদ্রাসায় নোটিশ দিয়ে অতিরিক্ত ফি আদায়ের অভিযোগ

মনির হোসেন,বরিশাল ব্যুরো: শিক্ষাবান্ধব সরকার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশ আমান্য করে ঝালকাঠি জেলার নলছিটির উপজেলার তালতলা বাহাদুরপুর দাখিল মাদ্রাসায় চলতি বছরের দাখিল পরীক্ষার ফরম পুরনে নোটিশ দিয়ে অতিরিক্ত ফি আদায়ের অভিযোগ পাওয়া গেছে।মাদ্রাসা সুপারেন্টেটের অফিস কার্য্যালয়ের সামনে প্রকাশ্যে স্ব সাক্ষররিত নোটিশের মধ্যমে প্রত্যেক পরীক্ষার্থীদের কাছে ফরম ফিলাব বাবদ ৩০০/হাজার টাকাসহ অকৃত কার্য প্রতিটি বিষয় ৫০০/শত টাকা জরিমানার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।উল্লেখিত বিষয়ে কোন প্রকার ব্যত্যয় ঘটিলে সংশ্লিষ্ট ছাত্র কে পরীক্ষায় অংশগ্রহনের সুযোগ দেওয়া সম্ভম হইবে না বলে মাদ্রাসার অফিস কক্ষের সামনের দেয়ালে লটকানো নোটিশ বোর্ডে লক্ষ্য করা গেছে।যাহা রেজিলেশন খাতায় লিপিবদ্ধ রয়েছে যার নোটিশ নং-১২/২০১৯ইং।এ ব্যাপারে মাদরাসার সুপার মো:ইব্রহীম খলিল(কামাল)এর সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, কোচিং ফি সহ ৩০০০/টাকা ধরা হয়েছে। অকৃত কার্য প্রতিটি বিষয় ৫০০/শত টাকা জরিমানা এবং শিক্ষক-অভিভাবকদের অঙ্গিকার নামায় স্বাক্ষর দিয়ে ফরম পুরনের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।এ বিষয়ে মিডিয়া কর্মিদের সংবাদ প্রকাশ না করার অনুরোধ করেন মাদ্রাসা সুপার মাও: ইব্রাহীম খলিল(কামাল)।এদিকে সুপারেন্টট এর নির্দেশে সাংবাদিকরা মাদ্রাসা ত্যাগ করার সাথে সাথেই ওই মাদ্রাসার সুপারের একান্ত অনুসারী সহকারী শিক্ষক মো: রিপন দেয়ালে লটকানো নোটিশটি ছিড়ে ফেলেন।এ বিষয়ে সহকারী সুপার ও অন্য শিক্ষকদের সাথে আলাপকালে তারা কোন বিষয়ে মুখ খুলতে নারাজ।তবে কয়েকজন শিক্ষক ইশারা ইঙ্গিতে জানান,ফরম পুরনের ব্যাপারে আমারা কিছুই জানি না সব কিছুই সুপার জানেন।নাম প্রকাশে অনিচ্ছিুক কয়েকজন শিক্ষক আরো জানান,এ মাদ্রাসা (সুপারসাহেবের) তার বাবার প্রতিষ্টত তাই তিনি যেটা করেন সেটাই সঠিক।আমরা তার কাছে জিম্মি রয়েছি।এ ছাড়াও ওই মাদ্রাসায় ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ রয়েছে।নলছিটি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রুম্পা সিকদার বলেন,নোটিশ দিয়ে ফি আদায় করা বিধি সম্মত নয়,এ ধরনের অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেলে আইনগত ব্যাবস্থা নেয়া হবে।এ ব্যাপারে নলছিটি উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষাকর্মকর্তা মো: আনোয়ার আজীম জানান,সরকার ও সংশ্লিষ্ট শিক্ষাবের্ডের নির্দেশ আমান্য করলে বিধিমোতাবেক ব্যাবস্থা নেয়া হবে।নোটিশ দিয়ে অতিরিক্ত ফি আদায় করা বিধি সম্মত নয়।আমরা বিষয়টি তদন্ত সাপেক্ষে ব্যাবস্থা নেব।
মনির হোসেন

Please follow and like us:
error

About jahir

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

পৌনে তিন কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগ বরিশালে মাদ্রাসার অধ্যক্ষর বিরুদ্ধে দুর্নীতির তদন্ত শুরু

*প্রতিষ্ঠানের গাছ বিনামূল্যে বিএনপি নেতাকে দেয়ার অভিযোগ মনির হোসেন, বরিশাল ব্যুরো \ ...