Breaking News
Home / ভ্রমণ গাইড / খোয়া সাগর দিঘি আর জমিদার বাড়ি

খোয়া সাগর দিঘি আর জমিদার বাড়ি

ডেস্ক ; লক্ষ্মীপুর জেলা প্রশাসক অঞ্জন চন্দ্র পালের চোখে, ‘লক্ষ্মীপুরের ইতিহাস ও ঐতিহ্যের সঙ্গে মিশে আছে ‘দালাল বাজার জমিদার বাড়ি ও খোয়া সাগর দিঘি’। সম্প্রতি প্রাচীন এই নিদর্শন দুটি সংস্কারের কাজ শুরু করা হয়েছে। চেষ্টা করা হচ্ছে, পরিকল্পিতভাবে দালাল বাজার জমিদার বাড়ি ও খোয়া সাগর দিঘিকে পর্যটন কেন্দ্র হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে। লক্ষ্মীপুরের ইতিহাস অনেক পুরোনো।

যার প্রমাণ স্বরূপ জেলার বিভিন্ন স্থানে বেশ কিছু ঐতিহাসিক স্থাপনা ও নিদর্শন দেখা যায়। এর মধ্যে সদর উপজেলার দালাল বাজার ‘জমিদার বাড়ি’। প্রায় ২৫০ বছর আগে নির্মাণ করা জমিদার বাড়িটি এখনও কালের সাক্ষী হয়ে দাঁড়িয়ে আছে। এর পাশেই রয়েছে ইতিহাস বিজড়িত বিশাল এক দিঘি।

যার নাম ‘খোয়া সাগর দিঘি’। প্রায় শত বছর ধরে অযত্নে আর অবহেলায় পড়ে থাকা ঐতিহাসিক এই দু’টি নিদর্শন দুটি এখন পর্যটন কেন্দ্রে পরিণত হচ্ছে।

খ্যাতিমান সাংবাদিক  লেখক সানাউল্যাহ নূরীর জন্মস্থান নূরীপুর

http://www.lakshmipur.gov.bd/sites/default/files/charfolconup.lakshmipur.gov.bd/sana%20ullaha%20nuri_1.JPG?1379820909

কিভাবে যাওয়া যায়: 

কমলনগর উপজেলা সদর হাজির হাট থেকে দক্ষিণ দিকে মেঘনা সিনেমা হল হয়ে হাজির হাটখায়ের হাট সড়কের পাশে রিক্সা  সিএনজি যোগে নূরীপুর যাওয়া যায়।দারুচিনি দ্বীপের দেশেসহ ভ্রমনকাহিনী,ছড়া,গল্প,উপন্যাস,কবিতা,সংবাদসহ অসংখ্য কালজয়ী লেখার জন্য খ্যাতিমান লেখক  সাংবাদিক ছানা উল্যাহ নূরীর জন্ম। চর ফলকনের নূরীপুর গ্রামে। লেখকের জন্মস্থানে পিতার নামে ছেলামত উল্যা ফাউন্ডেশন  মাতার নামে বেগম মনসুরা দারুল ফালাহ মাদ্রাসাসহ প্রাকৃতিক মনোরম পরিবেশ চর ফলকনের দর্শনীয় স্থান। 

দারুচিনি দ্বীপের দেশেসহ  ভ্রমনকাহিনী,ছড়া,গল্প,উপন্যাস,কবিতা,সংবাদসহ অসংখ্য কালজয়ী লেখার জন্য খ্যাতিমান লেখক  সাংবাদিক ছানা উল্যাহ নূরীর জন্ম। চর ফলকনের নূরীপুর গ্রামে। লেখকের জন্মস্থানে পিতার নামে ছেলামত উল্যা ফাউন্ডেশন  মাতার নামে বেগম মনসুরা দারুল ফালাহ মাদ্রাসাসহ প্রাকৃতিক মনোরম পরিবেশ চর ফলকনের দর্শনীয় স্থান

অবস্থান: 

চর ফলকন ইউনিয়ন এর ৪নং ওয়ার্ডের জারিরদোনা শাখা খাল এর হাজির হাটখায়ের হাট সড়কে এর পশ্চিম পাশে 

বয়ার চরের প্রাকৃতিক দৃর্শ্য

http://www.lakshmipur.gov.bd/sites/default/files/chargaziup.lakshmipur.gov.bd/pakritik.jpg?1385128054

কিভাবে যাওয়া যায়: 

রামগতি বাজার থেকে টেম্পু বা সি.এন.জি. তে যাওয়া যায়। 

রামগতির মধ্যে সবচেয়ে সুন্দর জায়গা হচ্ছে বয়ার চর  টাকিং বাজার।এখানের প্রাকৃতিক দৃশ্য পর্যটকদের মনকেড়ে নেয়। এখানে পরিচালক, অভিনেতা,অভিনেত্রীরা আসেন ছবির সুটিং করতে। বিভিন্ন এলাকা থেকে লোকজন আসেন ভ্রমনে

অবস্থান: 

এটি লক্ষ্মীপুর জেলার রামগতি উপজেলায় ৯নং চরগাজী ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ড (চর দরবেশ)  অবস্থিত 

অপরূপ সৌন্দর্যে ভরা সবুজ গাছের সমারহ (চররুহিতা)

http://www.lakshmipur.gov.bd/sites/default/files/charruhitaup.lakshmipur.gov.bd/DSC08956_0.jpg?1384405500

কিভাবে যাওয়া যায়: 

যে কোন স্হান থেকে প্রথমে লক্ষ্মীপুর আসতে হবে এরপর যেকোন যানবাহন যোগে এতে আসা যায়। এটি লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলাধীন চররুহিতা ইউনিয়নে অবস্থিত। 

চররুহিতা ইউনিয়নের রাস্তায় এই অপরূপ দৃশ্যের অলৌখিকতা চোখে পড়ে। যা বিষন্নতাভরা মনকে শীতল  আনন্দ দিতে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে

অবস্থান: 

৪নং চররুহিতা ইউনিয়ন 

ভোম রাজার দিঘী

কিভাবে যাওয়া যায়: 

জকসিন বাজারের পশ্চিমে পুলিশ লাইন সংলগ্ন রাস্তা দিয়ে সি, এন,জি অথবা রিক্সা যোগে যাওয়া যায়। 

কথিত আছে যে, আজ থেকে প্রায় ৩০০ বৎসর আগে ভোমরাজারা এই গ্রামে বসবাস করত। এক সময় রাজার পরিবারের লোকজন ব্যবহারের পানি নিয়ে খুব সংকট দেখা দেয়। তারপর রাজা এই কষ্ট দেখে এক রাতের মধ্যে  প্রায় ২০ একর জায়গার মধ্যে এই দিঘি খনন করেন

অবস্থান: 

আটিয়াতলী প্রামের পীর সাহেবের বাড়ির দিঘী 

ঘাসিয়ার চর

কিভাবে যাওয়া যায়: 

উপজেলা থেকে রায়পুর সিএনজি স্টেশন থেকে সিএনজি করে খাসের হাট বাজার ভাড়া ২৫ টাকা সেখান থেকে রিক্সা যোগে ২০ টাকা  

চরটি অতীতে অনেকবার নদী গর্ভে বিলীন হইয়া যায়।পুনরায় চরটি জেগে ওঠার কারনে চরটির মাঠে ঘাষ জন্মায় (যেমন: বৃন্দাবন,কাইচ্চাবন,ডুলফা,খেঁড়ি ঘাষ সহ বহু রকমের ঘাস) সেই কাশবন সবুজ ঘাস ঘাসিয়ার চর দেখতে খুব সুন্দর লাগে। এই সুবাদে অত্র এলাকার লোকজন উক্ত চরের মাঠ আনন্দ উপভোগ করতে এই চরে বেড়াতে এবং পিকনিক করতে আসেন 

অবস্থান: 

২নং ওয়ার্ড, উত্তর চরবংশী, রায়পুর, লক্ষ্মীপুর 

ডাকাতিয়া নদী