Breaking News
Home / শিক্ষা / জুতা পায়ে শহীদ বেদিতে পুস্পস্তবক অর্পণ উলিপুরে সেই অধ্যক্ষের নির্দেশে শিক্ষককে লাঞ্চিত করার অভিযোগে জিডি

জুতা পায়ে শহীদ বেদিতে পুস্পস্তবক অর্পণ উলিপুরে সেই অধ্যক্ষের নির্দেশে শিক্ষককে লাঞ্চিত করার অভিযোগে জিডি

 

উলিপুর (কুড়িগ্রাম) উপজেলা সংবাদদাতা ঃ
কুড়িগ্রামের উলিপুরে সরকারি ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ (ভারপ্রাপ্ত) আবু তাহেরের নির্দেশে প্রতিষ্ঠানে কর্মরত শিক্ষককে অফিস চলাকালীন বহিরাগত লোক দিয়ে লাঞ্চিত করার অভিযোগ উঠেছে। এছাড়া অন্যান্য শিক্ষকগনকে হুমকি প্রদান করার ঘটনায় নিরাপত্তার অভাবে অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে থানায় সাধারন ডায়েরী (জিডি) করেছেন ওই কলেজের সকল শিক্ষকগণ। এ ঘটনায় সোমবার (২০ জানুয়ারী) শিক্ষকগণ পুলিশ সুপার কুড়িগ্রাম কার্যালয়ে জবানবন্দি দিয়েছেন।
অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, অধ্যক্ষ আবু তাহের মহান বিজয় দিবসে (১৬ই ডিসেম্বর) জুতা পায়ে ক্যাম্পাসের শহীদ মিনারে পুস্পমাল্য অর্পন করেন। জুতা পায়ে শহীদ বেদিতে পুস্পমাল্য অর্পনের ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে ক্ষুব্ধ এলাকাবাসী ওই অধ্যক্ষকে শারীরিকভাবে লাঞ্চিত করেন। পরে অধ্যক্ষ বাদী হয়ে এলাকাবাসীর বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করেন। এ ঘটনাকে আড়াল করার জন্য ও নিজের স্বার্থ হাসিলের জন্য অধ্যক্ষ কলেজের কর্মরত শিক্ষকগণকে বিভিন্নভাবে হুমকি দিয়ে আসছেন এবং তাদের শারীরিক ভাবে লাঞ্চনাসহ প্রাণনাশের ষড়যন্ত্র করছেন। এরই প্রেক্ষিতে গত ১৪ জানুয়ারী কলেজের হিসাব বিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক আসাদুল হাবিব আরিফকে অফিস চলাকালীন কলেজ ক্যাম্পাসের ভিতরে ঢুকে বহিরাগত জনৈক আব্দুর রউফ লাঞ্চিত করেন। পরে শিক্ষকরা জানতে পারেন উল্লিখিত ঘটনাটি পূর্ববর্তী রাতে অধ্যক্ষ আবু তাহেরের মোবাইল ফোনের নিদের্শনা ভিত্তিতেই হয়েছে, যার অডিও রের্কড তাদের কাছে রয়েছে বলে দাবী করেন শিক্ষকগণ। এছাড়াও কলেজের রসায়ন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ও শিক্ষক পরিষদের সাধারন সম্পাদক প্রশান্ত কুমার পাল কে শারীরিকভাবে আক্রমনের নির্দেশ দিয়েছিলেন ওই অডিও বার্তায়। কিন্তু এ সময় ওই শিক্ষক শ্রেণিকক্ষে পাঠদানরত অবস্থায় থাকায় আক্রমনের হাত থেকে রক্ষা পান। উক্ত ঘটনা উল্লেখ করে কলেজে কর্মরত দশজন শিক্ষক ওই অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে উলিপুর থানায় ডায়েরী করেন (ডায়েরী নং-৬২৫)। এ ঘটনায় কলেজের শিক্ষক, শিক্ষার্থী ছাড়াও সমাজের বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষদের মধ্যে অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে বিরুপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে।
উলিপুর সরকারি কলেজের হিসাব বিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক আসাদুল হাবিব আরিফ বলেন, ১৪ই জানুয়ারী দুপুর আনুমানিক ১২টার দিকে জনৈক আব্দুর রউফ ক্যাম্পাসের ভিতরে ঢুকে কোন কারন ছাড়াই আমাকে লাঞ্চিত করেন। পরবর্তীতে জানতে পারি অধ্যক্ষ মোবাইল ফোনে এ নির্দেশনা দিয়েছেন। যার অডিও বার্তা সংরক্ষিত রয়েছে।
শিক্ষক পরিষদের সাধারন সম্পাদক প্রশান্ত কুমার পাল জানান, জিডির ঘটনায় সোমবার (২০ জানুয়ারী) পুলিশ সুপার কুড়িগ্রাম কার্যালয়ে আমাদেরকে ডেকে পাঠানো হয়েছিল। আমরা সেখানে ঘটনার বর্ণনা দিয়ে জবানবন্দি দিয়েছে। উক্ত ঘটনায় ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষকে নোটিশ করা হলেও তিনি আজ পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে উপস্থিত হননি।
উলিপুর সরকারি ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ (ভারপ্রাপ্ত) আবু তাহেরে সাথে মুঠো ফোনে (০১৭১৮-৪২০৮৪৩) বার বার যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি। পরবর্তীতে ক্ষুদে বার্তা পাঠিয়েও কোন উত্তর পাওয়া যায়নি।
উলিপুর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) আনোয়ারুল ইসলাম অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে জিডি’র ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ঘটনা তদন্তের অনুমতির জন্য জিডির কপি আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

Please follow and like us:
error

About jahir

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

লাগসই প্রযুক্তির প্রয়োগ ও সম্প্রাসারণ প্রদর্শনীতে রুম টু রিডের শিক্ষা উপকরণ প্রদর্শনী

নাটোর প্রতিনিধি: নাটোরের বড়াইগ্রামে স্থানীয়ভাবে উদ্ভাবিত লাগসই প্রযুক্তির প্রয়োগ ও সম্প্রাসারণ সেমিনার ...