Breaking News
Home / Uncategorized / তিনবার হজ্ব পালন সুপার রহিমের খুঁটির জোর ?

তিনবার হজ্ব পালন সুপার রহিমের খুঁটির জোর ?

তানোর (রাজশাহী) প্রতিনিথি
রাজশাহীর তানোরের কলমা ইউপির নড়িয়াল দাখিল মাদরাসার সুপার আলহাজ্ব মাওঃ আব্দুর রহিমের বিরুদ্ধে নানা অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। সুপার আব্দুর রহিমের সুপার পাওয়ারের দাপটে শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও অভিভাবক মহলে চরম অসন্তোষ ছড়িয়ে পড়েছে। আবার সুপার পাওয়ারের ক্ষমতায় তিনি নিজের খেয়াল-খুশিমত মাদরাসার কার্যক্রম পরিচালনা করছেন তাকে রুখবে কে ? তার খুটির জোর কোথায় ? ইত্যাদি এসব নিয়ে সাধারণ মানুষের মধ্যে ব্যাপক ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে। চলতি বছরের ১২ সেপ্টেম্বর বৃহ¯প্রতিবার সুপার আব্দুর রহিমের বিরুদ্ধে ডাকযোগে এলাকার অভিভাবকগণ শিক্ষা মন্ত্রণালয়, চেয়ারম্যান মাদরাসা বোর্ড ও রাজশাহী জেলা জেলা প্রশাসক বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছেন। তাদের অভিযোগ সুপার আব্দুর রহিমের ক্ষমতার অপব্যবহার, সেচ্ছাচারিতা ও নানা অনিয়ম-দূর্নীতির বেড়াজালে আবদ্ধ হয়ে আকুন্ঠ দূর্নীতিতে নিমজ্জিত হয়ে পড়ায় পাঠদান ব্যাহত হচ্ছে। স্থানীয়রা জানান, জামায়াতের সক্রীয় কর্মী সুপার আব্দুর রহিম চাকরিবিধিমালা লঙ্ঘন করে তিনবার হজ্ব পালন করেছেন, গ্রামবাসির বাঁধা উপেক্ষা করে খেলার মাঠের মধ্যে সীমানা প্রাচীরের নামে পিলার তুলে মাঠ নস্ট ও মাদরাসা চত্ত্বরের প্রায় শতবর্ষী একটি শিমুল কেটে দিয়েছেন। আবার গোটা দেশে পবিত্র আশুরার (মহরম) ছুটি একদিন হলেও নড়িয়াল মাদরাসায় দুই দিন ছুটি দেয়া হয়েছে। এছাড়াও একটি বির্তকিত হজ্ব এজেন্সির প্রতিনিধি হওয়ায় সুপার মাদরাসায় উপস্থিতি হাজিরা খাতায় স্বাক্ষর করেই হজ্ব এজেন্সির কাজে বেরিয়ে পড়েন। এছাড়াও আর্থিক সুবিধার বিনিময়ে সুপার তার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সহকারী এক শিক্ষকে অন্য প্রতিষ্ঠানে চাকরি করার সুযোগ করেছে দিয়েছে ওই শিক্ষক একই সঙ্গে দুটি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করছেন। সুপারের এসব কর্মকান্ডের কারণে এলাকার অভিভাবকগণ চরম ক্ষোভ প্রকাশ করেছে বলে একাধিক সূত্র নিশ্চিত করেছে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক অভিভাবকগণ বলেন, সুপার আব্দুল রহিমের ঘনিষ্ঠ জনৈক আব্দুল কারিম সুপারের সুপার পাওয়ারের মূলমন্ত্র। তারা বলেন, এক সময় আব্দুল কারিম ছিলেন বিএনপি-জামায়াতের সক্রীয় কর্মী তবে দেশের রাজনৈতিক পেক্ষাপট পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে তিনিও রাতারাতি খোলস পাল্টিয়ে আওয়ামী লীগ নেতা ও মাদরাসার বিদ্যুৎসাহী প্রতিনিধি হয়েছেন এছাড়াও আরো কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের বিদ্যুৎসাহী সদস্য রয়েছেন। তারা বলেন, সুপার কারিমের ঘনিষ্ঠ হওয়ায় সুপারকে করেছে আকাশচুম্বি ক্ষমতার (নুপার প্রায়ার) অধিকারী, কারিমের প্রভাব বিস্তার করে সুপার নানামূখী অনিয়ম ও দূর্নীতিতে জড়িয়ে পড়ার পাশপাশি নিজের খেয়াল-খূশিমত মাদরাসায় আশা-যাওয়া করেন এতে মাদরাসার পাঠদান মূখ থুবড়ে পড়েছে। তারা আরো বলেন, আব্দুল কারিম আনন্দ স্কুলের টিসি জাভেদ আলী ও তানোর সরকারী কলেজের উপাধ্যক্ষ আব্দুল আজিজকে লাঞ্চিত, বিদ্যুতের খুঁটি পড়ে পথচারী মূত্যুর ঘটনা ধামাচাঁপা এবং পরীক্ষার খাতা হারিয়ে অনেক আগেই সাধারণের মধ্যে আলোচনায় এসেছিল। স্থানীয় অভিভাবক মহল সরেজমিন তদন্ত পূর্বক সুপারের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট বিভাগের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।
এদিকে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক গ্রামবাসী বলেন, নড়িয়াল মাদরাসায় নিয়মিত জাতীয় সংগীত পরিবেশন হয় না, এমনকি বাঙ্গালী জাতীর জনক ও মহান স্বাধীনতার স্বপত্তি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম ও মূত্যু (শাহাদাৎ) বার্ষিকী উপলক্ষে শ্রদ্ধাঞ্জলী জানিয়ে কোনো ব্যানার-ফেস্টুন পর্যন্ত তারা দেয় না। এসব বিষয়ে জানতে চাইলে সুপার মাওলানা হাজী আব্দুর রহিম এসব অভিযোগ অস্বীকার করে কোনো কথা বলতে অপারগতা প্রকাশ করেছেন। এব্যাপারে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আমিরুল ইসলাম বলেন, বাংলাদেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের জন্য জাতীয় সংগীত পরিবেশন করা বাধ্যতামুলক। তিনি বলেন, সুপার আব্দুর রহিমের বিরুদ্ধে সুনিদ্রিষ্ট অভিযোগ পেলে অবশ্যই বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তিনি বলেন, চাকরিরত অবস্থায় একই ব্যক্তির তিনবার হজ্ব করার কোনো সৃযোগ নাই কারণ তিনি হজ্বের জন্য একবার ছুটি পাবেন।
তানোর প্রতিনিধি

Please follow and like us:
error

About jahir

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

লক্ষ্মীপুরের কুশাখালী ইউনিয়ন আ’লীগের কোন্দল চরমে “”””

লক্ষ্মীপুর থেকে ভি বি রায় চৌধুরী-সদর উপজেলার কুশাখালী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের কোন্দল চরম ...