Breaking News
Home / সারাদেশ / তানোর পৌর আওয়ামী লীগে আসছে নতুন চমক

তানোর পৌর আওয়ামী লীগে আসছে নতুন চমক

তানোর (রাজশাহী) প্রতিনিধি
রাজশাহীর তানোর পৌরসভা আওয়ামী লীগের

জেলা আওয়ামী লীগকে ভাইরাসমুক্ত করতে এন্টিভাইরাস হিসেবে শিগগির শুদ্ধি অভিযানে নামছেন বলে রাজনৈতিক অঙ্গনে গুঞ্জন বইছে। স্থানীয় নেতাকর্মীরা জানান, রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে সভাপতি এমপি ফারুকের কোনো বিকল্প নাই তাই সভাপতি পদে পরিবর্তন না আসলেও উপদেষ্ঠা মন্ডলীর সদস্য, সম্পাদক, সহ-সম্পাদক, সাংগঠানিক সম্পাদকসহ বিভিন্ন পদে নতুন মূখের নেতৃত্ব আশার সম্ভবনা রয়েছে। ফলে অনেক হেভিওয়েট তবে তৃণমূলের কাছে বিশ্বাসঘাতক বলে পরিচিত এমন অনেক নেতা পদপদবী হরাতে পারেন বলে আলোচনা রয়েছে। তৃণমূলের অভিমত, এক টানা তিন মেয়াদ ক্ষমতায় খাকায় আওয়ামী লীগের আদর্শহীন বিপদগামী কতিপয় নেতার নেপথ্যে মদদে প্রচুর আগাছা ও খোলস পাল্টিয়ে শুবিধাবাদী টাউট-বাটপার ঠাঁই নিয়েছে দলে। জাতীয় সংসদ ও উপজেলা নির্বাচনের পর এদের বিষয়ে কঠোর অবস্থান নিয়েছে আওয়ামী লীগ। এদিকে টানা তৃতীয় মেয়াদে সরকার গঠনের পরপরই অনুপ্রবেশকারী, হাইব্রিড-চাঁদাবাজ ও তাদের আশ্রয়-প্রশ্রয় দাতাতের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছেন দলের সভাপতি ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা বলে একাধিক সূত্র নিশ্চিত করেছে।
জানা গেছে, রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে সভাপতি এমপি ফারুকের কোনো বিকল্প নাই, তাকে শরিয়ে তার শূণ্য স্থান পূরুণের মতো কোনো বিকল্প নেতৃত্ব এখানো গড়ে উঠেনি সেই সম্ভবনাও নাই, এছাড়াও আওয়ামী লীগে এমপি ফারুকের নিজস্ব বিশাল বলয় রয়েছে তাই এবারো তিনি সভাপতি হচ্ছেন এটা প্রায় নিশ্চিত। এছাড়াও ফারুক চৌধূরীর আদর্শিক নেতৃত্ব ও রাজনৈতিক দূরদর্শীতায় রাজশাহী অঞ্চলে আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে আজকের এই গণজোয়ার এসেছে। আদর্শিক-প্রবীণ, ত্যাগী, নিবেদিতপ্রাণ, রাজনৈতিক দূরদর্শীসম্পন্ন গ্রহণযোগ্য ব্যক্তি, পরিচ্ছন্ন ব্যক্তি ইমেজ, রাজনৈতিক সহাবস্থান, কর্মী-জনবান্ধব নেতা হিসেবে ফারুক চৌধূরীর ব্যাপক পরিচিতি রয়েছে রাজশাহীতে ফারুক চৌধূরী ব্যতিত আওয়ামী লীগের রাজনীতি কল্পনাও করা যায় না এসব বিবেচনায় তিনি আবারো সভাপতি হচ্ছেন এই বিষয়ে কারো কোনো সন্দেহের অবকাশ নাই। অপরদিকে একটি নির্ভরযোগ্য সূত্র জানায়, রাজশাহী জেলা আওয়ামী কমিটি গঠনে ভোট প্রয়োগের পরিবর্তে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যেনো সিলেকশনের মাধ্যমে তার বিশস্ত ও আদর্শিক নেতৃত্বের হাতে দায়িত্ব অর্পন করেন। কারণ রাজশাহীতে ভোট প্রয়োগের মাধ্যমে কমিটি গঠন করতে গেলে অনাকাঙ্খিত ঘটনা ঘটতে পারে বলে তৃণমূলের নেতাকর্মীরা আশঙ্কা প্রকাশ করেছে। এছাড়াও কালো টাকার প্রভাবে অনেক অযোগ্য ও বিশ্বাষঘাতক বলে পরিচিত এমন ব্যক্তি নেতৃত্ব চলে আসতে পারে। রাজশাহী জেলা পরিষদ নির্বাচনের পর তৃণমূলের নেতাকর্মীদের মনে এমন আশঙ্কা দেখা দিয়েছে বলে এলাকার মানুষের মূখে মূখে এমন কথার প্রচার আছে।
সূত্র জানায়, দলের দায়িত্বশীল সাংগঠনিক পদে থেকেও যারা দলের মনোনিত প্রার্থীদের বিজয়ী করতে সক্রিয় না হয়ে গোপণে দল, নেতা ও নেতৃত্বের সঙ্গে বেঈমানী করে দলের মনোনিত প্রার্থীর বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছিল, একাদ্বশ জাতীয় সংসদ ও উপজেলা নির্বাচনে আওয়ামী লীগের জয়ে কোনো ভূমিকা রাখতে পারেনি অবস্থান ছিল প্রশ্নবিদ্ধ এবং নিজের আখের গোছাতে আওয়ামী লীগের চাদর গায়ে প্রতিপক্ষের কাজ করেছে এমন নেতাদের ছুড়ে ফেলে আদর্শিকদের হাতে নেতৃত্ব তুলে দেয়া হবে বলে একাধিক সূত্র নিশ্চিত করেছে। এদিকে তৃণমূলের দাবী তারা বড় নেতা নয় আদর্শিক, দল, নেতা ও নেতৃত্বের প্রতি আনুগত্যশীল, পরীক্ষিত-নিবেদিতপ্রাণ বিশস্তদের নেতৃত্বে দেখতে চাই। আওয়ামী লীগের একশ্রেণীর বিপদগামী নেতা নিজেদের আদর্শিক দাবি করে আদর্শহীন কর্মকান্ডে জড়িয়ে পড়ায় দলটির তৃণমূলের নেতা ও কর্মী-সমর্থকগণ এদের দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দিয়ে নতুন ও আদর্শিক নেতৃত্ব দিতে নীতিনির্ধারকদের কাছে অনুরোধ করেছে যারা কখানোই দল, নেতা ও নেতৃত্বের সঙ্গে বেঈমানী করবে না। তাদের দাবী যতো বড় প্রভাবশালী নেতাই হোক যারা দায়িত্বশীল পদে থেকেও দায়িত্ব পালন করে না এমন নেতার নেতৃত্ব তারা চাই না। এছাড়াও সরকার দলীয় এমপিদের বিরুদ্ধে বিষাদাগার, তৃণমূলে দলীয়কোন্দল সৃষ্টি ও এমপিদের চাপে রেখে অনৈতিক সুবিধা আদায় করতে আওয়ামী লীগ বিরোধীদের সঙ্গে গোপণ আঁতাত করে দলের তৃণমূলে কোন্দলের বিষবাষ্প ছড়িয়েছে। আবার অবৈধ সুবিধা আদায়ের জন্য আওয়ামী লীগের রাজনৈতিক দর্শন, আদর্শ, নীতি-নৈতিকতা, দল, নেতা ও নেতৃত্বের সঙ্গে বেঈমানী করে ব্যক্তি স্বার্থ চরিতার্থ করতে দলীয় স্বার্থকে জঞ্জালি দিয়ে আদর্শিক পরিচয়ে আদর্শহীন কর্মকান্ড করেছে এমন নেতাদের তালিক তৈরী ও তাদের চিহ্নিত করে ছুড়ে ফেলার সিদ্ধাস্ত নেয়া হয়েছে বলে আওয়ামী লীগের তৃণমূলে ব্যাপক প্রচার রয়েছে। অপরদিকে এমন খবর প্রচারের পর পরই তৃমূলের নেতাকর্মীদের মধ্যে পরম স্বস্তি ফিরে এলেও চরম অস্বস্তি দেখা দিয়েছে একশ্রেণীর বিপদগামী নেতা ও তাদের অনুসারিদের মধ্যে। এব্যাপারে একাধিকবার যোগাযোগের চেস্টা করা হলেও রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের দায়িত্বশীল কারো কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

Please follow and like us:
error

About jahir

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

জোহা দিবসকে জাতীয় শিক্ষক দিবস ঘোষণার দাবিতে মানববন্ধন

রাবি প্রতিনিধি: রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ড. শামসুজ্জোহা ঊনসত্তরের গণঅভ‚্যত্থানে পাকিস্তানি হানাদার কর্তৃক ...