Breaking News
Home / Uncategorized / বঙ্গবন্ধুর নাতনি টিউলিপের হ্যাট‌ট্রিক জয়

বঙ্গবন্ধুর নাতনি টিউলিপের হ্যাট‌ট্রিক জয়

যুক্তরাজ্যের সাধারণ নির্বাচনে তৃতীয়বারের মতো নির্বাচিত হয়েছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নাতনি টিউলিপ রেজওয়ান সিদ্দিক ও বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত রূপা হক। চতুর্থবারের মতো নির্বাচিত হয়েছেন রুশনারা আলী এবং প্রথমবারের মতো আফসানা বেগম।

শুক্রবার এ তথ্য জানিয়েছে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম। নির্বাচনে এগিয়ে আছে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের দল কনজারভেটিভ পার্টি। বৃহস্পতিবার এ নির্বাচনের ভোট গ্রহণ সম্পন্ন হয়।

টিউলিপ রেজওয়ান সিদ্দিক: বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছোট বোন শেখ রেহানার মেয়ে তিনি। টিউলিপ উত্তর-পশ্চিম লন্ডনের হ্যামস্টেড অ্যান্ড কিলবার্ন আসন থেকে লড়ে টানা তৃতীয়বারের মতো জয় লাভ করলেন।

এর আগে ২০১৫ সালে লেবার দলের মনোনয়ন পেয়ে প্রথমবারের মতো ব্রিটিশ এমপি নির্বাচিত হন টিউলিপ। ২০১৭ সালে পুনর্নির্বাচিত হয়ে দ্বিতীয়বারের মতো তিনি এই আসনের এমপি হন।

রূপা হক:  ইলিং সেন্ট্রাল অ্যান্ড অ্যাকটন আসনে লেবার পার্টির প্রার্থী রূপা হক নির্বাচিত হয়েছেন। রূপা হকের পৈতৃক নিবাস পাবনা জেলায়। ১৯৭২ সালে লন্ডনের ইলিংয়ে জন্ম নেয়া এই বাংলাদেশি বংশোদ্ভুত অধ্যাপনার পাশাপাশি লেখালেখির সঙ্গেও জড়িত রয়েছেন। তার লেখনি তাকে এনে দিয়েছে খ্যাতি।

এছাড়াও ব্রিটেনের শীর্ষস্থানীয় দৈনিক গার্ডিয়ান, সানডে ও অবজারভার পত্রিকায় নিয়মিত কলাম লেখেন তিনি।

রুশনারা আলী: তার পৈতৃক নিবাস সিলেট জেলায়। সর্বশেষ ২০১৭ সালের নির্বাচনে পূর্ব লন্ডনের বেথনাল গ্রিন অ্যান্ড বো আসনে টানা চতুর্থবারের মতো নির্বাচিত হলেন তিনি।

আফসানা বেগম: লেবার পার্টির হয়ে টাওয়ার হ্যামলেটস এলাকার পপলার অ্যান্ড লাইম হাউস আসনে এবারই প্রথমবারের মতো জয়ী আফসানা বেগম।

এবারের নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন ৯ বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত প্রার্থী। যাদের মধ্যে ৭ জনই নারী। বিরোধী লেবার পার্টি থেকে লড়েছেন সর্বোচ্চ ৭ বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত প্রার্থী। লিবারেল ডেমোক্র্যাট ও কনজারভেটিভ পার্টি থেকে এক জন করে এই নির্বাচনে অংশ নিয়েছেন।

Please follow and like us:
error

About jahir

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

এ রায় বিচারের প্রথম স্বাদ

মিয়ানমারে রোহিঙ্গা গণহত্যার বিচারে হেগের আদালতে যখন রায় ঘোষণা চলছিল তখন টেলিভিশনের পর্দায় চোখ নির্যাতিত ...